নারিকেলের দুধের হেয়ার স্ট্রেইটনিং মাস্ক

নারিকেলের দুধের হেয়ার স্ট্রেইটনিং মাস্ক

ঝলমলে ও সিল্কি চুল কে না চায়! কিন্তু অনেকেই এজন্য পার্লারের দারস্ত হতে সাহস করে উঠতে পারেনা। তাই আজ দিবো প্রাকৃতিক ভাবে চুল স্ট্রেইট করার পদ্ধতি। এটা হলো কোকোনাট মিল্ক হেয়ার স্ট্রেইটনিং মাস্ক। যারা প্রাকৃতিক ভাবে চুল সোজা করতে চান তাদের জন্য এই মাস্কটি খুবই উপকারী হবে। সপ্তাহে ২ দিন করে মাসে ৮ দিন এই মাস্কটি চুলে ব্যবহার করতে হবে। ২ মাস নিয়মিত ব্যবহার করবেন। এটা কোন কেমিকেল বেসড মাস্ক না যে লাগালে সাথে সাথেই চুল স্ট্রেইট হয়ে যাবে। এটা প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি হেয়ার স্ট্রেইটনিং মাস্ক। কিছুটা সময় তো লাগবেই।

কথা না বারিয়ে চলুন জেনে নেওয়া যাক মাস্কটি তৈরিতে কি কি উপকরণ লাগছে।

মাস্ক তৈরির উপকরণঃ

★১ কাপ নারিকেলের দুধ
★৫-৬ টেবিল-চামচ লেবুর রস
★২ টেবিল-চামচ অলিভ অয়েল
★৩ টেবিল-চামচ কর্নফ্লাওয়ার।

মাস্ক প্রস্তুত প্রণালীঃ

১/২ কাপ কোড়ানো নারিকেল১ কাপ পরিমাণ গরম পানিতে এক থেকে দের ঘন্টা ডুবিয়ে রাখুন। পানিগুলি দুধের মতোহয়ে গেলেই নাররিকেল গুলো ছেকে দুধের মতো পানিগুলো থেকে আলাদা করেফেলতে হবে। এই দুধের মতো সাদা পানিগুলোই হল নারিকেলের দুধ।

এবার মাস্ক তৈরি করার পালা→

নারিকেলের দুধ, অলিভ অয়েল এবং লেবুর রস খুব ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর অল্প অল্পকরে কর্নফ্লাওয়ার ওই মিশ্রণের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। খুব ভালোভাবে মেশাতে হবে। লক্ষ রাখতে হবে যেন কোনো জমাট বাধা বা দানা দানা থাকে।এখন মিশ্রণটি অল্প আঁচে চুলায় দিয়ে গরম করতে হবে। এসময় প্রতিনিয়ত মিশ্রণটি নাড়তে হবে। কিছুক্ষণ পর মিশ্রণটি ঘন ক্রিমের মতো হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিতে হবে। মিশ্রণটি ঠাণ্ডা হয়ে গেলে এয়ারটাইট বোতলে বা জারে রেখে বোতলে সংরক্ষণ করুন।

★★★তবে আমি মনে করি মাস্কটি সরাসরি আগুনের আচে না দিয়ে আপেলের নাইট ক্রিম বানানোর মতো করে চুলার উপর ফুটন্ত পানির উপর দিয়ে করাই ভাল।এতে উপাদান গুলোর গুনমান ঠিক থাকে।

যাইহোক, আপনারা আপনাদের ইচ্ছামত যে কোন একটি পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। গোসলের আগে মাস্কটি চুলে লাগাবেন। কিছুটা শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে।
একটানা ২ মাস ব্যবহার করতে হবে। হ্যা, কিছুটা সময়সাপেক্ষ তো বটেই তবে কোন পার্শপ্রতিক্রিয়া নেই।প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি এই মাস্ক ব্যবহারে আপনার চুল হয়ে উঠবে প্রাকৃতিক ভাবে স্ট্রেইট। যার ফলাফল দীর্ঘস্থায়ী।

আশাকরি আর্টিকেলটি সবার ভাল লেগেছে। নিজেরা চেষ্টা করবেন আর জানাতে ভূলবেন না কিরকম ফলাফল এলো।

মন্তব্যসমূহ

হ্যান্ডিক্রাফটের কাজের প্রতি অগাধ ভালবাসা।প্রচুর ক্রাফটিং করি। আর বিউটি নিয়েও একটু ঘাটাঘাটি করি তাই ক্রাফট এন্ড বিউটি নিয়েই টুকটাক লিখার চেষ্টা করি।

মন্তব্য করুন