ঈদে খাবার টেবিল সাজান মনের মতো করে !

আর হাতে বেশি সময় নেই, প্রায় দরজায় এসে দাড়িয়েছে ঈদ-উল-আযহা। সাজ পোশাকে এই ঈদে তেমন একটা গুরত্ব না দিলেও খাবারে প্রতি দিতে হয় বাড়তি নজর। তাই বাদ যায় না খাবার টেবিলটাও।

এই ঈদে কিভাবে আপনার খাবার টেবিলটাকে একটু ভিন্ন লুক দেওয়া যায় তাই দেখে নিন।

👉 টেবিলে রানার , ম্যাট ব্যবহার করলে খুব ভালো দেখায়। একই রঙের ম্যাট ও রানার বা বিপরীত রঙা রানার ও ম্যাট ব্যবহার করতে পারেন।

👉 টেবিলে যখন খাবার পরিবেশন করবেন তখন গ্লাসের পাশে ন্যাপকিন ভাঁজ করে রাখুন দেখতে ভালো লাখবে।

👉 ছোটখাটো জিনিসের মাধ্যমেই টেবিলের সৌন্দর্য্য বাড়িয়ে তুলতে পারেন। তাই সাধারণ টিস্যূ বক্স ব্যবহার না করে একটু নান্দনিক বক্স ব্যবহার করুন।

👉 টেবিল যদি বড় হয় তাহলে চাইলে, টেবিলের মাঝখানে তাজা ফুল সহ একটা ফুলদানি রেখে দিতে পারেন। অথবা মানানসই একটা শোপিসই নজর কাড়তে পারে অতিথিদের।

👉 বারো রকমের থালা বাসন ব্যবহার না করে , যেকোন এক ডিজাইনের থালা বাসন ব্যবহার করুন। আর অবশ্যই তা যেনো দেখতে একদম ঝকঝকে চকচকে হয় !

👉 খাবার যাতে গরম থাকে এজন্য চাইলে ঢাকনাসহ বাটি টেবিলে পরিবেশন করতে পারেন।

👉 ন্যাপকিন গুলোতে ভালো ঘ্রাণের একটু পারফিউম স্প্রে করে দিতে পারেন। এতে চারপাশে অন্যরকম একটা সুন্দর ঘ্রাণ পাবেন।

👉 খাবার টেবিলে অবশ্যই উজ্জল আলো ব্যবহার করুন।

👉 ইচ্ছে হলে দেয়ালে বিভিন্ন রঙের উজ্জল শোপিস ঝুলিয়ে দিতে পারেন। সৌন্দর্য্য বাড়বেই বৈকি !

এক কথায় টেবিল সাজাতে হবে নিজ রুচি ও টেবিলের আয়তনের উপর নির্ভর করে। পরিচ্ছন্নতা বিষয়টাকে সব থেকে বেশি প্রাধান্য দিতে হবে। আর অতিরিক্ত সাজ যাতে না হয়ে যায়, সে দিকটাও খেয়াল রাখুন নয়তো সৌন্দর্য্য নষ্ট হতে পারে।

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

মন্তব্য করুন