তরমুজ বেল টকদইয়ের শরবত

তরমুজ বেল টকদইয়ের শরবত

চৈত্রের গরম এসে গেছে। সেই সাথে তীব্র গরমের ঝাঝ আমাদের দরজায় এসে কড়া নাড়া শুরু করে দিয়েছে। বাইরে কড়া গনগনে সূর্যের রোদের তীব্র তেজ আর ঘরে বাতাসের অভাব, এ যেন চৈত্র মাসের অতি সাধারণ চিত্র। এসময় ঘরে তাও বা একটু সময় কাটানো যায়। কিন্তু ঘরের বাইরে বের হওয়া যেন এক মূর্তিমান আতঙ্কের নাম। কিন্তু চৈত্রের গরম পড়েছে বলে জীবন তো আর থেমে থাকবে না। সবারই জীবনে কাজ আছে। আর কাজের তাগিদে ঘর হতে দুই পা ফেলে বাইরে তো যেতেই হবে। কিন্তু বাইরে থেকে ঘুরার পর ঘরে এসে যে ভীষণ ক্লান্তির অনুভূতি আমাদের চারপাশ থেকে চেপে ধরে তা থেকে মুক্তির উপায় কি? আমার মতে এসময় প্রয়োজন এক গ্লাস ঠান্ডা রিফ্রেশিং টক মিষ্টি শরবত। একটা ভাল রেসিপির ঠান্ডা মজাদার শরবত খেলে মুহূর্তের মধ্যে আপনার সব ক্লান্তি কোথায় যে পালিয়ে যাবে আপনি তা টেরও পাবেন না। তেমনি একটি মজাদার আর অন্যরকম শরবত হচ্ছে তরমুজ বেল টকদইয়ের শরবত। তাহলে চলুন দেরী না করে চটপট এই মজাদার শরবতটি বানিয়ে ফেলি।

তরমুজ বেল টকদই এর শরবত বানাবার উপকরণ

  • তরমুজের ক্বাথ ১ কাপ
  • বেলের ক্বাথ ১/২ কাপ
  • টকদই ১/২ কাপ
  • গুড়ো করা চিনি ১/২ কাপ থেকে ১ কাপ
  • লবণ স্বাদমত
  • বিটলবণ ১ চা চামচ
  • পানি ১ কাপ

তরমুজ বেল আর টকদই এর শরবত বানাবার প্রণালী

প্রথমে তরমুজের ক্বাথ, বেলের ক্বাথ আর টকদই একসাথে ব্লেন্ডারে নিয়ে নিন। খুব সুন্দর করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার দিন গুড়ো করে রাখা চিনি, লবণ আর বিটলবণ। আপনি শরবত কতটুকু মিষ্টি খাবেন সেটা সম্পূর্ণ আপনার ব্যাপার। অনেকে খুব বেশী মিষ্টি শরবত খেতে ভালবাসেন। অনেকের আবার খুব বেশি মিষ্টি পছন্দ না। আপনি আপনার পছন্দ বুঝে ১/২ কাপ থেকে ১ কাপ পর্যন্ত চিনি দিতে পারেন। একটা ছোট্ট টিপস শেয়ার করি আপনাদের সাথে। কোন শরবত বানাবার সময় কখনোই একবারে সব মিষ্টি দিতে হয় না। প্রথমে অর্ধেক চিনি দিবেন। এরপর স্বাদ বুঝে বাকি চিনি দিতে হবে। কারণ একবারে যদি আপনি বেশি চিনি দিয়ে ফেলেন পরে আর কমানো যাবে না। কিন্তু যদি অল্প অল্প করে চিনি দেওয়া হয় তাহলে মিষ্টি বেশি হয়ে যাবার কোন ঝুকি থাকে না। এবার সব উপকরণ একসাথে ব্লেন্ড করে নিন। দেখবেন ঘন একটা পেস্ট মত তৈরী হয়ে গেছে। এবার এতে পানি দিয়ে আর একবার ব্লেন্ড করুন। রেডি আপনার জন্য মজাদার তরমুজ বেল টকদইয়ের শরবত। যেকোন শরবতের ঘনত্ব শরবতটি আপনি কার জন্য করছেন তার ইচ্ছা আর রুচির উপর নির্ভর করে। আপনার উপরের পরিমাপ অনুযায়ী এই শরবতটি যদি আপনি বানান তাহলে মিডিয়াম ঘনত্বের একটা শরবত তৈরী হবে। এখন আপনার যদি পাতলা শরবত খেতে ভাল লাগে তাহলে আপনি পানি আরো একটু বেশি দিয়ে শরবতটি ব্লেন্ড করে নিবেন। আর আপনি যদি একটু ঘন শরবত পছন্দ করেন তাহলে সব উপকরণ একসাথে ব্লেন্ড করার সময় পানির পরিমাণ রেসিপিতে উল্লেখ করা পরিমাণ থেকে একটু কম পরিমাপে দিবেন।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন