ভালো থাকুন , ভালো রাখুন।

জীবন একটাই, চারপাশের যান্ত্রিকতায় দিন শেষে ভালো থাকা হয়ে উঠে না। ফলাফলে মনের অযত্ন, শরীরের অযত্ন, সব মিলিয়ে যেনো মানসিক ক্লান্তি ভর করে সত্বায়। আজ নিজের জন্য , অন্যেকে ভালো রাখার জন্য পাঁচমিশালী কিছু টিপস রইলো আপনাদের জন্য।

১: সকালের শুরু ভালো তো দিন ভালো , এমন কথাই প্রচলিত। তাই চনমনে একটা দিন শুরু করতে প্রতিদিন ভোর বেলা অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন।

২: দিনে কম হলেও অন্তত আট গ্লাস পানি পান করার চেষ্টা করুন। পানি কম খেলে শরীরের অবসাদ কখনোই কাটবে না।

 

৩: সকালের নাস্তা হোক খুব ভারী , দুপুরের খাবারটা হোক মাঝারি আর রাতের খাবার টা খান একদম হালকা।

 

 

৪: গাছে বেড়ে উঠে এমন খাবার বেশি করে খান , যেমন : সবুজ শাক সবজী ইত্যাদি । দোকানের খাবার একদম কম খাওয়ার চেষ্টা করুন। যেমন : চিপস সমুচা , পিজ্জা ইত্যাদি।

৫: লবন ও চিনি একরকম দেখতে এই দুটি জিনিস সমানভাবে এড়িয়ে চলুন।

৬: প্রচুর পরিমাণে বই পড়ার অভ্যাস গড়ুন। বই হচ্ছে মনে খোরাক।

 

৭: প্রতিদিন অন্তত দশ মিনিট নিরবতার মাঝে এবং একান্তে নিজের মাঝে থাকার চেষ্টা করুন যাকে বলে ” Time for thyself”

 

৮: প্রতিদিন আট ঘন্টা ঘুম নিশ্চিত করার চেষ্টা করুন। ঘুম মানব জীবনের সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ  বিষয় গুলোর মধ্যে একটি। আট ঘন্টার কম ঘুন হলে আপনি শারীরিকভাবে ক্লান্ত অনূভব করবেন। রাতে তাড়াতাড়ি  ঘুমোতে চেষ্টা করুন।

এছাড়াও খেয়াল রাখুন:

–প্রতিদিন কম হলেও ১০-২০ মিনিটের মতো হাটতে চেষ্টা করুন।

 

— কখনোই অন্য কারো সাথে নিজের তুলনা করবেন না। মনে রাখবেন আপনি নিজের মতো করেই সেরা!

 

—বিশ্বাস রাখবেন যে,  জীবনের কোন কষ্ট চিরস্থায়ী নয়। সময় সব ঠিক করে দেয়। তাই কখনো হতাশ হবেন না।

 

— গসিপিং বা পরনিন্দা এই ব্যাপারটা একদম এড়িয়ে চলুন। অন্যের দোষ খুঁজতে এক মিনিটও ব্যয় করবেন না।

 

— বিলাসিতা বেশ ভালো জিনিস নয়, নিজের যা আছে তা নিয়ে সন্তুষ্ট থাকুন। যে জিনিসের দরকার নেই তা কিনে টাকা অপচয় করবেন না।

 

—  কাউকে ঘৃনা করার মতো অঢেল সময় এই জীবনে নেই। তাই সবাইকে ভালোবাসার চেষ্টা করুন। কারো প্রতি মনে রাগ ক্ষোভ জমা রাখবেন না।

 

–অতীতকে ভুলে সব সময় বর্তমানটায় বাচঁতে চেষ্টা করুন। অতীতে বেঁচে থেকে কোন লাভ নেই তা সবসময় মনে রাখবেন।

 

—  সব সময় নিজের ভালো থাকার দায়িত্ব নিজেই পালন করুন। নিজের ভালো থাকাটা অনেকটাই নিজের উপর নির্ভর করে।

 

— অন্যরা আপনাকে কি নিয়ে ভাবেন, তা আপনি একটুক ও ভাববেন না। সবাই কে নিজের মতো করে ছেড়ে দিন। আপনি নিজেকে সেরা করে তুলতে নিজের সেরাটা ঢেলে দিন।

 

—প্রিয়জনদের প্রচুর পরিমানে সময় দিন। এই একটা জায়গায় আপনি যদি সব সময়টুকুও ব্যয় করেন,ভরসা রাখুন ক্ষতির শিকার হবেন না।

হ্যা, জীবন কখনো কঠিন, কখনো সহজ। তবে সবসময় নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করবেন। কারণ এই জীবনটাই সেরা উপহার। হাসিখুশি থাকুন। ভালো থাকুন সবসময়।

 

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

মন্তব্য করুন