মেহদী সন্ধ্যায় থালার বাহার

ডিসেম্বর থেকে মার্চ বাংলাদেশে এই তিন মাস হচ্ছে বিয়ের সিজন। বিয়ে,  বাঙালীদের মাঝে এই ব্যাপারটা নিয়ে থাকে তুমুল আগ্রহ। অনুষ্ঠানের ও থাকে না অভাব। শত ঝামেলার মাঝেও সব কিছু হওয়া চাই সেরার চেয়ে ও সেরা।

আসলেই তো, বিয়ে ব্যাপারটা জীবনে একবারই আসে তাই কনে পক্ষ বা বড় পক্ষ দু পক্ষের মাঝেই এই নিয়ে থাকে শত প্ল্যান ও আগ্রহ। তবে তাড়াহুড়োর মাঝে সব কিছুই যেনো হয়ে যায় এলোমেলো, এর মধ্যে দ্বিধা সৃষ্টি হয় মেহদির থালা সাজানো নিয়ে।  কি কি দিয়ে আরো আকর্ষনীয় করে তোলা যায় মেহদী সন্ধ্যা তাই নিয়ে সবার মাঝে থাকে চিন্তা।

সত্যি কথা বলতে কি, মেহদী সন্ধ্যায়, থালা বা ডালাই যোগ করে বাড়তি মাত্রা। ভিন্নরকম সব থালাই পরিপূর্ণ করে তুলতে পারে আপনার মেহদী সন্ধ্যাকে এমনই কিছু থালা আইডিয়া ছবি সহ শেয়ার করবো আজ!

তো দেরি না করে বিয়ের এই সিজনে দেখে নিন অল্প কিছু থালা ডেকোরেশন আইডিয়াস!

মেহদী সন্ধ্যায় কেক বা পেস্ট্রি থালা১: কেক বা পেস্ট্রি থালা:

মেহদী সন্ধ্যায় কেক তো অবশ্যই থাকবে। এক্ষেত্রে আপনি আগে থেকেই কেক অর্ডার করে রাখলে ভালো।

তবে যারা নিজ হাতে কেক বানিয়ে অভ্যস্থ তারা চাইলে থালার জন্য কেক রেডি করে রাখতে পারেন।

আস্ত কেক ছাড়াও কেক স্লাইস দিয়ে তৈরী করে নিতে পারেন অসাধারণ সব থালা। তবে ঝামেলায় যেতে না চাইলে, ভরসা করতে পারেন বেকারি শপের রেডি পেস্ট্রির উপর।

রেডি পেস্ট্রি, চকলেট পুডিং বা কেক স্লাইস দিয়ে সাজিয়ে নিন সুন্দর একটি থালা। ক্রিমি মাফিন কেক ও কিন্তু খুব মানিয়ে যাবে মেহদী সন্ধ্যায়।

২: ফ্রুট স্টিকস /ফ্রুট থালা :

মেহদী সন্ধ্যায় ফ্রুট স্টিকস /ফ্রুট থালাফ্রুটসের থালা ছাড়া মেহদী সন্ধ্যা অনেকটাই পানসে।

কাঠের স্টিকে আনারস স্লাইস, আস্ত স্ট্রবেরী, আঙ্গুর ইত্যাদি একটার পর একটা গেঁতে কয়েকটি স্টিক তৈরী করতে পারেন।

এই স্টিক গুলো দিয়েই খুব সহজে দারুণ আরেকটি থালা হয়ে যাবে।

অথবা ফ্রুট স্লাইস রাউন্ড শেপে থালায় ছড়িয়ে রেডি করে নিতে পারেন আরেকটি থালা। এক্ষেত্রে ফ্রুটস গুলো যত বেশি কালারফুল হবে থালা দেখতে তত বেশি ভালো লাগবে।

হ্যা, একটা ব্যাপার খেয়াল রাখবেন, ফ্রুটসগুলো কাটার সময় শেপ যেনো নষ্ট না হয়। আর কালচে ভাব যাতে না আসে এজন্য ফ্রুটস গুলো লবন পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।

৩: ক্যান্ডেল লাইটস:

মেহদী সন্ধ্যায় ক্যান্ডেল লাইটসমেহদী স্টেজ বা টেবিলের সৌন্দর্য্য ফুঁটিয়ে তুলতে ব্যবহার করতে পারেন মোমবাতি বা ক্যান্ডল থালা।

যারা ভালো আর্ট করতে জানের তারা গ্লিটার দিয়ে কয়েকটি মোমবাতির উপর নিখুঁত নকশা এঁকে নিন।

আবার মোমবাতি গুলো যেখানে যেভাবেই জ্বালিয়ে রাখুন।দেখতে খুব ভালো লাগবে। মোমবাতি ডেকোরেশন করার সময় একটু বড় ও কালারফুল মোমবাতি কে প্রাধান্য দিন।

অনেকে অতিথি দের রঙিন প্লেটে খাবার পরিবেশন করে থাকেন। মেহদীর এই সময়টাতে প্লেটেও একটু নকশার ছোঁয়া বাড়তি মাত্রা যোগ করবে।

অথবা প্লেট গুলোই ব্যবহার করতে পারেন থালার বিপরীতে। এসব প্লেটে যা রাখা হবে তাই দেখতে ভালো লাগবে।

মেহদী সন্ধ্যায় ত্রিকোণ থালা৪: ত্রিকোণ থালা :

আপনি নিশ্চয় ভাবছেন এটা আবার কি! আমাদের দেশে এই থালা খুব একটা চোখে না পড়লেও বাইরের এশিয়া দেশ গুলোতে এটি বেশ জনপ্রিয়।

ব্যাপারটা খুব সহজ, র‍্যাপিং প্যাপার ত্রিকোণ করে নিন। এরপর এর ভেতর চানাচুর, পপকর্ণ ইত্যাদি ভরে নিন। এবার স্কচটেপ দিয়ে কোণ গুলোর চারপাশ আটকে দিন ব্যাস। এভাবে একসাথে অনেকগুলো কোণ রেডি করে থালা সাজিয়ে নিন।

বাচ্চাদের জন্য রেডি করতে চাইলে চানাচুর এর বদলে জেমস, বা যেকোন সুইটস ব্যবহার করতে পারেন।রঙিন কোণ দেখতে আরো বেশি ভালো লাগবে।

আপনি র‍্যাপিং পেপারের বদলে রঙিন ফয়েল পেপার ও ব্যবহার করতে পারেন।

মেহদী সন্ধ্যায় চকলেট এর থালা৫: চকলেট এর থালা :

ডার্ক চকলেট বা রাউন্ড চকলেট দিয়েও সাজিয়ে নিতে পারেন দারূণ সব থালা।

রাউন্ড শেপের চকলেট দিয়ে ফ্লাওয়ার বোকের আদলে থালা সাজিয়ে নিতে পারেন।

এজন্য আপনাকে খুব একটা এক্সপার্ট হতে হবে না।

ছবি দেখলেই আপনি অনেকটাই আয়ত্ত করে নিতে পারবেন।

অথবা চকলেট টাওয়ার তৈরী করে নিতে পারেন।

হলুদের ফটো বা টেবিলে এই জিনিস দেখতে এক কথায় চমৎকার লাগবে!

অথবা সিম্পলি চকলেট দিয়ে একটি থালা রেডি করে নিতে পারেন।

 

মেহদী সন্ধ্যায় মেহদীর থালা৬: মেহদীর থালা :

এটি সবথেকে গুরত্বপূর্ণ থালা। কেননা এই থালাতেই হলুদ, মেহদী ইত্যাদি গুরত্বপূর্ণ জিনিসগুলো ঠাই পায়।

যে থালাতে এগুলো রাখবেন সেইটাও যেনো একটু আকর্ষনীয় হয় তা খেয়াল রাখুন। ন্যাচারাল মেহদী ব্যবহার করতে চাইলে মাটির বাটিতে তা সাজিয়ে রেখে দিতে পারেন।

অথবা বাজারে এসবের জন্য আলাদা ছোট ছোট কাপড়ের বাটি ও কিনতে পাওয়া যায়। মেহদী ও হলুদের বাটি মাঝখানে রেখে এর চারপাশে গোলাপের পাতা ছড়িয়ে দিন ব্যাস, এতেই পূর্ণতা পাবে মেহদীরর থালাটি।

প্যাকেট জাত কোণ মেহদী  ব্যবহার করলে একটি ছোট্ট থালায় চার-পাঁচ প্যাকেট কোণ মেহদী সাজিয়ে রেখে দিন ব্যাস।

হলুদ লাগানোর জন্য আইসক্রমের কাঠিতে রঙ ও পাথর বসিয়ে ডেকোরেট করে ব্যবহার করতে পারেন।

মেহদী সন্ধ্যায় দই বা ফিরনী৭: দই বা ফিরনী :

ছোট ছোট মাটির বাটিগুলোতে ঘরে তৈরী দই বা ফিরনী অতিথিদের সার্ভ করতে পারেন। এটিও ভিন্ন মাত্রা যোগ করবে অতিথি আপ্যায়নে।

এর চেয়ে সামান্য ভিন্ন কিছু করতে চাইলে ঘরে নিজ হাতে বানিয়ে নিন, অসাধারন সব ডেজার্ট আইটেম। স্টিলের থালায় মাটির বাটিগুলো একটার পর একটা সাজিয়ে রেখে দিন এতে আলাদা করে বলার কিছু নেই।

ক্রিয়েটিভিটি আপনার হাতেই! আর চামচ হিসেবে কালারফুল আইসক্রিম কাঠি ফুঁটিয়ে তুলবে নান্দনিক।

মেহদী সন্ধ্যায় ফুচকা৮: ফুচকা :

আজকাল অনেকেই হলুদ সন্ধ্যায় ফুচকা বা পিঠাপুলির আয়োজন করে থাকেন। নিজের বাড়িতে অনুষ্ঠান, এই সময় আপনি নিজে ফুচকার ঝামেলায় না গেলেই ভালো।

স্ট্রিট ভ্যানে অনেকেই ফুচকা ফেরী করে থাকেন। তাদের সাথে আলোচনা করে নিতে পারেন। দিন শেষে তাদের প্রাপ্য সম্মানী তাকে বুঝিয়ে দিলেই চলবে।

এটিকে আপনি থালা আইডিয়ার মাঝে না ফেললেও পারেন।

৯: পানের থালা :মেহদী সন্ধ্যায় পানের থালা

হ্যা, পান সুপারি ছাড়া বিয়ে অনেকটাই অপূর্ণ! হলুদ, বিয়ে, ওয়ালিমা সব কিছুতেই এই থালা চাই ই চাই!

মেহদী সন্ধ্যায় ও পানের থালা হলে ভালো হয়। থালের সংখ্যা যত বেশি হবে ততই ভালোই। এক্ষত্রে সুপারি লাল বা পছন্দের যেকোন রঙে রাঙিয়ে নিতে পারেন।

পান ত্রিকোণ আকার করে সুপারি ভরে নিন। আর কালারফুল সুপারি বা অন্য যেকোন রঙিন মসলা উপরে ছড়িয়ে দিন।

ব্যস তৈরী আপনার পানের থালা!

 

১০: চুড়ির থালা :

মেহদী সন্ধ্যায় চুড়ির থালামেহদী সন্ধ্যা বা হলুদ সন্ধ্যায়য় যত বেশি ভিন্নতা রাখা যায় তত ভালো। চুড়ির একটা থালা সাজিয়ে রাখতে পারেন।

রঙিন সব চুড়ি থালে দেখতেই ভালো লাগবে। হোক তা গুছানো বা অগোছালো।  অতিথি হিসেবে আসা ছোট বাচ্চাদের উপহার হিসেবে এসব চুড়ি দিতে পারেন।

আর আপনার উৎসবের আকর্ষনও বাড়াবে চুড়ির থালা।

এছাড়াও বানাতে পারেন,

মোট কথা, মেহদি সন্ধ্যায় যত বেশি বৈচিত্র্য রাখতে পারবেন এর আবেদন ও ঠিক ততটুক ই থাকবে। এই অনুষ্ঠানে রঙের ছোঁয়া যত বেশি থাকবে ততই ভালো। রঙের ছোঁয়া বা বৈচিত্র্য ফুটে উঠুক কনের পোশাক থেকে শুরু করে হলুদের স্টেজ ও ডালায়।

ধরাবাঁধা কোন নিয়মও এখানে মানতে হবে না। যেমন খুশি তেমন সাজই হতে পারে মেহদীর জন্য পারফেক্ট। সাধ ও সাধ্য মিলিয়ে যতটুক সম্ভব ঠিক ততটুক দিয়েই জমিয়ে তুলুন মেহদী সন্ধ্যা।

তো ভালো থাকুন সবাই, সুস্ত থাকুন আর মেতে উঠুন উৎসবে। পোস্ট টি ভালো লাগলে অবশ্যই আমাদের জানান।এবং চটপটের সাথেই থাকুন।

 

মন্তব্যসমূহ

বর্তমানে শিক্ষার্থী এছাড়া আর কিছু করছি না। সিলেটে থাকি। লেখালেখি আমার পুরাতন শখ। আর কখনোই এই শখ বাদ দিতে চাই না। এছাড়া বলার মতো আর কিছু আপাতত খুঁজে পাচ্ছি না।

১ টি মন্তব্য
  1. Reply তৈলাক্ত চুলের যত্নে সেরা হেয়ার মাস্ক | চটপট - এসো নিজে করি মে ৭, ২০১৮ তারিখে ২:২৮ অপরাহ্ন

    […] কিন্তু নেহাত কম করতে হয় না! চটপটের এ আয়োজনে আমরা তৈলাক্ত চুলের জন্য […]

মন্তব্য করুন