রেস্টুরেন্ট স্টাইল পটেটো ওয়েজেস

রেস্টুরেন্ট স্টাইল পটেটো ওয়েজেস

পটেটো ওয়েজেস আমাদের খুবই প্রিয় খাবার। বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট এ আমরা পটেটো ওয়েজেস খেয়ে থাকি। যখনি আমরা সুস্বাদু কোন খাবার খেতে চাই আমরা রেস্টুরেন্ট এ যাই। কিন্তু ঘরে বসেই যদি রেস্টুরেন্ট কোয়ালিটি খাবার বানানো যায় তাহলে তা হবে স্বাস্থ্যকর এবং অনেক সাশ্রয়ী। কেননা এতে খরচ ও কম পরবে সাথে খাবার টিও স্বাস্থ্যকর হবে। কেননা বাইরের খাবার যথেষ্ট অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বানানো হয় যা আমাদের সাস্থের জন্য হুমকি স্বরূপ। বাসায় বানানো খাবার হাইজেনিক ভাবে বানানো হয় এবং তা সুস্বাদু হওয়ার সাথে সাথে সাস্থের জন্য ও অনেক ভাল। এইজন্য আসুন দেখে নেই ঘরে বসে রেস্টুরেন্ট স্টাইল পটেটো ওয়েজেস বানানোর রেসিপি। এইটি খুবই সহজ একটি রেসিপি এবং হাতের কাছে সব উপকরন দিয়েই বানানো যায়।

 রেস্টুরেন্ট স্টাইল পটেটো ওয়েজেস বানাতে যা যা লাগবেঃ

১- পাচ টি মাঝারি সাইজের আলু।

২- ঠাণ্ডা পানি।

৩- কয়েক টুকরা বরফ।

৪- লবন স্বাদ মত।

৫- চার টেবিল চামুচ কর্নফ্লাওয়ার।

৬- চার টেবিল চামুচ ময়দা।

৭- বেসিল এক চা চামুচ।

৮- আধা চা চামুচ চিলি ফ্লেক্স।

৯- মরিচের গুরা আধা চা চামুচ।

১০- রেগুলার তেল পরিমান মত।

রেস্টুরেন্ট স্টাইল পটেটো ওয়েজেস বানানোর পদ্ধতিঃ

প্রথমে পাঁচ টি মাঝারি সাইযের আলু নিয়ে তার খোসা গুলোকে ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর একটা একটা করে আলু কে লম্বা লম্বি করে মাঝখান থেকে অর্ধেক করে কেটে নিয়ে সেই টাকে আবার চার ভাগ করে নিতে হবে। এইবার একটা বাটিতে ফ্রিজ এর ঠাণ্ডা পানি নিতে হবে তার মধ্যে কয়েকটা বরফ এর টুকরা দিতে হবে যেন পানিটা আর ঠাণ্ডা হয়। এইবার কেটে নেয়া আলু গুলাকে পানিতে ডুবিয়ে দিতে হবে।ঠাণ্ডা পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে ১৫ মিনিট। এতে করে আলুর স্টার্চ টা বের হয়ে যাবে। ঠিক ১৫ মিনিট পরে এই পানি ফেলে দিয়ে নরমাল পানিতে আলু ডুবিয়ে রেখে দিতে হবে আর ৩ থেকে ৪ মিনিট। এবং এইভাবে ৩ থেকে ৪ বার পানি বদলে বদলে দিতে হবে। এখন একটি কড়াইতে পরিমান মত পানি নিতে হবে এবং লবন নিতে হবে আলু সিদ্ধ করার জন্য। আলু গুলাকে ঠিক ফিফটি পারসেন্ট এর মত সিদ্ধ করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন এর বেশি সিদ্ধ না হয় তাহলে ওয়েজেস গুলা ভাল হবে না। পাচ থেকে ছয় মিনিট হাই হিট এ সিদ্ধ করলেই যথেষ্ট এরপর আলু গুলা তোলার সময় কাটা চামুচ দিয়ে দেখে নিতে হবে যে আলু সিদ্ধ হয়েছে কিনা। কাটা চামুচ আলুর মদ্দে নিমেষে ঢুকে যাবে কিন্তু আলু দুই ভাগ হবে না। এরপর বাইরের কোটিং টা রেডি করতে হবে। এর জন্য কর্নফ্লাওয়ার ও ময়দা নিতে হবে। এরপর নিতে হবে বেসিল, শুকনা বেসিল পাতা, আপনাদের কাছে না থাকলে আপনারা মিক্সড ইতালিয়ান হারব দিতে পারেন অথবা না দিলেও চলবে। এরপর চিলি ফ্লেস্ক দিতে হবে এইটা না থাকলে গোলমরিচের গুরা ও দিতে পারেন। এরপর দিবেন মরিচের গুরা। এর পরিমান আপনারা ইচ্ছা মত বাড়াতে কমাতে পারেন। শুকনা উপকরন গুলা মিশিয়ে নেয়ার পর একটা গোলা তৈরি করে নিতে হবে। গোলাটা তুলনামুলক ভাবে ঘন হতে হবে। যেন আলু গুলা গোলাটার মধ্যে দিলে ব্যাটার টা  পুরো আলুতে লেগে থাকে।এই পর্যায়ে আপনারা আলু গুলাকে ফ্রজেন করতে পারেন এর জন্য একটি ট্রেতে আলু গুলা দুরুত্ত রেখে ছরিয়ে সেইটা ডিপ ফ্রিজ এ এক ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। তার পর একটা জিপ লক ব্যাগ এ রেখে ফ্রিজ এ এক মাস সংরক্ষণ করা যাবে। এরপর একটি কড়াইয়ে ডুবো তেলে আলু গুলাকে দিয়ে আস্তে আস্তে সময় নিয়ে ভাজতে হবে, এর ফলে আলু গুলা সিদ্ধ হবে এবং বাইরের লেয়ার টা সুন্দর ও ক্রিস্পি হবে। ভাজা হয়ে গেলে টমাটো সস এর সাথে পরিবেশন করুন গরম গরম পটেটো ওয়েজেস।

 

 

 

মন্তব্যসমূহ

আমি স্টুডেন্ট। পড়াশুনার পাশাপাশি টুকটাক লিখতে ভালবাসি।

মন্তব্য করুন