মজাদার লুচি আলুর দম রেসিপি

গরম গরম লুচি খেতে কার না ভালো লাগে?  এর সঙ্গে যদি থাকে মজাদার আলুর দম তাহলে তো কথাই নেই! লুচি আলুর দম বাঙালির প্রিয় খাবার। এর নাম শুনলেই জিভে জল চলে আসে ভোজন রসিকদের।

লুচিকে আমরা সাধারণত চিনি পুরি হিসেবে। কিন্তু পুরি আর লুচির মধ্যে সামান্য কিছুটা পার্থক্য আছে। পুরি হলো সেটা যার ভেতর পুর ভরা থাকে। যেমন – আলু পুরির ভেতর আলুর পুর, ডাল পুরির ভেতর ডালের পুর ইত্যাদি। আর লুচি হলো ফুলকো। এটা শুধু আটা বা ময়দা দিয়ে তৈরি এবং এর ভেতরে কোন পুর দেয়া হয় না। এই লুচি বিভিন্ন আইটেম এর সাথে খাওয়া যায়। সেটা হতে পারে মিষ্টি বা ঝাল। কিন্তু লুচি সাধারণত আলুর দমের সাথেই বেশি জমে আর খেতেও খুবই সুস্বাদু লাগে। আলুর দমের সাথে লুচির সমন্বয় টা সবসময় পারফেক্ট হয়। আর মজার এই খাবারটি সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, বিকালবেলার নাস্তা অথবা রাতের খাবার যখন ই খাওয়া হোক না কেন সব সময়ই উপভোগ্য।

আলুর দম তো প্রায় সবাই ই রান্না করতে পারেন। তবে কলকাতার বাঙালি রা যেভাবে এটাকে রান্না করেন তার রেসিপি  টা একটু আলাদা।  একটা অন্যপ্রকার মশলার টুইস্ট খুজে পাওয়া যায় তাদের রান্নায়। রেসিপিটি শুরু করার আগে বলতে চাই যে, যদিও লুচি অর্থাৎ রিফাইন্ড ফ্লাওয়ার দিয়ে তৈরি করা হয় তবুও আপনি যদি আপনার বা পরিবারের  স্বাস্থ্য  নিয়ে সচেতন হয়ে থাকেন তবে লুচি তৈরির জন্য আস্ত গমের আটা ব্যবহার করতে পারেন। আলুর দম তৈরি করার জন্য যদি ছোট ছোট আলু  বা নতুন আলু বাছাই করেন তাহলে সুস্বাদু হবে বেশি। আপনি ছোট আলু না পেয়ে থাকেন তাহলে  বড় আলুকেই চার টুকরো করে কেটে নিতে পারেন।

এবার চলুন আমরা এই চমৎকার লুচি আর আলুর দমের রেসিপিটি দেখে নেই-

লুচি বেলবেন যেভাবে :

অনেকের ই ধারনা করেন যে লুচির ময়দায় বেশি বেশি করে তেল দিলে বা ঘি এর খামির দিলে লুচি হয়তো বেশি ফুলবে । অনেকেই ভাবেন খামির টা কে মনে হয় আধা ঘণ্টা বা তার বেশি সময় ধরে ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখলে লুচি ফুলকো হবে। আসল কথা হলো, এসব এর কিছুই করতে হবে না আপনার। আপনার চটপট করে বানানো লুচিই হবে ফুলকো আর নরম। শুধু অনুসরণ করুন নিচের এই পদ্ধতিটি।

লুচির উপকরণ :

  • ময়দা বা আটা ২ কাপ,
  • তরল ঘি ১ টেবিল চামচ,
  • লবণ পরিমানমত,
  • বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ,
  • পানি প্রয়োজনমত,
  • তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি :

ময়দা বা আটার সঙ্গে ঘি ও লবণ দিয়ে ময়ান করুন। প্রয়োজনমত পানি দিয়ে বেশ নরম খামির তৈরি করুন। খামির বেশ ভালো করে হাত দিয়ে ডলে ডলে মেখে নিন। রেখে দেয়ার প্রয়োজন নেই একটুও। তেল গরম হতে দিন, এবং সেই ফাঁকেই ছোট ছোট লুচি বেলে নিয়ে গরম তেলে সোনালী  করে ভেজে নিন। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, লুচি যেন খুব পাতলা না হয়, আবার যেন একেবারে খুব মোটাও না হয়ে যায়।

আলুর দমের উপকরণ:

  • ছোট ছোট আলু- ৩০০ গ্রাম
  • টমেটো কুচি – ৩ টে মাঝারি আকারে কেটে নেয়া
  • পেঁয়াজ কুচি – ১ টা বড় আকারের
  • আদা বাটা- ১ টেবিল চামচ
  • রসুন বাটা- ১ টেবিল চামচ
  • লাল মরিচ গুঁড়া- ১ চা চামচ
  • হলুদ গুঁড়া – ১ চা চামচ
  • ধনে গুঁড়া- ১ চা চামচ
  • জিরা গুঁড়া – ১ চা চামচ
  • আস্ত জিরা- ১/২ চা চামচ
  • তেজ পাতা- ২ টি
  • ছোট ও বড় এলাচ- ২ টি করে
  • লবঙ্গ- ৪ টি
  • দারচিনি – ২ ইঞ্চির টুকরো
  • লবন স্বাদ অনুযায়ী
  • সাজানোর জন্য ধনেপাতা কুচি ইচ্ছেমত

প্রণালি :

  • প্রথমে সামান্য লবনের সাথে আলুগুলি সিদ্ধ করে ভাল ভাবে খোসা ছাড়িয়ে নিন।
  • তারপর আলুগুলি ঠিকমত ঠাণ্ডা হয়ে গেলে, একটা কাটা চামচের সাহায্যে আলুগুলিতে ছিদ্র  করে নিন। এটা করলে আলুর ভেতরে মসলা গুলো ভালো ভাবে প্রবেশ করে।
  • এবার একটি ফ্রাইং প্যানে তেল ভাল করে গরম করে আস্ত মশলাগুলো ফোঁড়ন দিন ও পেঁয়াজ  কুচি দিয়ে সোনালী বা হালকা বাদামী রং ধরা পর্যন্ত ভেজে নিন।
  • তারপর আদা-রসুন বাটা দিয়ে দিন। এবার হলুদ গুঁড়া  ছাড়া অন্য  সব গুঁড়া মশলা গুলো দিয়ে এতে সামান্য পানি দিন। তেল উপরে উঠে আসা পর্যন্ত ভাজতে থাকুন।
  • এবার টমেটো, হলুদ গুঁড়া ও লবন দিন। টমেটো গলে যাওয়া পর্যন্ত কষাতে থাকুন। তারপর সিদ্ধ আলুগুলি দিয়ে কষাতে থাকুন ও আলুগুলির ভেতরে মশলার সমস্ত স্বাদ-গন্ধ শুষে যেতে দিন।
  • এবার এতে সামান্য পানি দিন ও ফুটতে দিন। পছন্দ মত ঝোল শুকিয়ে নিন।
  • সবশেষে চুলার আঁচ থেকে নামিয়ে, ধনেপাতা  কুচি ছড়িয়ে দিয়ে গরম গরম লুচির সাথে পরিবেশন করুন মজার আলুর দম আর পেট ভরে খেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তুলুন সবাই।

মন্তব্যসমূহ

আমি একজন শিক্ষার্থী। নতুন কিছু সম্পর্কে জানতে ও শিখতে ভালোবাসি এবং অন্যদের সাথে সেটা শেয়ার করতে ভালো লাগে।

মন্তব্য করুন