প্রাকৃতিক কিছু ফেস প্যাক।

মুখে অনেক সময় কালো দাগ পড়ে যায়, তাছাড়া রোদে পোড়া দাগ, ব্রণ, মেছতা ইত্যাদির কারণে মুখে দাগ পড়ে যায়। এসব দাগ থেকে মুকি্ত পেতে সাহায্য নিতে হয় বিভিন্ন ধরনের ক্যামিকেল যুক্ত ফেসপ্যাকের। এগুলোর থাকতে পারে বিভিন্ন সাইড এফেক্টস যা একটি সমস্যা থেকে অন্য সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।তবে ঘরোয়া কিছু উপাদান দিয়েই আপনি মুখের এসব দাগ থেকে মুক্তি পেতে পারেন। তবে দেখে নিন ঘরোয়া কিছু প্রাকৃতিক ফেসপ্যাক কিভাবে তৈরী করবেন।

১ : কমলার খোসা এবং দই : কমলার খোসা রোদে শুকিয়ে গুড়ো করে নিন অথবা একটু পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এরপর এর। সাথে দই মিশিয়ে নিয়মিত ত্বকে লাগাতো পারেন। কমলাতে উপস্থিত ভিটামিন সি আপনার ত্বককে টানটান করবে এবং দই ত্বকের উজ্জলতা বাড়াবে। এই প্যাক মুখে বিশ মিনিট লাগিয়ে এরপর ধুয়ে নিন।

 

২: দারচিনি গুড়ো এবং মধু : ব্রণের দাগ বা মুখের কালো দাগ থেকে মুক্ত হতে দারচিনি গুড়া এবং মধু একসাথে মিশিয়ে সারারাত মুখে রেখে দিন পরের দিন সকালে ও মুখ ধুতে পারেন। এতে ত্বকের দাগগুলোও কমবে ব্রণের সমস্যাও থাকবে না।

৩: দুধ ও লেবুর রস : দুধ ও লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগান এটি দারুণ একটি ফেসপ্যাক হিসেবে কাজ করবে। লেবু ত্ফক পরিষ্কার করবে এবং দুধ ত্বকের কোমলতা ধরে রাখবে।

৪: নিম ও তুলসী : নিম ও তুলসীপাতা রোদে শুকিয়ে নিধ এরপর ব্লেন্ড করে এই পেস্ট মুখে লাগান। ত্বকের দাগ কমবে , ত্বক পলিশ হবে। এই পেস্ট ফ্রিজে রেখেও ব্যবহার করা যাবে।

৫: গাজর ও মধু : গাজর ব্লেন্ড করে এর সাথে মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরী করুন এই প্যাক মুখে লাগিয়ে রাখুন পনেরো মিনিট এরপর মুখ ধুয়ে নিন। গাজর ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি করবে ! নিয়মিত এই প্যাক ব্যবহার করলে ত্বকের পরিবর্তনে চমকে যাবেন আপনি!

বেসন ও হলুদ : খাঁটি হলুদ গুড়া এক চিমটি এবং এক চা চামচ মধু মিশিয়ে মুখে লাগান। ত্বক ফর্সা হবে সাথে এলার্জির সমস্যা থাকলেও কমবে।

 

এই প্যাক গুলো একদম ন্যাচারাল কিছু উপাদান দিয়ে তৈরী কোন পার্শ্ব – প্রতিক্রিয়া নেই তাই নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারবেন কোন ধরনের সমস্যা হবে না আশা করি।

 

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

মন্তব্য করুন