তেলাপোকার উপদ্রব থেকে মুক্ত থাকুন চিরতরে

তেলাপোকার উপদ্রব থেকে মুক্ত থাকুন চিরতরে

তেলাপোকা খুবই বিরক্তিকর এক পতঙ্গ। আপনার সারাঘরময় ঘুরে বেড়ায় আর তার পায়ে করে রোগ-জীবাণু ছড়ায়। এছাড়া কাগজ, সখের কাপড়ও কেটে ফেলে এই তেলাপোকা। তেলাপোকার পানি খুব প্রিয়, সে প্রায় ১ মাস খাবার না খেয়ে থাকতে পারে কিন্তু পানি ছাড়া ১ সপ্তাহ বাঁচা ও তার জন্য অসম্ভব। তেলাপোকার উপদ্রব বাড়ে মূলত ঘর-বিশেষ করে রান্নাঘর নোংরা থাকলে। আজকে আমাদের আয়োজন এই বিশ্রী সমস্যা থেকে কিভাবে সহজে আপনার ঘরবাড়ীকে মুক্ত রাখতে পারবেন।

তেলাপোকার উপদ্রব থেকে মুক্ত থাকুন চিরতরে

আমরা আপনাদেরকে ৩টি ভিন্ন ভিন্ন কিন্তু সহজ উপায় বলে দিচ্ছি। আপনি আপনার সুবিধামত পদ্ধতি ব্যাবহার করবেন।

পদ্ধতি ১ঃ বরিক পাউডার ও চিনি

বরিক পাউডার ও চিনির গুঁড়ার মিস্রন খুব কাজে দেয় বিরক্তিকর তেলাপোকা দূর করতে। এজন্য প্রথমে চিনি গুঁড়া করে পাউডার করে নিন। এবার ২ ভাগ পাউডার চিনি ও ১ ভাগ বরিক পাউডার মিশিয়ে যেখানে তেলাপোকার উপদ্রব বেশি সেসব স্থানে ছড়িয়ে রাখুন।

পদ্ধতি ২ঃ শসা 

শসা আমাদের খুব পছন্দের হলেও তেলাপোকা এটার গন্ধ মোটেই সহ্য করতে পারে না। শসা পাতলা স্লাইস করে নিন। এবারে কাটা টুকরোগুলো তেলাপোকার আসা -যাওয়ার জায়গায় রেখে দিন। তেলাপোকা কম হবে আর আগে থেকে থাকলে পালিয়ে যাবে। অথবা শসা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন সামান্য পানি দিয়ে। এরপর ঘরের মেঝে মোছার পানির সাথে এই শসার রস মিশিয়ে ঘর মুছে নিন। এতে তেলাপোকা যেমন কমবে সাথে ঘরে একটা সুন্দর গন্ধ আসবে ঘর থেকে।

পদ্ধতি ৩ঃ পুদিনা পাতা

পুদিনা পাতার গন্ধও তেলাপোকা সহ্য করতে পারে না। এক মুঠ পুদিনা পাতা হাত দিয়ে ডলে বা পাটায় ছেঁচে নিন। এবার ২ গ্লাস গরম পানিতে ৫/১০ মিনিটের জন্য ছেঁচা পুদিনা পাতা ভিজিয়ে রাখুন। পানিটা ছেঁকে নিন। একটা স্প্রে বোতলে পানিটা ভরে নিন। রান্নাঘরে, সিঙ্কের পাশে, ঘরের কোনায় কোনায় স্প্রে করে দিন। তেলাপোকা কমে যাবে।

এভাবে নিয়মিত ব্যাবহার করলে তেলাপোকার উপদ্রব থেকে মুক্ত থাকবে আপনার ঘর চিরতরে।

তেলাপোকার উপদ্রব থেকে বাঁচতে ঘরের কিছু সাধারন পরিছন্নতা টিপস

  • রান্নাঘর সব সময় পরিস্কার রাখুন।
  • ময়লা ফেলার ঝুড়ি পরিস্কার ও শুকনো রাখুন।
  • রান্নাঘরের সিঙ্ক ও বাথরুমের পানি নিষ্কাশনের জায়গা পরিস্কার রাখুন, মাঝে মাঝে গরম পানি ঢেলে দিন।
  • পানির পাইপে কোন লিক থাকলে সারিয়ে নিন।
  • রান্নাঘর চিটচিটে হতে দিবেন না।
  • ঘরে কোথাও খাবার পড়লে ভালভাবে মুছে নিন।

 

মন্তব্যসমূহ

নিজের পরিচয় দিতে গেলে সবার আগে বলব, আমি একজন মা। তার সাথে একজন হোমমেকার, শিক্ষক ও ব্লগার। লিখতে ভালবাসি। তার চাইতে ভালবাসি পড়তে, জানতে। এইতো! ছোট এক জীবনে অনেক কিছু, আলহামদুলিল্লাহ!!

মন্তব্য করুন