চটপট বানান আলু বার্গার

চটপট বানান আলু বার্গার

বার্গার তো ছোট বড় সকলের পছন্দের খাবার। তবে বার্গার বানানো বেশ কষ্টকর একটা ব্যাপার। বার্গার সাধারণত হয় গরুর মাংস নয়তো বা মুরগির মাংস দিয়ে বানানো হয়।

এই দুই ভাবেই বার্গার বানানো যথেষ্ঠ কষ্ট আর সময়ের ব্যাপার। বিশেষ করে ব্যপক জনপ্রিয় গরুর মাংসের বার্গার বানাতে তো অনেক সময় নষ্ট হয়। সেই সাথে বানাবার কষ্ট তো আছেই। মুরগির মাংসের বার্গার বানাতে তো অনেক সময় প্রয়োজন।

এই সমস্যার একটা সহজ সমাধান আমার কাছে আছে। সেটি হচ্ছে মজাদার আলু বার্গার। এটি বানানো অনেক সহজ। কিন্তু এত সহজ রেসিপি দেখে আবার ভাববেন না যে এটি খেতে তেমন ভাল নাও হতে পারে। এই বার্গারটির স্বাদ আপনি একবার খেলে কখনোই ভুলতে পারবেন কিনা সন্দেহ।

আর প্রথমে খেয়ে আপনি হয়তো বুঝতেও পারবেন না যে এটি আমাদের কিচেনের ঝুড়িতে পড়ে থাকা আলু দিয়েই বানানো হয়েছে। যেকোন ফাস্ট ফুড দোকানের দামী বার্গারের সাথে এই আলু বার্গার খুব সহজেই আর যথেষ্ঠ দাপটের সাথেই পাল্লা দিতে পারবে।

আর আপনার বাসায় যদি খাবার নিয়ে জেদ করে এমন বাচ্চা থাকে তাহলে এই বার্গার আপনার জন্য মহা সমাধান হসেবে কাজ করে দেখাতে পারে। বাচ্চারা তো সবজি খেতেই চায় না। তাদেরকে আলু খাওয়ানোর একটা দারূণ উপায় হতে পারে আলু বার্গার।

আর এই বার্গারটি স্বাদে এতই অতুলনীয় যে আপনার বাচ্চা বুঝতেই পারবে না এটা আলু দিয়ে তৈরী। আর এই সুযোগে আপনি আপনার বাচ্চাটিকে বেশ খানিকটা আলু খাইয়ে দিতে পারবেন।

শুধু বাচ্চারাই না, বাড়ির সকল বয়সী সদস্যরাই বিকেলে চা বা কফির সাথে এই আলু বার্গার খুব তৃপ্তি নিয়ে খাবে এটা আমি আপনাকে গ্যারান্টি দিয়ে বলে দিতে পারি।

আর রেসিপিটি যেহেতু অনেক সহজ তাই আপনার কষ্টও কমবে সাথে সাথে আপনার মূল্যবান কিছু সময়ও বাচবে যা আপনি আপনার পরিবারের সাথে কাটাতে পারবেন।

চলুন দেরী না করে আলু বার্গারের রেসিপি দেখে নেই।

আলু বার্গার বানাবার উপকরণ

  • বার্গার বান ৩টি
  • আলু বড় ২টি
  • ধনেপাতা মিহি কুচি ২ টেবিল চামচ
  • পেঁয়াজ মিহি কুচি ২ টেবিল চামচ
  • আদা মিহি কুচি ১/২ চা চামচ
  • রসুন মিহি কুচি ১/২ চা চামচ
  • কাঁচা মরিচ মিহি কুচি ১/২ চা চামচ
  • ভাজা চীনা বাদাম ২ টেবিল চামচ
  • ভাজা মশলা গুড়া ১ চা চামচ
  • জোয়ান গুড়া ১/২ চা চামচ
  • লবণ স্বাদমত
  • চিনি সামান্য
  • লেবুর রস ১ টেবিল চামচ
  • ডিম ১টি
  • ব্রেড ক্রাম্ব প্রয়োজনমত
  • লেটুস পাতা তিনটি
  • মাখন ২ টেবিল চামচ
  • কালো গোলমরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • টমেটো সস ৩ চা চামচ

ভাজা মশলা বানাবার উপকরণ

  • আস্ত ধনে ১ চা চামচ
  • আস্ত জিরা ১ চা চামচ
  • শুকনো মরিচ ৩টি
  • এলাচ ৪টি
  • দারচিনি ২ টুকরা
  • লবঙ্গ ৩টি
  • কালো গোলমরিচ ১০টি
  • তেজপাতা অর্ধেকটা

আলু বার্গার বানাবার প্রণালী

প্রথমে আলু ভাল করে সিদ্ধ করে নিতে হবে। সিদ্ধ আলু ঠান্ডা হলে হাত দিয়ে সুন্দর করে ভর্তা করে নিতে হবে। খেয়াল রাহবেন যেন কোন রকম দলা দলা ভাব না থাকে। সম্পূর্ণ আলু ভাল করে ম্যাশ হয়ে গেলে বার্গার প্যাটি খেতে ভাল হবে।

চীনা বাদাম হামান দিস্তা বা শীল পাটায় হালকা ভেঞগে নিন। একে বারে গুড়া গুড়া করে ফেলবেন না। খাওয়ার সময় যাতে মুখে পড়ে সেরকম ভাবে কিছুটা ক্রাশ করে নিলেই হবে।

এবার ভাজা মশলা বানিয়ে নিন।

একটা শুকনো প্যানে আস্ত ধনে, আস্ত জিরা, শুকনো মরিচ, এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ, তেজপাতা আর কালো গোলমরিচ নিন। অল্প আঁচে নেড়ে নেড়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিন। কিছুক্ষণ পর দেখবেন খুব সুন্দর ভাজা মশলার গন্ধ বের হচ্ছে। তখন বুঝবেন যে মশলা ভাজা হয়ে গেছে। তাছাড়া মশলার রঙ কিছুটা বদলে গাড় হয়ে যাবে। এভাবে মশলা ভেজে কিছুক্ষণ ঠান্ডা হবার জন্য রেখে দিন। তারপর ব্লেন্ডারে অথবা শীল পাটায় খুব মিহি করে ভাজা মশলা গুড়া করে নিন। এরপর প্রয়োজন মত ব্যবহার করুন।

আপনি একটা এয়ার টাইট কৌটায় যত দিন ইচ্ছা তত দিন পর্যন্ত এই ভাজা মশলা গুড়া সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন। এই আলু বার্গারের রেসিপিতে এক চা চামচ ভাজা মশলা গুড়া প্রয়োজন হয়। আপনি বাকি মশলা একতা এয়ার টাইট কৌটায় করে পরবর্তী সময়ে ব্যবহার করার জন্য রেখে দিতে পারেন। আর আপনার ইচ্ছা হলে আরো বেশি পরিমাণ এই মশলা বানিয়ে রেখে দিতে পারেন।

এবার হচ্ছে বার্গার প্যাটি তৈরী করার পালা।

একটি পাত্রে মিহি করে কুচি অরে রাখা ধনেপাতা, পেঁয়াজ, আদা, রসুন আর কাঁচা মরিচ নিয়ে নিন। এর সাথে প্রয়োজন মত লবণ যোগ করুন। এবার হাত দিয়ে ডলে ডলে খুব ভাল করে মাখাতে থাকুন। দেখবেন কিছুক্ষণ পর পেঁয়াজ ও অন্যান্য মশলা থেকে পানি বের হয়ে এসেছে। এবার এই মশলার সাথে চিনি, জোয়ান গুড়া আর ভাজা মশলার গুড়া হাত দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। মশলাগুলো সুন্দর ভাবে একে অপরের সাথে মিশে গেলে আগে থেকে ভররাতা করা রাখা আলু ঐ মশলার সাথে মিশান।

হাত দিয়ে খুব ভাল করে মিশাবেন যাতে পুরো মশলাটা সম্পূর্ণ আলু ভর্তায় খুব ভাও মত মিশে যায়। এবার এই ভর্তা করা আলুর সাথে আগে থেকে আধা ভাঙ্গা করে রাখা চীনা বাদাম মিশিয়ে দিন। সাথে একটু লেবুর রসও দিয়ে দিন। হাত দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবার অন্য একটা বাটিতে একটা ডিম ভাল করে ফেটিয়ে নিন। ফেটানো ডিম ভর্তা করে রাখা আলুর সাথে মিশিয়ে দিন। এবার অল্প অল্প করে ব্রেড ক্রাম্ব দিন আর মাখুন। ব্রেড ক্রাম্বের পরিমাণটা আলু ভর্তার বাইন্ডিং এর উপর ডিপেন্ড করবে। আপনার যতক্ষণ মনে হবে আলু ভর্তা ডিপ ফ্রাই করার মত বাইন্ডিং আসেনি ততক্ষণ পর্যন্ত অল্প অল্প করে ব্রেড ক্রাম্ব দিতে থাকুন আলু ভর্তার মধ্যে। আপনার পছন্দ মত বাইন্ডিং হয়ে গেলে কিছুটা করে ম্যাশ করে রাখা আলু নিন।

বার্গার প্যাটির মত করে শেপ করে নিন। ফ্রাইং প্যানে বেশি করে তেল নিয়ে গরম করুন। আলু দিয়ে বানানো বার্গার প্যাটি গুলো ডুবো তেলে ডিপ ফ্রাই করে নিন গোল্ডেন কালার না হওয়া পর্যন্ত। রেডি আপনার বার্গারের জন্য আলুর প্যাটি।

এবার বার্গার বান রেডি করার পালা।

প্রথমে একতা ফ্রাইং প্যানে মাখন নিন। মাখন গলে গেলে উপর থেকে সামান্য কালো গোলমরিচ গুড়া ছড়িয়ে দিন। এবার বার্গার বানগুলো মাঝখান থেকে আড়াআড়ি ভাবে ছুরি দিয়ে কেটে নিতে হবে। বানগুলোকে উপুড় করে মাখনের উপর দিয়ে দিন। হালকা করে ছেকে নিন। বার্গার বানের ভিতর দিকটা কিছুটা গোল্ডেন ব্রাউন কালার হয়ে গেলে আর বানগুলো থেকে মাখনের সুন্দর গন্ধ আসা শুরু করলে প্লেটে তুলে রাখুন।

এবার বার্গার গুলো ফাইনালি রেডি করার পালা।

প্রথমে অর্ধেক করে রাখা একটা বার্গার বানের টুকরো নিয়ে নিন। এর উপর একটা লেটুস পাতা রাখুন। এই লেটুস পাতার উপর একটা বার্গার প্যাটি রাখুন। এই প্যাটির উপর অল্প করে টমেটো সস লাগিয়ে দিন। উপর থেকে এক চিমটি কালো গোলমরিচ গুড়া ছড়িয়ে দিন। তার উপর বার্গার বানের বাকি টুকরাটা দিয়ে ঢেকে দিন।

রেডি আপনার জন্য মজাদার আলু বার্গার।

 

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন