ঘরে বসে পিজ্জা সস

ঘরে বসে পিজ্জা সস

ঘরে বসে সহজে সব কিছু কে না করতে চায়। বাইরের আনহাইজেনিক পরিবেশে তৈরি যেকোনো খাবার এর থেকে অবশ্যই ঘরে তৈরি যেকোনো খাবার ভাল। ঘরে বসে নিজ হাতে তৈরি খাবার  সুস্বাদু আবার অনেক হেলদি। সাস্থের জন্য ঘরে বানানো খাবার এর বিকল্প নেই। রান্না ঘরে পাওয়া সহজ কিছু উপাদান দিয়ে সহজে অনেক হেলদি খাবার বানানো যায়। বাইরের আনহাইজেনিক পরিবেশে তৈরি যেকোনো খাবার সাস্থের জন্য অনেক ক্ষতিকর হোকনা তা যতই সুস্বাদু। কিন্তু মাঝে মাঝে এই সুস্বাদু খাবার খাওয়ার জন্য অনেক ক্রেভিং হয়। সুস্বাদু খাবার গুলার মধ্যে একটি খাবার হল পিজ্জা। আর এই পিজ্জা বানানোর জন্য প্রধান উপাদান হল পিজ্জা সস।আজকাল সব সুপারমার্কেটে পিজ্জা সস পাওয়া যায়। কিন্তু বাসায় এনে কৌটা খোলার পর দেখা যায় কয়েকদিনে ফাঙ্গাস পরে যায়। খুব কম খরচে পিজ্জা সস বানান যায়। কি অবাক হলেন তো? জি, ঘরে বসে খুব সহজেই রেস্টুরেন্ট কোয়ালিটি পিজ্জা সস বানানো যায়। আজকে আমরা একটি সহজ পিজ্জা সস এর রেসিপি দেখব।

উপকরনঃ

১- টমেটো চারটা।

২- অলিভ অয়েল দুই টেবিল চামুচ।

৩- পেঁয়াজ কুচি দুই টেবিল চামুচ।

৪- রসুন কুচি দুই টেবিল চামুচ।

৫- মরিচের গুরা হাফ চা চামুচ।

৬- সাদা গোলমরিচ এর গুরা হাফ চা চামুচ।

৭- লবন হাফ চা চামুচ।

৮- অরিগান হাফ চা চামুচ।

৯- বেসিল গুরা হাফ চা চামুচ।

১০- এক টেবিল চামুচ টমেটো কেচাপ।

১১- সাদা ভিনিগার (অপশনাল)- হাফ চা চামুচ।

প্রলানিঃ

প্রথমে একটি প্যানে টমেটো নিয়ে তার উপর ছুরি দিয়ে হাল্কা ছিদ্র করে নিতে হবে। এতে করে টমেটো সিদ্ধ হয়ে গেলে তার খোসা ছারাতে সহজ হবে। পাঁচ থেকে আট মিনিটে টমেটো সিদ্ধ হয়ে যাবে। তারপর টমাটোর খোসা ছাড়িয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। ব্লেন্ড করার সময় হালকা পানি দেয়া যাবে যদি প্রয়োজন পরে। এরপর একটি প্যানে অলিভ অয়েল নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন রেগুলার অলিভ অয়েল হয় এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল না। কেননা এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল এর গুনগত মান টা বজায় থাকে না। তারপর পেঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি দিয়ে হাল্কা ভাজতে হবে। ভাজা হয়ে গেলে তার মধ্যে মরিচ এবং সাদা গোলমরিচ দিতে হবে। এরপর এর মধ্যে লবন দিয়ে হাল্কা নাড়তে হবে। তারপর এর মধ্যে ব্লেন্ড করা টমেটো দিয়ে দিতে হবে। এরপর এর মধ্যে অরিগান দিতে হবে। অরিগান যেকোনো সুপারমার্কেটে পাওয়া যায়। খুবই সহজলভ্য। আপনারা চাইলে অরিগানর পাতাটা ব্যাবহার করতে পারেন। যদি ফ্রেশ পাতা পান তাহলে সেইটা ব্যাবহার করবেন অথবা বাজারে পাওয়া যায় গুরা টাও দিতে পারেন। বেসিল দিতে হবে এরপর। বেসিল অপশনাল তবে অরিগান অবশ্যই দিতে হবে। কেননা এতে পিজ্জা এর অথেনটিক ফ্লেভার টা আসে। এরপর এক টেবিল চামুচ টমেটো কেচাপ দিয়ে নেড়েচেড়ে ঢাকনা দিয়ে দিতে হবে। আট থেকে নয় মিনিট পর দেখা যাবে টমেটো এর রঙএর পরিবর্তন হয়েছে এবং সস টা প্রায় হয়ে গিয়েছে। এরপর এর মধ্যে সাদা ভিনিগার দেয়া লাগবে। সাদা ভিনিগার প্রিজারভেটিভ হিসেবে কাজ করে। সাদা ভিনিগার দেয়ার ফলে এই সসটি বিশ থেকে পঁচিশ দিন ব্যাবহার করা যাবে। আর সাদা ভিনিগার না দিলে চার থেকে পাচ দিন। এরপর কিছুক্ষণ রেখে নামিয়ে ফেলতে হবে। হয়ে গেল খুব সহজে ঘরে বসে তৈরি রেস্টুরেন্ট কোয়ালিটির পিজ্জা সস। খুব সহজে বানিয়ে পিজ্জা বানানোর সময় টপিং দেয়ার আগে ব্যাবহার করা যাবে। আবার ইচ্ছা করলে যেকোনো ফ্রাইস, পিজ্জা, বার্গার, তান্দুরি ইত্যাদি সুস্বাদু খাবার এর সাথেও সারভ করা যাবে।

 

 

মন্তব্যসমূহ

আমি স্টুডেন্ট। পড়াশুনার পাশাপাশি টুকটাক লিখতে ভালবাসি।

মন্তব্য করুন