দেখে নিন নয় ধরনের ভিনদেশী সালাদ।

হেলথ নিয়ে সচেতন এমন মানুষের নিত্যদিনের খাবারের তালিকায় থাকে সালাদ। ত্বক কি স্বাস্থ্য কি ফিগার সব ঠিক রাখতে সবজীই যথেষ্ট।
নানান ভাবে ভিন্ন ভিন্ন কিছু সালাদ তৈরী করুন খুব সহজেই। স্বাস্থ্য ভালো থাকবে সাথে খেতেও মজা এই সালাদগুলো!

এক নজর দেখে নিন কিভাবে নানান স্বাদের সালাদ তৈরী করবেন……
১: পাপাইয়া সালাদ:
উপকরণ: পেঁপে জুলিয়ান কাট দু কাপ।
লবন পরিমাণমতো।
সয়া সস দুই টেবিল চামচ।
কাচাঁমরিচ কুচি ও ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো।
রসুন মিহি কুচি এক টেবিল চামচ।
ফিশ সস দু টেবিল চামচ।
লেবুর রস দু টেবিল চামচ।
পদ্ধতি: প্রথমে পেঁপে লেবুর রস ও লবন দিয়ে মেখে রাখুন দশ থেকে পনেরো মিনিট। এরপর সব গুলো উপকরণ পেঁপেতে ছেড়ে ভালো করে মেখে নিন। পরিবেশনের আগেই সব উপকরণ দিন।

২: রেইনবো সালাদ:
উপকরণ: চিংড়ি মাছ এক কাপ।
কাজুবাদাম তিন টেবিল চামচ।
লবন পরিমাণমতো
সয়া সস দুই টেবিল চামচ।
শশা ,গাজর, টমেটো কুচি এক কাপ।
ক্যাপসিকাম আধা কাপ (বিভিন্ন রঙের)
অলিভ অয়েল দুই টেবিল চামচ।
চিনি পরিমাণমতো।
লেবুর রস দুই টেবিল চামচ

ড্রেসিং এর জন্য:
লেবুর রস দুই টেবিল চামচ
অলিভ অয়েল এক চামচ ,
লবন ও চিনি পরিমাণমতো।

পদ্ধতি: ফ্রাইপ্যানে সামান্য অলিভ অয়েল দিয়ে এতে এতে বাদামি করে কাজুবাদাম মিশিয়ে নিন। এবার চিংড়ি মাছ সামান্য লবন ও সয়াসস দিয়ে মেখে ভেজে নিন।
এবার ভেজে রাখা চিংড়ি ও বাদামে একে একে সব সবজী দিয়ে দিন। একে একে সকল উপকরণ ছেড়ে দিন। ড্রেসিং এর উপকরণ দিয়ে ভালো করে মেখে নিন। লেটুসপাতা দিয়ে পরিবেশন করুন।

৩: থাই চিকেন ও নাট সালাদ:
উপকরণ:
দু কাপ কিউব করে কাটা চিকেন
দু কাপ চিনাবাদাম
আদা বাটা সামান্য।
রসুন বাটা সামান্য।
ডিম একটি।
গোলমরিচ গুড়া সামান্য।
কর্ণফ্লাওয়ার দু টেবিল চামচ।
টমেটো সস দু টেবিল চামচ।
পনির আধা কাপ।
পেঁয়াজকুচি দু টেবিল চামচ
ছোলা এক কাপ।
টমেটো সস, গার্লিক সস, চিলি সস, সুইট চিলি সস (সব দু টেবিল চামচ)
টমেটো কুচি শশা কুচি এক কাপ
ধনেপাতা ও কাঁচামরিচ কুচি সামান্য।

পদ্ধতি: প্রথমে চিকেন ও বাদাম আদা, রসুন বাটা, ডিম,গোলমরিচ গুড়া, করণফ্লাওয়ার, সামান্য টমেটো সস, সামান্য লবন দিয়ে মেখে নিন।
এবার চিকেন ডুবো তেলে ভাজুন।
মাখানো চিনাবাদামকে হাত দিয়ে পাকোড়ার মতো শেপ করে ডুবো তেলে ভেজে নিন।
এবার ফ্রাইপ্যানে অল্প অলিভ অয়েল দিয়ে পনির, ছোলা,ও পেঁয়াজকুচি হালকা ভেজে নিন।
এবার,
ভাজা পনির ও চিকেনের সাথে টমেটো ও শশা কুচি মিশিয়ে নিন। এতে একে একে সব ধরনের সস ও গোলমরিচ গুড়া দিয়ে মেখে নিন।
পরিবেশনের আগে ভেজে রাখা বাদাম ক্রাশ করে সালাদের উপর ছড়িয়ে দিন।

৫: থাই বিফ সালাদ:
উপকরণ:
গরুর মাংস বড় পিস( ৪০০গ্রামের)
পানি দু কাপ।
সয়াসস দু টেবিল চামচ।
লেবুর রস দু টেবিল চামচ।
লবন সামান্য।
ভিনেগার এক টেবিল চামচ।
অলিভ অয়েল তিন টেবিল চামচ।
কচি পালং শাক সিদ্ধ এক কাপ।
ড্রেসিং এর জন্য : লেবুর রস , সয়া সস, ফিশ সস,(দু টেবিল চামচ)
রসুন গ্রেড করা এক চা চামচ।
লাল মরিচ কুচি পরিমাণমতো।

(সব একসাথে মিশিয়ে নিলেই ড্রেসিং তৈরী করুন। ফিশ সসে প্রচুর লবন থাকে তাই টেস্ট বুঝে লবন দিন)
পদ্ধতি: প্রথমে দু কাপ পানিতে ভিনেগার , সয়া সস, লেবুর রস দিয়ে এক ঘন্টা মাংসের পিস সিদ্ধ করুন। এবার মাংস পাতলা স্লাইস করে ফ্রাইপ্যানে ছেঁকা তেলে ভেজে নিন।
এবার তৈরী করে রাখা মাংসের সাথে সিদ্ধ পালং শাক, ইচ্ছামতো সবজী (গাজর, টমেটো, শশা)
ইত্যাদি মিশিয়ে নিন। সালাদ ড্রেসিং দিয়ে মেখে পরিবেশন করুন।

৬:চিকেন এন্ড প্রণ ক্যাশুনাট সালাদ:
উপকরণ; মুরগীর বুকের মাংস ছোট কিউব কাট এক কাপ।
চিংড়ি কিউব এক কাপ।
ডিম একটি।
কর্নফ্লাওয়ার এক টেবিল চামচ।
ময়দা এক টেবিল চামচ।
প্রথম ধাপ: মোরগ ও চিংড়িকে ডিম, কর্ণফ্লাওয়ার,সামান্য লবন ও ময়দা দিয়ে মেখে ডুবো তেলে ভেজে নিন।

এবার,
দ্বিতীয় ধাপে , ভাজা মাংস ও চিংড়ি আন্দাজ মতো পেঁয়াজকুচি, লবন,টমেটো কুচি এক কাপ, টমেটো সস সস এক টেবিল চামচ, চিলি সস এক টেবিল চামচ, কাজুবাদাম আধা কাপ, ধনেপাতা কুচি ও আন্দাজমতো কাঁচামরিচ কুচি দিয়ে মেখে পরিবেশন করুন।

৭:চিকেন ফ্রেন্ডলী সালাদ:
উপকরণ চিকেন জুলিয়ান কাট এক কাপ।
আধা বাটা এক টেবিল চামচ।
রসুন বাটা এক টেবিল চামচ।
সয়া সস দু টেবিল চামচ।
লেবুর রস দু টেবিল চামচ।
পছন্দমতো সালাদের সবজী এক কাপ।
গোলমরিচ গুড়ো সামান্য।
আদা ও রসুন কুচি এক টেবিল চামচ।
মেয়োনিজ চার টেবিল চামচ।

পদ্ধতি: প্রথমে চিকেন জুলিয়ান কাট করে কেটে নিন।এবার একটি প্যানে চিকেন, সব ধরনের সবজী, সয়া সস, লেবুর রস, সামান্য লবন ও গোলমরিচ দিয়ে ভেজে নিন। অর্ধেক সিদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। এবার এতে আদা রসুন কুচি ও মেয়োনিজ দিয়ে মেখে নিন। প্রয়োজনমতো বা ইচছা অনুযায়ী মেয়োনিজ ব্যবহার করতে পারবেন।

৮:চিকেন জংলী সালাদ:
উপকরণ:আদা বাটা এক চা চামচ।
রসুন বাটা এক চা চামচ

হলুদ গুড়া সামান্য।
তান্দুরী মসলা এক চা চামচ।
সরিষার তেল চার চা চামচ।
মুরগীর মাংস এক কাপ।
পেঁয়াজ রিং করে কাটা এক কাপ।
ক্যাপসিকাম এক কাপ।
টমেটো কুচি এক কাপ।
লেবুর রস দু টেবিল চামচ।
শুকনো মরিচ গুড়া সামান্য।
কারী পাউডার সামান্য।

প্রস্তুত প্রণালী:প্রথমে মুরগীর মাংসকে ছোট করে কেটে আদা রসুন বাটা লবন হলুদ ও মরিচগুড়া তান্দুরী মসলা,সরিষার তেল দিয়ে মেখে রাখুন।
এবার ফ্রাইপ্যানে খুব সামান্য সরিষার তেল দিয়ে পেঁয়াজ মিহি কুচি এক টেবিল চামচ ক্যাপসিকাম ও টমেটো দিয়ে ভাজুন। এবার এতে ম্যারিনেট করে রাখা মাংসগুলো ছেড়ে দিন। মাংস থেকে পানি বের হয়ে শুকনো হয়ে আসলে নামিয়ে নিন। এবার এতে রিং করে কাটা পেঁয়াজ দিন। শুকনো মরিচ টালা গুড়া কারী পাউডার ও লেবুর রস দিন। ভালো করে মাখিয়ে রেখে দিন।
লেটুশ পাতা ধুয়ে লেবুর রস দিয়ে মাখিয়ে রাখুন গার্নিশিং এর জন্য।
এবার লেটুশপাতার উপরে প্রথমে পেঁয়াজের মিশ্রণ ও পরে রান্না করা মাংসের মিশ্রণ ঢেলে দিন।
ব্যাস তৈরী চিকেন জংলী সালাদ।

৯: গাজরের স্পাইসি সালাদ:

উপকরণ: গ্রেট করা গাজর এক কাপ।

শুকনো মরিচ গুড়ো এক চা চামচ।
লেবুর রস দুই টেবিল চামচ।
সিরকা এক টেবিল চামচ।
কাচা মরিচ কুচি সামান্য।
ধনে পাতা কুচি সামান্য।
আদা বাটা আধা চা চামচ।
রসুন বাটা আদা চা চামচ।
সরিষার তেল বা অলিভ অেল দু টেবিল চামচ।
লবন সামান্য।

পদ্ধতি : সবগুলো উপকরন খুব ভালো করে এক সাথে মেখে নিলোই তৈরী হয়ে যাবে গাজরের স্পাইসি সালাদ। প্রয়োজনে মরিচ আরো বেশি ব্যবহার
হার করা যাবে।

পুরো নয় ধরনের সালাদের রেসিপি অছে এখানে আপনার ইচ্ছামতো বেছে নিয়ে তৈরী করুন। দারুণ ব্যাপার হলো এই সালাদগুলো আপনি এমনিই খেতে পারবেন। যারা ক্রাশ ডায়েটে আছেন তারা এই সালাদগুলো খেতে পারবেন। এই সালাদগুলো খুবই পুষ্টিকর সাথে দারুণ মজাদার ! যেকোন থাই বা চাইনিজ খাবারের স্বাদ কয়েকগণ বাড়িয়ে তুলবে এই সালাদগুলো। তবে সালাদের পরিমাণ বা জিনিসগুলো আপনি একটু নিজ থেকে আন্দাজ করে নিতে হবে কেননা সালাদে কি কতটুক পরিমাণ লাগবে তা আসলে একদম নির্দিষ্ট করে বলা যায় না।

চেষ্টা করে দেখবেন অবশ্যই!
ভালো থাকুন।

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

মন্তব্য করুন