কেমন হবে হেয়ার হাইলাইটিং!

হেয়ার হাইলাইটস আজকাল তরুণ-তরুণীদের কাছে ফ্যাশনের একটি বিরাট জায়গা দখল করে আছে। চুলটাকে কোন এক রঙে না রাঙিয়ে, ভিন্ন ভিন্ন রঙে রাঙিয়ে চুলে রঙের খেলা সৃষ্টি করাকেই হেয়ার হাইলাইটিং বলে। চুলটা রাঙানোর আগে কিছু ব্যাপার জেনে নিলে মন্দ হয় না ।

👉 চুল হাইলাইটিং করতে পার্লারে গেলেই ভাববেন না আপনার দায়িত্ব শেষ। খেয়াল রাখুন কোন ধরনের প্রডাক্ট আপনার চুলে ব্যবহার করা হচ্ছে। সামান্য অবহেলায় চুলের বিরাট ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। আর নিম্নমানের প্রডাক্ট দিয়ে করা হাইলাইটস ও খুব বেশি দিন টিকবে না।

কেমন হাইলাইটস চলছে:

আজকাল একটু ডার্ক শেডের হাইলাইটস খুব চলছে যেমন বেগুণী,কমলা,সবুজ, লাল ইত্যাদি। মোট কথা একটু রঙচঙে রঙ গুলোর ট্রেন্ড বেশ চলছে।

সবচেয়ে কমন আর জনপ্রিয় হাইলাইটিং হলো বাদামি রঙা চুলে লাল শেডের হাইলাইটিং। সব সময়ই এই হাইলাইটের চল থাকবে। আর এই হাইলাইটিং সব ধরনের সব চুলেই সহজে মানিয়ে যায়।

হেয়ার হাইলাইটিং করতে কমপক্ষে ভিন্ন ভিন্ন দু তিন রঙ ব্যবহার করুন। এতে হাইলাইটিং ফুটে উঠবে আর দেখতেও ভালো লাগবে।

হেয়ার হাইলাইটিং করতে মানানসই রঙ বেছে নিন। যেমন লাল চুলে কমলা রঙ একদম মানাবে না। আপনার মুখে গোলাপি আভা থাকলে আপনাকে লাল রঙের হাইলাইটিং এ ভালো নাও লাগতে পারে। তাই ভেবে রঙ নির্বাচন করুন।

আমাদের দেশের মানুষের স্কিন টোনের সাথে ব্রোন্জ, গোল্ড, হালকা ক্রিম কালার শেড বেশ মানিয়ে যাবে।

যত্নআত্তি : রঙ করানো তো শেষ, এবার চুলের যত্নটাও নিতে হবে টিকটাক মতোন। চুলের যত্ন না নিলে চুলের তো ক্ষতি হবেই সাথে রঙটাও বেশি দিন টিকবে না।

যত্নের ব্যাপারে জেনে নিন :

👉 বাজার ঘুরে ভালো মানের শ্যাম্পু নির্বাচন করুন। কালারড হেয়ারের জন্য আলাদা শ্যাম্পু কিনতে পাওয়া যায়। ব্র্যান্ড দেখে যাচাই করে কিনে নিতে পারেন।

👉 বাইরে বের হলে অবশ্যই স্কার্ফ ব্যবহার করুন। কারণ তীব্র রোদ চুলের ক্ষতি করবে সাথে চুলের রঙও ফ্যাকাশে হয়ে যাবে তীব্র রোদের কারণে।

👉 ভেজা চুল আচড়াবেন না। অযথা চুল জোরে ঘষবেন না। এতে চুলের কিউটিকল নষ্ট হয়ে চুল পড়া বেড়ে যাবে।

 

👉 চুলে নিয়মিত কন্ডিশনিং করুন। চুলে রঙ লাগালে চুলে একটা খসখসে ভাব চলে আসে তাই নিয়মিত কন্ডিশনিং জরুরী।

👉 চাইলে পার্লারে যেয়ে প্রোটিন ট্রিটমেন্ট করাতে পারেন।

👉 সপ্তাহে অন্তত দু দিন চুলে তেল লাগান।

স্থায়িত্ব : চুলে রঙ বা হাইলাইটস সাধারনত চার থেকে আট সপ্তাহ পর্যন্ত টিকে। তবে এজন্য অবশ্যই পর্যাপ্ত যত্ন নিতে হবে। নতুন চুল গজালে তাও নতুন করে হাইলাইটিং করিয়ে নিতে পারেন।

বিঃদ্র : শখের তুলা আশি টাকা শখ হলে অবশ্যই হাইলাইটিং করবেন তবে বছরে বারো মাসই চুলে রঙ করাটা কখনোই বুদ্ধিমানের কাজ নয়। কালো চুলের মতো আকর্ষনীয় আর কিছুই হতে পারে না। চুলের যত্নে নিয়মিত তেল লাগান এবং ভিটামিন ই সমৃদ্ধ শাক- সবজি বেশি করে খান। আর অবশ্যই প্রতিদিন পরিমাণ মতো পানি পান করবেন।

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

মন্তব্য করুন