নষ্ট বাল্ব

ঘরের সৌন্দর্যে নষ্ট বাল্বের পাঁচ ব্যবহার

ঘরের সৌন্দর্যে নষ্ট বাল্বের পাঁচ ব্যবহার।বাল্ব নষ্ট হয়ে গেলে বা ফিউস হয়ে গেলে আমরা তা ফেলে দেই।এতে পরিবেশ নোংরা করা ছাড়া তেমন কিছু হয় না। কিন্তু কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করে আমরা এই নষ্ট বাল্বকে পুনঃব্যবহার যোগ্য করে তুলতে পারি।

তো এই কাজের জন্য আমাদের একটি কাজ সবসময় শুরুতে করার প্রোয়জন পরবে।
আর এই কাজটি হলো বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভেতরের সবকিছু পরিষ্কার করা। শুরুতেই আমরা এই ব্যপারে যেনে নিব।এই কাজটি খুবই সাবধানতার সাহায্যে করতে হবে।কারন একটু সাত পাঁচ হলে পুরো বালল্বটাই ব্যবহারের অনুপযুক্ত হয়ে যাবে।

প্রাথমিক উপকরন :
আকটি প্লাস,স্ক্রু ড্রাইভার বা কাঠি,পানি।

প্রথমে প্লাস ব্যবহার করে পিছনের কালো অংশে ছিদ্র করার চেষ্টা করুন।

নষ্ট বাল্ব
এরপর স্ক্রুড্রাইভার বা কাঠি দিয়ে ভিতরের সবকিছু বের করে আনুন।এরপর পানি দিয়ে ভিতরের অংশ ভালো করে ধুয়ে নিন।

নষ্ট বাল্ব

এবার দেখা যাক এই বাল্ব দিয়ে আমরা কি কি তৈরি করতে পারবো –

মিনি গার্ডেন

ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতে বাল্ব দিয়ে চমৎকার মিনি গার্ডেন বানানো যায়।সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য অনেকগুলো মিনি গার্ডেন বানিয়ে একসাথে বারান্দায় ঝুলিয়ে রাখতে পারেন।

প্রথমে কিছু উপকরন সংগ্রহ করে নিন :
একটি বাল্ব,কিছু মাটি,ছোট পাথরের টুকরা,সবুজ মস বা ঘাসজাতীয় উদ্ভিদ,একটি সিরিঞ্জ।

বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিন।বাল্বটি আস্বচ্ছ থাকলে লবন পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।কিছু উর্বর মাটি সংগ্রহ করুন।এরপর বাল্বের তিন ভাগের এক ভাগ আংশ মাটি দিয়ে পূরন করুন।বল্বের ছিদ্র যেহেতু ছোট থাকবে তাই চোঙা ব্যবহার করে মাটি পূরন করতে পারেন।
এখন মস বা ঘাস জাতীয় উদ্ভিদটি মাটির উপর হালকা করে বাসিয়ে দিন।এরপর ছোট ছোট পাথর গুলো মাটির ওপরে ছড়িয়ে দিন।সিরিঞ্জের সাহায্যে মাটিতে কিছু পরিমানে পানি দিন। আপনার মিনি গার্ডেন তৈরি।কিছুদিন এভাবে রেখে দিলে ঘাস গুলো বড় হবে।এতে সৌন্দর্য আরও বৃদ্ধি পাবে।নিচের ছবিটি দেখুন –

নষ্ট বাল্ব

একুরিয়াম

একুরিয়াম আমাদের সবারই পছন্দ।কে না চায় তার বাসায় সুন্দর একটা একুরিয়াম থাকুক।কিন্তু একুরিয়াম কেনা থেকে শুরু করে ঠিকঠাক ভাবে সেট করতে মোটামুটি ভালো খরচ হয়ে যায়।কিন্তু আমরা যদি বিনা খরচে সুন্দর একটা মিনি একুরিয়াম বানিয়ে ফেলতে পারি তাহলে ব্যপারটা খারাপ হয় না।হ্যা,আপনি ঠিক ধরেছেন এবার ফিউজ বাল্ব ব্যবহার করে একটি আকর্ষণীয় একুরিয়াম বানিয়ে ফেলতে পারবেন।

প্রথমে কিছু উপকরন সংগ্রহ করে নিন।
একটি বাল্ব,গাম বা গ্লু, প্লাস্টিক উদ্ভিদ, গ্লিসারিন,কালারফুল প্লাস্টিক টুকরা।

এখন বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিন।বাল্বটি আস্বচ্ছ থাকলে লবন পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।এরপর বাল্বের তিন ভাগের দুই ভাগ অংশ পানি দিয়ে পূরন করুন।সাথে কিছু গ্লিসারিন যুক্ত করুন।এর মধ্যে ছোট ছোট প্লাস্টিক টুকরা দিন।এরপর প্লাস্টিকের উদ্ভিদটি দিয়ে পিছনের ছিদ্রটি গ্লু দিয়ে ভালো করে লাগিয়ে দিন।
প্লাস্টিক উদ্ভিদের পরিবর্তে সাধারন প্রাকৃতিক উদ্ভিদও ব্যবহার করতে পারেন।তবে সে ক্ষেত্রে কিছুদিন পর উদ্ভিদ নষ্ট হয়ে যাবে।তাই দীর্ঘস্থায়ী একুরিয়ামের জন্য প্লাস্টিক উদ্ভিদই ভালো হবে। ব্যাস খুব সহজেই হয়ে গেল আপনার ছোট্ট সুন্দর একুরিয়াম।

নষ্ট বাল্ব

পেপার ওয়েট

বাল্ব দিয়ে এবার ভিন্ন ধরনের কিছু বানানোর চেষ্টা করা যাক।কেমন হয় যদি একটা পুরানো নষ্ট বাল্ব দিয়ে কালারফুল পেপার ওয়েট বানিয়ে ফেলা যায়।
এই পেপার ওয়েট বানাতে খুব বেশি উপকরনেরও প্রোয়জন হবে না।তো চলুন দেখে নেই কি কি উপকরন লাগছে আমাদের এই পেপার ওয়েট বানাতে

উপকরন : একটি বাল্ব,কিছু প্লাস্টিক বা বলপেন,একটি ল্যাম্প

বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিন।প্লাস্টিকের টুকরা গুলো বাল্বের ভিতরে রাখুন।এখন একটি ল্যাম্বের সাহায্যে নিচ থেকে হালকা তাপ দিতে থাকুন।তবে খেয়াল রাখবেন তাপ খুব বেশি যেন না হয়ে যায়।তাপের পরিমান বেশি হয়ে গেলে বাল্ব ফেটে জাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
কালারফুল পেপারওয়েট পেতে বিভিন্ন কালারের প্লাস্টিক টুকরা ব্যবহার করতে পারেন।কিছুক্ষন তাপ দেয়া হয়ে গেলে যখন সম্পূর্ণ প্লাস্টিক গলে যাবে তখন তাপ দেয়া বন্ধ করুন।এখন ঠান্ডা হয়ার জন্য কিছুক্ষন রেখে দিন।ঠান্ডা হয়ে গেলে বাল্বটি ফাটিয়ে ফেলুন।ফাটানোর পর আপনি পেয়ে যাবেন কালারফুল একটি পেপারওয়েট।

ক্যান্ডেল লাইট

এতদিন তো সবাই বিদ্যুতের মাধ্যমে বাল্ব জ্বালিয়েছেন।এখন থেকে বাল্ব নষ্ট হয়ে গেলেও তা মোমবাতির মতো আলো দিবে তাহলে এবার মোমবাতির মতো বাল্ব জ্বালিয়ে দেখুন।

প্রথমে কিছু উপকরন সংগ্রহ করে নিন।
একটি বাল্ব,তেল,একটি সুতা

বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিন।এখন তেল দিয়ে অর্ধেক পরিমানে বাল্বটি পূরন করুন।সুতাটি সম্পুর্ন তেলে ভিজিয়ে নিন।এরপর সুতার এক প্রান্ত বাল্বেরর সিদ্র দিয়ে ঢুকিয়ে দিন।খেয়াল রাখবেন যেন এক প্রান্ত তেলের ভিতর ডুবে থাকে এবং বাইরের প্রান্তে কিছুটা পরিমানে সুতা বের হয়ে থাকে।তো এবার লাইটার দিয়ে জ্বলিয়ে দেখুন আপনার বানানো ক্যান্ডেল লাইট।নিচের ছবিটি খেয়াল করুন

নষ্ট বাল্ব

ফুল দানি বা লবন দানি

ফুল ঘরের শোভা বর্ধন করে।সেই ফুলের সাথে যদি সুন্দর একটি ফুলদানি থাকে তাহলে ঘরের শোভা আরো বর্ধিত হয়।ফুলদানি বানাতে প্রথমে আপনাকে বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিতে হবে।তারপর এর মধ্যে পানি ভরে নিতে হবে।এবার এর মধ্যে ফুল রাখতে পারবেন ঠিক যেন ফুল দানির মতো।নিচের ছবিটি দেখুন।

নষ্ট বাল্ব

এবার আসি লবন দানির কথায়।একটি বোতলের ছিপি সংগ্রহ করুন।এতে তিন চারটা ছিদ্র করুন।এরপর আপনাকে বাল্বের পিছনের দিকে ছিদ্র করে ভিতরের সব কিছু বের করে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

নষ্ট বাল্ব

বাল্বের মধ্যে লবন রাখুন।ছিদ্র যুক্ত ছিপিটি বাল্বের ছিদ্রপথে গ্লু দিয়ে লাগিয়ে দিন।ব্যাস আপনার লবন দানি তৈরি।

মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন