Browsing Category

অন্যান্য

সুরভিত ও সতেজ ঘর

সুরভিত ও সতেজ ঘর

ঘর সুরভিত বা সুগন্ধে সতেজ থাকুক তা আমরা কে না চাই! এলো শীত। শীতে বাহিরের অতিরিক্ত ঠান্ডা থেকে বাচিয়ে ঘরকে উষ্ণ রাখতে আমরা দিনের বেশিরভাগ সময়টাই দরজা জানালা বন্ধ করে ঘরে বাইরের আলো বাতাস চলাচল বন্ধ রাখি। এতে ঘরের ভেতরটায় এক গুমোট ব্যাপার বিরাজ করে। আর এতে সতেজ গন্ধটাও অনুভূত হয়না। অথচ আমরা চাই ঘর থাকুক উষ্ণ এবং সুরভিত। এছাড়াও বিভিন্ন কারণে আমাদের ঘরে দুর্গন্ধ অনুভূত হয়ে থাকে। ঘরের এই দুর্গন্ধ পরিবারের মানুষজনের জন্যে যেমন

চশমা কথন।

চশমা বা আইগ্লাস অনেকেরই নিত্যদিনের সঙ্গী। ক্ষনিকের জন্যই চশমা হাত ছাড়া হয়ে গেলে পড়তে হয় বিপদে।  তবে প্রিয় বা দরকারী যাই বলুন চশমার চাই একটু বাড়তি যত্ন। চশমা জড়িত কমন কিছু সমস্যা কিভাবে দূর করবেন তাই দেখে নিন আজ। ১ঃ স্ক্র‍্যাচ দূর করতেঃ চশমায় স্ক্র‍্যাচ পড়া খুবই স্বাভাবিক একটা ব্যাপার হুটহাট করে আবার এ গ্লাস বদল করা কি সম্ভব? এক্ষেত্রে সমাধান কি? সমাধান হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন টুথপেস্ট। টুথপেস্ট মোবাইল ফোনের স্ক্র‍্যাচ বা চশমার স্ক্র‍্যাচ

কিভাবে হতাশাকে জয় করা যায়

জীবন একটি ছন্দময় গতিশীল যাত্রাপথ । এই যাত্রাপথে জীবন কখনো আমাদেরকে সফলতা উপহার দেয়, আর কখনো উপহার দেয় ব্যর্থতা । আর এই ব্যর্থতা থেকেই জন্ম নেয় হতাশা । এই হতাশা বা বিষণ্ণতা এমন ই মারাত্মক এক অনুভূতির নাম যা কিনা একটি জীবন কে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিতে পারে । ধ্বংস করে দিতে পারে একটি পরিবার, তার আনন্দ । সর্বোপরি একটি সম্ভাবনাময় সপ্নের । জীবনে চড়াই উতরাই থাকবেই । এটাই স্বাভাবিক । কিন্তু সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়

ভালো থাকুন , ভালো রাখুন।

জীবন একটাই, চারপাশের যান্ত্রিকতায় দিন শেষে ভালো থাকা হয়ে উঠে না। ফলাফলে মনের অযত্ন, শরীরের অযত্ন, সব মিলিয়ে যেনো মানসিক ক্লান্তি ভর করে সত্বায়। আজ নিজের জন্য , অন্যেকে ভালো রাখার জন্য পাঁচমিশালী কিছু টিপস রইলো আপনাদের জন্য। ১: সকালের শুরু ভালো তো দিন ভালো , এমন কথাই প্রচলিত। তাই চনমনে একটা দিন শুরু করতে প্রতিদিন ভোর বেলা অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন। ২: দিনে কম হলেও অন্তত আট গ্লাস পানি পান করার চেষ্টা করুন।

৮ টি ট্রিকস, একটি উপাদান, ভ্যাসলিন !

ভ্যাসলিন, সবার ঘরে ব্যবহৃত নিত্যদিনকার একটি জিনিস। যা ছাড়া মসৃনতার অভাবে ভোগে আপনার ত্বক। তবে, শুধু ত্বকের মসৃনতা ধরেই রাখে না ভ্যাসলিন ! ভ্যাসলিনের ভিন্নধর্মী কিছু ব্যবহার ও রয়েছে যা জানলে , অনেকটা অবাক হবেন আপনি! তবে জেনে নেওয়া যাক কোন আটটি ট্রিকসের কথা বলছি আমি !   ১: চোখের ঘন পাঁপড়ি পছন্দ করেন না , এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া বেশ মুশকিল। ভ্যাসলিনের মাধ্যমে আপনি আপনার চোখের পাঁপড়ি করে তুলতে পারেন আরো ঘন ও সুন্দর।

হতাশা ভুলে, বাঁচুন নতুন করে!

  সুন্দর ও রঙীন জীবনটাকে, সাদাকালো চোখে দেখার জন্য বেশি কিছু লাগে না, ব্যাস একটু বিষন্নতা বা অবসাদের ছোঁয়াই যথেষ্ট। যাকে এক কথায় বলতে  পারেন “ডিপ্রেশন “। ড্রিপেশনের প্রথম ধাপ , বিষাদ বা অবসাদ ! নিজেকে ঘিরে হীন্নমন্যতা। যখন মাত্রাতিরক্ত বিষন্নতা কাউকে ঘ্রাস করে ফেলে, তখন তার বেঁচে থাকাটাই যেনো অনেকটা মূল্যহীন হয়ে পড়ে। অনেকেই হতাশা থেকে বেছে নেন অত্মহত্যার পথ। দৈনন্দিন জীবনে নানান কারণে সৃষ্টি হতে পারে ডিপ্রেশন। ডিপ্রেশন কি ? সহজ ভাষায় চরম

পিঁপড়ের উপদ্রব থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়।

পিঁপড়ের যন্ত্রনায় পড়তে হয়নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়াই মুশকিল। তার উপর এখন হচ্ছে বৃষ্টির সময়। এখন পিঁপড়ের উপদ্রব একটু বেড়ে যেতে পারে। জেনে নিন কি করে আপনার ঘরকে পিঁপড়ের হাত থেকে রক্ষা করবেন। বিভিন্ন কারণে পিঁপড়ার উপদ্রব হতে পারে। যেমন: মিষ্টি জাতীয় খাবার বা মিষ্টি ফলমূলেও পিঁপড়ে আক্রমণ করতে পারে। কয়েকদানা চিনি মাটিতে ফেলে রাখলেই দেখবেন। শত শত পিঁপড়ে আসতে দু মিনিট সময়ও লাগবে না। জেনে নিন পিঁপড়ে দুর করার কার্যকর কিছু উপায়..   ১:

জেনে নিন গাজরের উপকারীতা

গাজর, দেখতে দারুণ এই সবজি সালাদ বানানোর কাজে তো আসেই এছাড়াও এর রয়েছে নানা উপকারীতা। গাজর আপনার ত্ক এবং শরীরের যত্ন নিতে পারদর্শী। সম্প্রতি এক বিষ্ময়কর তথ্য বের হয়ে এসেছে শুধুমাত্র গাজরের রস খেয়েই ক্যান্সার সম্পূর্ণ ভাবে নিরাময় সম্ভব। দৈনিক এক থেকে দেড় কেজির মতো গাজরের রস খেলে ক্যান্সার কোষ সম্পূর্ণ ধংস সম্ভব। ডাক্তার রা ক্যান্সারের ঔষুধ প্রধানের পাশাপাশি গাজরের রস খাওয়ারও পরামর্শ দিচ্ছেন। আপনার আশেপাশে কোন ক্যান্সার রোগী থাকলে তাদের এই তথ্য জানিয়ে দিন।