Browsing Category

সহজ পরামর্শ

সঠিক সময়, সঠিক খাদ্যভ্যাস।

আপনার  সুস্থতা অনেকটাই নির্ভর করে আপনার খাদ্য অভ্যাসের উপর। রোজ পরিমিত খাবার, সঠিক সময়ে খেলে আপনি শারীরিক ভাবে থাকবেন ফিট। দৈনন্দিন জীবনে খাবার খাওয়ার সঠিক সময়, ও সঠিক খাদ্যভাস নিয়েই আমাদের এই আর্টিকেলটি। সকালের নাস্তা থেকে শুরু করে রাতের খাবার পর্যন্ত আপনাকে নিয়ম মেনে ঠিক খাবারগুলো খেতে হবে।চলুন জেনে নেই বিস্তারিত। সকালের খাবার : প্রতিদিনের খাবারের ভেতর সকালের খাবার বা ব্রেকফাস্ট হচ্ছে, সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ ব্যাপার। সকালে ঘুম থেকে উঠেই প্রথমে এক গ্লাস বা দেড় গ্লাস

প্রতিদিন অন্তত ত্রিশ মিনিটের ব্যায়াম কেনো জরুরী,জেনে নিন।

শারীরিক কসরত বলুন বা ব্যায়াম বলুন এটি আপনার শরীরের জন্য যে কতটুক জরুরী তা নিশ্চয় আপনার অজানা নয়। প্রতিদিন অন্তত ত্রিশ মিনিটের ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ সবার জন্যই অনেক গুরত্বপূর্ণ। চলুন খুব সংক্ষিপ্ত আকারে দেখে নেই ,আপনি প্রতিদিন ত্রিশ মিনিটের ব্যায়ামের মাধ্যমে কিভাবে উপকৃত হবেন। হার্টের সুস্থতা : হৃদপিন্ডের সুস্থতা নিশ্চিত করতে পারে ফ্রি হ্যান্ড এক্সাইসাইজ। প্রতিদিন যদি আপনি আর কিছু করতে না পারেন তবে অন্তত ৩০-৪০ মিনিট হাটার চেষ্টা করুন। যেকোন ধরনের হালকা এক্সারসাইজ আপনার

ঘরে বসেই করে ফেলুন ন্যাচারাল ফেসিয়াল।

ফেসিয়াল আপনার ত্বকের জন্য খুব জরুরী কেননা আজকালকার পলিউশনে ত্বকে ময়লা খুব সহজে জমে। এসব ধুলো -বালি আপনার ত্বকে জমে আপনার ত্বকে হতে পারে ব্রণ এছাড়াও দেখা দিতে পারে আরো নানান সমস্যা। এজন্য সমাধান হিসেবে কাজ করবে ন্যাচারাল ফেসিয়াল।ঘরে বসে স্বল্প কিছু উপাদান দিয়েই আপনি করতে পারেন ন্যাচারাল ফেসিয়াল। চলুন তবে ধাপে ধাপে দেখে নেই কিভাবে করবেন ন্যাচারাল ফেসিয়াল। প্রথমেই, চুল একটা হেয়ার ব্যান্ড দিয়ে চুল পেছনের দিকে টেনে বেঁধে নিন। যাতে চুলের কারণে কোন

কেমন হবে কর্মস্থলের আদবকেতা?

দিনের অধিকাংশ সময়টাই আমরা কাটিয়ে দেই নিজ নিজ কর্মস্থলে, সহকর্মীদের সাথে। অফিসের পরিবেশে আমাদের কিংবা অন্যের আচার আচরণ আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক প্রভাব রাখে। কর্মক্ষেত্রে নিয়োজিত সকলের মধ্যেকার সুন্দর সম্পর্ক তৈরীর জন্যই বলুন কিংবা কর্মস্থলের সুস্থ পরিবেশ ধরে রাখার জন্য কিছু আদব-কায়দা, নিয়ম-কানুন মেনে চলাটা অনেক বেশি জরুরি। কাজের পরিবেশে আপনার আচরণ বা ব্যবহার কেমন হওয়া উচিৎ তাই নিয়ে আমাদের আজকের এ আয়োজন। ১• সঠিক সময়ে অফিসে আসতে চেষ্টা করুন। শহরের রাস্তায় জ্যামে আটকে পড়াটা

সারাবছর টমেটো সংরক্ষণ

টমেটো  এমন একটি সবজি যা সবাই খেতে খুব পছন্দ করে।ছোটোরা ও এই সবজি টি খেতে ভালোবাসে ।কিন্তু সমস্যা হলো তা সারাবছর পাওয়া যায়না। কিন্তু কিছু উপায়ে টমেটো সারা বছর সংরক্ষণ করে রাখা যায়।চলুন নিচে দেখে নেওয়া যাক। ২ ভাবে টমেটো সংরক্ষণ করা যায়। সিদ্ধ দিয়ে: প্রথমে টমেটো কে ভালোভাবে ধুয়ে বোটা ছাড়িয়ে নিন।এবার পাত্রে টমেটো দিয়ে ৪-৫ মিনিট  চুলায় দিয়ে অপেক্ষা করুন।হালকা বলক উঠে গেলে নামিয়ে ঠান্ডা করে ছোটো ছোটো পলিথিন এ ভরে  ডিপ ফ্রিজ এ রেখে দিন।   কাচা বা পাকা অবস্থায়: বাজার থেকে টমেটো এনে ভালোভাবে ধুয়ে বোটা ছাড়িয়ে ডিপ ফ্রিজ এ রেখে দিন পলিথিন ছাড়া।যখন দরকার হয় বের করে নরমাল টেম্পারেচার এ রেখে রেধে ফেলুন।   বাড়িতে অবশ্যই আপনার জন্য এবং বাড়ির সবার জন্যে টমেটো সংরক্ষণ করুন।এই একটি সবজি যা সব সব্জির সাথে মানায় ও খেতে ভালো লাগে।    

মাত্র ১ সপ্তাহে পেটের মেদ  কমান

পেটের মেদ নিয়ে অনেকেরই চিন্তার কোন শেষ নেই। পেটের জমে থাকা অতিরিক্ত মেদ   বা চর্বি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক অনেক ক্ষতিকর । আর তাই এই মেদ কমাতে প্রতিদিন আমরা কত কিছুই না করছি। মেনে চলতে হচ্ছে খুব কঠিন নিয়ম-কানুন, ব্যায়াম, ডায়েট আরো কত কি। অনেকেই আছেন যাদের ফিগার, বডি ফিটনেস ভালো। কিন্তু পেটে মেদ জমে গেছে, তাই শাড়ি বা শার্ট যাই পরা হোক না কেন দেখতে খারাপ দেখা যায়। তাদেরও এই মেদ কমানো নিয়ে চিন্তার শেষ নেই। কিন্তু এইভাবে আর কত দিন চলে বলুন,

স্ট্যামিনা

স্ট্যামিনা

স্ট্যামিনা- এই শব্দটির সাথে কম বেশি আমরা সবাই পরিচিত । স্ট্যামিনা বাড়াতে এটা কর, ওটা কর- এরকম কথা আমাদের প্রায় সময় ই শুনতে হয় । কিন্তু এই স্ট্যামিনা মানে আসলে কি? আভিধানিক অর্থে বলতে গেলে স্ট্যামিনা মানে বোঝায় মনোবল । আরেকটু গভীর ভাবে বললে- টিকে থাকার ক্ষমতা । আমরা জানি আমাদের শরীর ও মন একে অপরের সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত । আর টিকে থাকতে প্রয়োজন শরীর ও মনের নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ । আর যখন শরীর ও

নিজেকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলুন।

প্রত্যেকেই চায় মানুষ তাকে পছন্দ করুক, ভালবাসুক। এই জন্য নিজেকে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা খুবই জরুরি। কারো সাথে প্রথম দেখায় আপনার বাচন ভঙ্গি থেকে শুরু করে পোশাক, সবই সে খেয়াল করে। আপনার পরিচয়, কাজের ক্ষেত্র সবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে নিজেকে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করতে পারলে সকলেই আপনাকে পছন্দ করবে। তাই আমরা তুলে ধরছি একজন পছন্দনীয় মানুষের কিছু সাধারন অভ্যাসের ইতিকথা। যা আপনাকে সকলের পছন্দের পাত্র করে তুলবে। নিজেকে সাধারণ ভাবে উপস্থাপন করুন: মানুষের সাধারণ প্রবৃত্তি হল প্রথম দেখায় নিজেকে সেরা

ত্বকের জন্য উপকারী চারটি খাবার.

কথায় আছে, ত্বক ভালো রাখতে বাহ্যিক যত্ন মাত্র ২০% প্রভাব ফেলে। বাকি ৮০% নির্ভর করে খাওয়া-দাওয়া ও ঘুমের উপর। তাই ভালো ত্বকের জন্য খাবারে সচেতন থাকতে হবে এবং ফলমূল বেশি করে খেতে হবে।আজ এমনই ৪ টি খাবার নিয়ে জানবো, যা আপনার ত্বক ভালো রাখবে। ১: জাম/কালো জাম কালো জামে আছে এ্যান্টি -অক্সিডেন্ট। এতে আরো আছে ভিটামিন “এ”, ভিটামিন “সি” ও ভিটামিন “ই”। আমরা সবাই ই জানি যে,ভিটামিন “ই ” ত্বকের জন্য কতটা ভালো। জাম ভেতর

বয়স কমিয়ে দিবে যেই ফেসপ্যাক

ভিন্নধর্মী বিউটি টিপস।

রূপকে ঘিরে রইলো অল্প কিছু ভিন্নধর্মী বিউটি টিপস। আশা করি, সামান্য হলেও আপনার কাজে আসবে। অল্প কিছু সহজ টিপস ব্ল্যাক হেডসের সমস্যায় ভুগছেন? এক কাজ করুন মুখে সামান্য গরম পানির ভাপ নিন। তারপর একটি কালো ক্লিপ ( রাউন্ড অংশ)   দিয়ে চেপে চেপে ব্ল্যাক হেডসে চাপ দিন। খুব সহজে নাক বা থুতনিতে জমে থাকা ব্ল্যাক হেডস উঠে আসবে। হাতের কাছে ফেস স্ক্রাবার নেই?  সমস্যা নেই, ব্রাউন সুগার, মধু ও সামান্য গুড়া দুধ এক সাথে মিশিয়ে ফেস