তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল

গোলাপ জলের জান্নাতি খুশবুতে মুগ্ধ হন না এমন মানুষ খুব কমই খুজে পাওয়া যাবে। কিন্তু এই সুন্দর খুশবুদার উপাদানটি আমাদের রূপচর্চায়ও একটা বিরাট ভূমিকা রাখতে পারে।

শুষ্ক, মিশ্র কিংবা তৈলাক্ত, আপনার ত্বক যেমন ধরণেরই হক না কেন গোলাপ জল সেই ত্বকের যত্নে যথেষ্ঠ উপকারে আসতে পারে। তবে এত সব ত্বকের ধরণের মধ্যে যে ত্বকটির জন্য গোলাপ জলের প্রয়োজনীয়তা সবচেয়ে বেশি সেটি হচ্ছে তৈলাক্ত ত্বক।

ত্বকের যত্নে গোলাপ জলের ব্যবহার নতুন কিছু নয়। বহু শতাব্দী প্রাচীন কাল থেকেই সকল শ্রেণীর রমণীরা তাদের রূপচর্চায় সুগন্ধী গোলাপ জলের ব্যবহার করে আসছেন।

এমনকি লোকমুখে একথাও শোনা যায় যে পারীন রোমান আমলে রূপের রাণী স্বয়ং ক্লিওপেট্রা তার রূপচর্চায় নিয়মিত গোলাপ জলের ব্যবহার করতেন। আর উপমহাদেশের রাণী মহারাণীদের মধ্যে রূপচর্চায় গোলাপ জলের ব্যবহারের কথা তো কারোরই অজানা থাকার কথা নয়।

এই গোলাপ জল শুধু যে আপনার স্কিনের তেল ভাব কমাতে সাহায্য করে তাই নয়। গোলাপ জল স্কিনের জ্বালা পোড়া কমাতে আর স্কিনকে গভীর থেকে পরিস্কার করতেও সাহায্য করে। একারণে স্কিনে যদি খুব বেশি র‍্যাশ থাকে কিনবা স্কিন খুব বেশি চুলকায় তাহলে গোলাপ জল আপনার জন্য ঔষধের মত কাজ করতে পারে।

গোলাপ জলে আছে প্রচুর পরিমাণে এন্টি ইনফ্লেমেটরি উপকরণ। সেই সাথে আরো আছে ভরপুর পরিমাণে এন্টি অক্সিডেন্ট। একারণে তৈলাক্ত ত্বকের রূপচর্চার জন্য এই গোলাপ জলের বহুমুখী ব্যবহারের কথা বলে শেষ করা যাবে না।

অনান্য আরো কিছু রুপচর্চার উপকরণের সাথে মিশে এটি একাধারে ক্লিনজার, টোনার, ময়শ্চারাইজার এই তিনটি প্রোডাক্টের কাজই করতে পারে। আর এই তিনটি উপকরণই তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বিশেষ ভাবে উপকারী।

আপনার হয়তো মনে হতে পারে তৈলাক্ত ত্বকের তেল কমিয়েই কুল পাইনা, আবার যদি ময়শ্চারাইজার দেই তাহলে তো আর রেহাই পাব না। ত্বক থেকে সারাদিন তেল বের হবে। ধারণাটি অত্যন্ত ভুল। অন্য সব ধণের ত্বকের মত তৈলাক্ত ত্বকেরও পুষ্টি দরকার। আর পুষ্টির জন্য দরকার সঠিক ময়শ্চারাইজার।

শুধু তাই না। গোলাপ জল তোইলাক্ত ত্বকের পি এইচ ব্যালান্স ঠিক রাখতে সাহায্য করে। সেই সাথে ব্রণ আর একনের সমস্যাও দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে। তৈলাক্ত ত্বকের এজিং প্রকিয়ার গতিকে গোলাপ জল কমিয়ে দেয়। আর ত্বককে রিফ্রশ করে। চলুন তাহলে এওত সব উপকারের ভান্ডার গোলাপ জলের কিছু প্যাক বানানো জেনে নেই যেগুলো বিশেষ ভাবে তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপকারী।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল টোনার

আমরা সকলেই জানি যে তৈলাক্ত ত্বক মাত্রই নিয়মিত টোনার ব্যবহার করা উচিত। আর গোলাপ জলের মত সহজলভ্য প্রাকৃতিক টোনার দ্বিতীয়টি খুজে পাওয়া যাবে না।

আপনি বাইরে রোদ থেকে ঘুরে আসার পর ফেশ ওয়াশ দিয়ে মুখ পরিস্কার করে নিন। এরপর একটি তুলোর বলে গোলাপ জল নিয়ে নিন। গোলাপ জল লাগানো তুলোর বলটি সারা মুখে বুলিয়ে নিন।

দেখবেন মুখ থেকে নিমেষেই সব বাড়তি ময়লা উঠে আসবে। সেই সাথে আপনার ত্বক অনেক ফ্রেশ অনুভূত হবে। আর বাইরের রোদের জন্য ত্বকে যে জ্বালা পোড়া অনুভূত হয় সেটাও মুহূর্তের মধ্যে বিলুপ্ত হয়ে যাবে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ১ম প্যাক

গোলাপ জলের এই প্যাকটি তৈলাক্ত ত্বকের সান বার্ন আর র‍্যাশ দূর করতে অনেক সাহায্য করবে।

এই প্যাকটির জন্য প্রয়োজন সাত থেকে আটটি তুলসি পাতা আর ১০০ মিলি খাটি গোলাপ জল।

  • তুলসি পাতা গুলি হামান দিস্তায় খুব ভাল করে পিষে নিতে হবে। পেস্ট হওয়া তুলসি পাতা খাটি গোলাপ জলের সাথে মিশাতে হবে।
  • এবার এই তুলসি পাতা আর গোলাপ জলের মিশ্রণ একটি স্প্রে বোতলে ঢেলে নিতে হবে।
  • স্প্রে বোতলটি দুই থেকে তিন ঘন্টার জন্য ফ্রিজে রেখে দিতে হবে যাতে করে তুলসি পাতা ও গোলাপ জলের এই মিশ্রণটি ঠান্ডা হয়ে যায়।
  • এরপর সানবার্ন বা র‍্যাশের উপর এই বোতল থেকে মিশ্রণ স্প্রে করতে হবে।
  • পাঁচ মিনিট ঐ ভাবেই রেখে দিতে হবে।
  • তারপর ভাল করে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

প্রতিদিন একবার করে ব্যবহার করলে সান বার্ন আর র‍্যাশ আস্তে আস্তে কমে যাবে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ২য় প্যাক

এক টেবিল চামচ নারকেল তেল আর এক টেবিল চামচ নারকেল তেল একটা বাটিতে নিন। খুব ভাল করে মিশিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণে ৩ টেবিল চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে দিন। কাটা চামচ দিয়ে ভাল করে ফেটে মিশিয়ে নিন। এবার একটা বোতলে এই মিশ্রন ঢেলে রাখুন।

রোজা রাতে ঘুমাতে যাবার আগে মুখ আর গলা ভাল করে ফেশ ওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণটি হাতে লাগিয়ে মুখে আর গলায় তিন থেকে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করে নিন। তারপর তোয়ালে ভিজিয়ে হাত দিয়ে নিংড়ে মুখ আর গলা মুছে নিন।

এই প্যাকটি খুব ভাল ময়শ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। আর একটি বড় সুবিধা হচ্ছে আপনি এই ময়শ্চারাইজার বানিয়ে এয়ারটাইট বোতলে রেখে দিতে পারেন।

এক সপ্তাহ পর্যন্ত চলবে এমন পরিমাণে বানিয়ে রেখে দিতে পারেন। আপনার সময় আর টাকা দুটোই বেচে যাবে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ৩য় প্যাক

এক চা চমচ লেবুর রস আর এক চা চামচ গোলাপ জল এক সাথে ভাল করে মিশিয়ে নিন। এই প্যাকটি সারা  মুখে সমান ভাবে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ভাল ভাবে মুখ ধুয়ে পরিস্কার করে নিন।

এই প্যাকটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য মহৌষধ হিসেবে কাজ করে। লেবুতে থাকা উপকারী এসিড আপনার ত্বকের মধ্যে লুকিয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়া গুলোকে সমূলে ধ্বংস করে দেয়। আর গোলাপ জলের ত্বককে ঠান্ডা করে তোলার ক্ষমতা তো অসাধারণ।

সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন এই প্যাকটি মুখে লাগাতে হবে। মুখ আস্তে আস্তে উজ্জ্বল হয়ে যাবে। আর তৈলাক্ত ত্বকের প্রধাণ শত্রু ব্রণ আর একনের বিরুদ্ধে এই প্যাকটি ভীষণ ভাল ভাবে কাজ করতে পারে।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ৪র্থ প্যাক

এক চা চামচ মুলতানি মাটি একটা বাটিতে নিয়ে নিন। এর সাথে মিশান দুই চা চামচ গোলাপ জল। ভাল করে নেড়ে মিশিয়ে নিন।

এবার আপনার মুখ ও গলা খুব ভাল করে ফেস ওয়াশ দিয়ে পরিস্কার করে নিন। তারপর একটা পরিস্কার তোয়ালে দিয়ে মুছে নিয়ে এই প্যাকটি শুকনো মুখে লাগিয়ে নিন।

২০ থেকে ২৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এই সময়ের মধ্যে প্যাক পুরোপুরি শুকিয়ে যাবে। প্যাকটি শুকিয়ে গেলে ভাল করে মুখ ঠান্ডা পানি দিয়ে পরিস্কার করে নিন। দেখবেন ত্বকের উপর থেকে তেলতেলে ভাব একেবারে চলে গেছে। আর মুখের ত্বকও অনেক ফ্রেশ দেখাচ্ছে।

সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন কাঙ্খিত ফল পাওয়ার জন্য।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ৫ম প্যাক

এক চা চামচ চন্দন গুড়া একটা বাটিতে নিয়ে নিন। এর সাথে মিশিয়ে নিন এক চা চামচ টকদই আর এক চা চামচ গোলাপ জল। একটা চামচ দিয়ে খুব ভাল করে মিশিয়ে নিন।

ফেস ওয়াশ দিয়ে ভাল করে পরিস্কার করা মুখে আর গলায় প্যাকটি লাগিয়ে নিন। প্যাক শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকুন। প্রায় আধা ঘন্টা লাগবে প্যাকটি পুরোপুরী শুকিয়ে যেতে।

এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ আর গলা ভাল করে পরিস্কার করে নিতে হবে। এই প্যাকটি একবার দিলেই নিজের ত্বকের উজ্জ্বলতার পার্থক্য বুঝতে পারবেন।

চন্দন গুড়ার ত্বককে উজ্জ্বল করার ক্ষমতা আমরা সবাই জানি। আর টকদই তে থাকা ল্যাকটিক এসিডও আপনার ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে। সেই সাথে গোলাপ জল আপনার ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করবে।

এজন্য এই প্যাকটি নিয়মিত ব্যবহারে আপনি পাবেন ফর্সা, উজ্জ্বল ও তেলমুক্ত ত্বক।

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

১ টি মন্তব্য
  1. Reply তিথি মার্চ ২১, ২০১৮ তারিখে ১১:২৭ অপরাহ্ন

    তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে গোলাপ জল এর ২য় প্যাক এ আপনি লিখেছেন, “এক টেবিল চামচ নারকেল তেল আর এক টেবিল চামচ নারকেল তেল একটা বাটিতে নিন।”
    এটা কি ঠিক আছে?

মন্তব্য করুন