Browsing Tag

আলু

আলুর যে ফেস প্যাক মুহূর্তে উজ্জ্বলতা এনে দেবে

আলুর যে ফেস প্যাক মুহূর্তে উজ্জ্বলতা এনে দেবে

আলু সাধারণত আমরা খাবার হিসেবেই খেয়ে থাকি। মেইন কোর্স থেকে নানা রকম নাস্তা সব কিছুই আলু ব্যবহার করে বানানো সম্ভব। তবে আপনি কি জানেন যে আমাদের রূপচর্চার জন্যও এই আলু খুব ভাল কাজে লাগতে পারে। বিশেষ করে আপনি যদি আপনার ত্বকের রঙ নিয়ে খুব বেশি সন্তুষ্ট না থাকেন, এবং ত্বকের রঙ আরো উজ্জ্বল করে তুলতে চান, তাহলে আপনার জন্য আলুর কোন বিকল্প হতে পারে না। আসলে আমরা অনেকেই হয়ত জানি না যে আমাদের ত্বককে ফর্সা

আলুর দোপেয়াজা

সুস্বাদু ও ভিন্নধর্মী রেসিপি – আলুর দোপেয়াজা

এই পৃথিবীর সব  মানুষের মূল খাদ্য হিসেবে চাল, ভুট্টা আর গমের পর পরই আলুর অবস্থান। পৃথিবীর অনেক দেশেই প্রধান খাদ্য হিসেবে রুটি বা ভাতের পরিবর্তে আলু খাওয়ার প্রচলন আছে। তবে আমাদের দেশে দেখা যায় আলু এখন পর্যন্ত  পরিপূরক বা সহায়ক খাবার হিসেবেই খাওয়া হয়। ভাতের সঙ্গে আলুর ভর্তা অথবা যে কোন ধরনের  তরকারি রান্না করতে গেলে আলু না হলে যেন চলেই না। এটি সারা বছরই বাজারে পাওয়া যায় এবং দামেও খুবই সস্তা যে কোন সব্জির

আলু পনির স্টির ফ্রাই রেসিপি

আলু পনির স্টির ফ্রাই রেসিপি

পনির আমাদের দেশে খুব বেশি প্রচলিত কোন খাবার না। এটি আমাদের দেশিয় খাবারে খুব একটা ব্যবহার করা হয় না। সাধারণত বিভিন্ন নাস্তা বানাতে কিংবা খাবারের উপর গার্নিশিং এর জন্য আমরা পনির ব্যবহার করে থাকি। আমরা কিন্তু অনেকেই জানি না যে পনির খুব পুষ্টিকর একটা খাবার। এই খাবারটিতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে। কিন্তু অন্যান্য প্রোটিন যুক্ত খাবার যেমন মাংসের মত পনিরে অত বেশি ফ্যাট থাকে না। এজন্য আমাদের দেহের প্রোটিন এর চাহিদা পূরণ করার জন্য পনির

মজাদার আলু পোস্ত রেসিপি

মজাদার আলু পোস্ত রেসিপি

হাজার রকম সবজির ভীড়ে সম্ভবত আলুই এমন একটা সবজি যেটা ছোট বড় সবাই কম বেশি পছন্দ করে। আর আমার তো অনে হয় আলু হচ্ছে একমাত্র সবজি যেটা দিয়ে অজস্র রকমের রেসিপি বানানো যায়। আলু দিয়ে যত রকমের ভ্যারাইটির খাবার বানানো যায় অন্য কোন সবজি দিয়ে তা করা যায় না। আলু যে শুধু নাস্তা বা মেইন কোর্স তৈরীতে ব্যবহার করা যায় তাই না। আলু দিয়ে কিন্তু দারুণ দারুণ ডেজার্টও বানানো যায়। তবে আজ আলু দিয়ে বানানো

আলু দিয়ে তৈরী নানা নাস্তা

আলু দিয়ে তৈরী নানা নাস্তা

আলু আমাদের দেশের সবচেয়ে সহজলভ্য সবজির মধ্যে একটি। আর সহজলভ্য এ সবজিটি পছন্দ করেন না এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া অনেক কঠিন। আলুকে যেকোন কারী বা নাস্তায় নির্দ্বিধায় যোগ করে নেয়া যায়। আমাদের আজকের আয়োজন আলু দিয়ে তৈরী হরেক রকম নাস্তার রেসিপি নিয়ে। তবে আসুন দেখে নেই রেসিপিগুলো কি কি – ১। ব্যাকড পটেটো চিপস আলু পাতলা স্লাইসে কেটে নিন। এবার কেটে রাখা আলু ধুয়ে নিয়ে এতে তেল ভালো ভাবে ছিটিয়ে দিন। এতে লাল মরিচ গুঁড়ো,

আলু ব্রেড কাবাব রেসিপি

সবচেয়ে সাধারণ উপাদান হিসেবে ব্রেকফাস্টে ব্রেড ও আলু বহুলভাবে ব্যবহার করা হয়। এ দুটি উপাদান দিয়ে কম সময়ে, সহজ উপায়ে নানা মুখরোচক খাবার তৈরী করে নেয়া যায়। আজকে এমনি এক খাবারের রেসিপি জানিয়ে দিবো। সকালের নাস্তায়, বাচ্চাদের টিফিনে কিংবা বিকালের চায়ের আসরে খুব সহজে তৈরী করে ফেলতে পারবেন আলু ব্রেড কাবাব। চলুন দেখে নেই কাবাবটি কিভাবে তৈরী করবেন- আলু ব্রেড কাবাব তৈরিতে যা যা লাগবে ব্রেড স্লাইস ৫টি দই ১/২ কাপ সিদ্ধ আলু ১টি (বড়)

ফর্সা ত্বক এর অনন্য উপাদান আলু

ফর্সা ত্বক এর অনন্য উপাদান আলু

একটু ফর্সা হবার জন্য মেয়েরা কত কিছুই না করে থাকে। ত্বকের শেড আরো কিছুটা হালকা করার জন্য আর ত্বককে উজ্জ্বল দেখানোর জন্য মাসে মাসে পার্লারে ছুটোছুটি করাটা এখন অতি স্বাভাবিক ব্যাপার। আর পার্লারে ট্রীটমেন্ট নেয়া মানেই পকেটের উপর বেশ ভারী একটা চাপ তো অবশ্যই পড়বে। শুধু তাই না। স্কিন স্পেশালিস্টরা কিন্তু আমাদেরকে অন্ধ ভাবে শুধু পার্লারের ট্রীটমেন্ট নিতে মানা করে থাকেন। কারণ পার্লারে যেসব কেমিকেল ব্যবহার করা হয় তার মধ্যে বেশিরভাগই খুব কড়া প্রকৃতির হয়ে

মিল্কি গ্লো এর জন্য আলু এর বডি সোপ

আলু এর বডি সোপ মিল্কি গ্লো এর জন্য

আলু এর বডি সোপ। কি অবাক হলেন তো? যে আলু দিয়ে আবার কিভাবে বডি সোপ বানানো যায়? বাসায় বসে খুব সহযেই আলু দিয়ে খুব সহজেই সোপ বানানো যায় আপনার ই ব্যবহার এর সোপ এর সাথে।আমরা যেই সোপ গুলা ব্যবহার করি তার পুরোটাই কেমিক্যাল।কেমিক্যাল আমাদের স্কিন এর জন্য অনেক ক্ষতি কর। বাইরের বাজারে এভেইলেবল সোপ গুলা আমরা ব্যবহার করি। এখন এই সোপ গুলোকেই যদি একটু মডিফাই করে ন্যাচারাল কিছু যোগ করা যায় তাহলে সেইটা স্কিন এর

মজাদার লুচি আলুর দম রেসিপি

গরম গরম লুচি খেতে কার না ভালো লাগে?  এর সঙ্গে যদি থাকে মজাদার আলুর দম তাহলে তো কথাই নেই! লুচি আলুর দম বাঙালির প্রিয় খাবার। এর নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে ভোজন রসিকদের। লুচিকে আমরা সাধারণত চিনি পুরি হিসেবে। কিন্তু পুরি আর লুচির মধ্যে সামান্য কিছুটা পার্থক্য আছে। পুরি হলো সেটা যার ভেতর পুর ভরা থাকে। যেমন – আলু পুরির ভেতর আলুর পুর, ডাল পুরির ভেতর ডালের পুর ইত্যাদি। আর লুচি হলো ফুলকো। এটা শুধু আটা বা ময়দা দিয়ে তৈরি এবং এর ভেতরে কোন পুর দেয়া হয় না। এই লুচি বিভিন্ন আইটেম এর সাথে খাওয়া যায়। সেটা হতে পারে মিষ্টি বা ঝাল। কিন্তু লুচি সাধারণত আলুর দমের সাথেই বেশি জমে আর খেতেও খুবই সুস্বাদু লাগে। আলুর দমের সাথে লুচির সমন্বয় টা সবসময় পারফেক্ট হয়। আর মজার এই খাবারটি সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, বিকালবেলার নাস্তা অথবা রাতের খাবার যখন ই খাওয়া হোক না কেন সব সময়ই উপভোগ্য। আলুর দম তো প্রায় সবাই ই রান্না করতে পারেন। তবে কলকাতার বাঙালি রা যেভাবে এটাকে রান্না করেন তার রেসিপি  টা একটু আলাদা।  একটা অন্যপ্রকার মশলার টুইস্ট খুজে পাওয়া যায় তাদের রান্নায়। রেসিপিটি শুরু করার আগে বলতে চাই যে, যদিও লুচি অর্থাৎ রিফাইন্ড ফ্লাওয়ার দিয়ে তৈরি করা হয় তবুও আপনি যদি আপনার বা পরিবারের  স্বাস্থ্য  নিয়ে সচেতন হয়ে থাকেন তবে লুচি তৈরির জন্য আস্ত গমের আটা ব্যবহার করতে পারেন। আলুর দম তৈরি করার জন্য যদি ছোট ছোট আলু  বা নতুন আলু বাছাই করেন তাহলে সুস্বাদু হবে বেশি। আপনি ছোট আলু না পেয়ে থাকেন

আলু পাকোড়া

আলু পাকোড়া

পাকোড়া আমাদের খুবই প্রিয় একটা খাবার। বৃষ্টির দিনে সন্ধায়ে পাকোড়া না হলে যেন আমাদের চলেই না। নাস্তা হিসেবে পাকোড়া খুবই উপাদেয় খাবার। পাকোড়া খুবই সহজ ভাবে বানানো যায় হাতের কাছে পাওয়া উপকরন দিয়েই। বাইরে বিভিন্ন দোকানে গরম গরম পাকোড়া পাওয়া যায়। যা হয় খুবই সুস্বাদু। কিন্তু বাইরে বানানো পাকোড়া সুস্বাদু হয় ঠিকই কিন্তু আনহাইজেনিক পরিবেশে বানানোর ফলে তআ সাস্থের জন্য হুমকি স্বরূপ। এইজন্য যদি আপনি ঘরে বসে পাকোড়া বানান তাহলে সেইটা হবে হাইজেনিক পরিবেশে এবং