থাইরয়েড থেকে মুক্তির উপায়

থাইরয়েডের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কিছু উপায়

থাইরয়েডের সমস্যা খুবই জটিল এক সমস্যা। অনেক সময় এই সমস্যা থেকে শ্বাসকষ্টও হতে পারে। থাইরয়েডের সমস্যাকে খুব একটা ছোট করে দেখার অবকাশ নেই কারণ, অনেক সময় এই রোগ থেকে মরণব্যাধি ক্যান্সার রোগও হতে পারে। যন্ত্রনাময় এই রোগ থেকে বাচঁতে কিছু সহজ সমাধান দেখে নিন। প্রাথমিক অবস্থা থাকলে এই উপায়গুলো পালন করলেই সহজেই থাইরয়েড থেকে মুক্তির উপায় পেতে পারেন।

থাইরয়েড থেকে মুক্তির উপায়

পেয়াঁজ:

একটু অবাক হতে পারেন পেয়াঁজ শব্দটা শুনে। তবে সত্যি পেয়াঁজ থাইরয়েডের সমস্যা থেকে মুক্তি দিবে। একটি পেয়াঁজ অর্ধেক করে কেটে নিন। এই অর্ধেক অংশ থাইরয়েড আক্রান্ত স্থানে পাঁচ-সাত মিনিট ম্যাসেজ করুন। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর অগে করুন। পরের দিন সকালে পেয়াঁজের রস ধুয়ে নিন। সারারাত পেয়াঁজের রস গলায় নিজের কাজ করবে। এভাবে অন্তত এক সপ্তাহ করে দেখুন।

প্রোটিনযুক্ত খাবার:

থাইরয়েডের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বেশি করে প্রোটিনযুক্ত খাবার খান। প্রতিদিন সকালের নাস্তায় ডিম, দুধ রাখুন। এছাড়া ছোট মাছ, মোরগের কলিজা ইত্যাদি খাওয়ার চেষ্টা করুন।

বাটার:

থাইরয়েড রোগীদের জন্য বাটার খুবই উপকারী। বিস্তারিত জানতে নেটে রিসার্চ করে দেখুন। আশা করি খাবারে বাটার যোগ করলে ভালো ফল পাবেন এছাড়া বাটার এমনিও খেলে ভালো।

খাবার খান খুব ধীরে:

খুব তাড়াহুড়ো করে খাবার খেলে গলার উপর চাপ পড়ে। তাছাড়া চিবিয়ে খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যসম্মত। তাই খেতে হবে খুব ধীরে। প্রতিবার যেকোন কিছু সময় নিয়ে খেতে চেষ্টা করুন।

ইয়োগা:

থাইরয়েড সারাতে ইয়োগা ভালো কাজ করবে। ইউ টিউবে এ সংক্রান্ত সার্চ করে ভালো অভ্যাস করুন। সুফল পাবেন আশা করা যায়।

ভিটামিন এ:

থাইরয়েড রোগীদের জন্য ভিটামিন এ যুক্ত খাবার খুব কাজে আসে। ভিটামিন এ ক্যাপসুল ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খেতে পারেন। এজন্য বেশি করে হলুদ শাক-সবজী খেতে পারেন। এছাড়া সবুজ শাক সবজীতে ভিটামিন এ যুক্ত খাবার খান। গাজর ও ডিমের কুসুমে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এ আছে।

মিনারেল:

থাইরয়েডের সমস্যায় মিনারেল কার্যকরী। লেবুতে প্রচুর পরিমাণ মিনারেল আছে। লেবু পানীয় খেতে পারেন। কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস নিয়ে পান করুন।

তবে একটা ব্যাপার মনে রাখুন সমস্যা বেশি হলে অবশ্যই ডাক্তারের সরনাপন্ন হোন। থাইরয়েডের সমস্যা হলে খুব বেশি ঠান্ডা বা খুব বেশি গরম এড়িয়ে চলুন।

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

১ টি মন্তব্য
  1. Reply জুয়েল রানা এপ্রিল ১৪, ২০১৮ তারিখে ৮:০৯ অপরাহ্ন

    গুরুত্বপুর্ণ বিষয়টি নিয়ে লেখার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

মন্তব্য করুন