অন্য রকম কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা

অন্য রকম কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা

গরম কাল খুব জলদি পরে গেছে। এই গরমে স্বাস্থ্য ও স্কিন ঠিক রাখতে একটু হালকা খাবার খাওয়া উচিত। কেননা গরম কালে যদি খুব তেলে ভাজা খাবার খাওয়া হয় তাহলে অতিরিক্ত গরম, বাইরের আনহাইজেনিক পরিবেশ, সারাদিন কাজ শেষে শরীর খারাপ করতে পারে। গরম কালে নিজেদের ডায়েট এ পরিবর্তন আনা দরকার। একটু ব্যাল্যান্স ডায়েট এ নিজেকে মানিয়ে নিলেই কিন্তু স্বাস্থ্য এবং সাথে স্কিন ও অনেক ভাল থাকবে। স্বাস্থ্য এবং স্কিন ভাল রাখার মূলমন্ত্র হল ব্যাল্যান্স ডায়েট। ডায়েট ঠিক থাকলে স্বাস্থ্য এবং স্কিন ও ভাল থাকে ও স্কিন উজ্জ্বল হওয়া শুরু করে। অপর দিকে তেলে ভাজা খাবার স্কিন এর বারোটা তো বাজায় আবার শরীর স্বাস্থ্য ও খারাপ করে দেয়। এর জন্য দরকার একটা ব্যাল্যান্স ডায়েট।

প্রতিদিন সচেতন মানুষরা ডায়েট করে অর্থাৎ পরিমিত খাবার খায়। কিন্তু এক ঘেয়েমি ডায়েট কি আর সবার ভাল লাগে? এই জন্য ডায়েট এ কিছু ভিন্নতা আনা দরকার মাঝে মাঝে। একটু অন্য রকম ভাবে যদি খাবার টা বানানো যায় তাহলে ডায়েট এর এক ঘেয়েমি থেকেও মুক্তি মিলবে আবার খাবার এও ভিন্নতা আসবে। আজকে আমি এমনই একটা রেসিপি দিব। যা আমাদের ডায়েট এর এক ঘেয়েমি ও দূর করবে আবার খাবার টি হবে স্বাস্থ্যকর ও মজাদার। রেসিপি টি হল কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা। খুব সাধারন শুনালেও খাবার টি অনেক মজা এবং একটু অন্য রকম। আসুন দেখে নেই অন্য রকম কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা এর রেসিপি।

অন্য রকম কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা করতে যা যা লাগবেঃ

১- এক চা চামুচ হলুদ এর গুড়া।

২- স্বাদ মত লবন।

৩- পরিমান মত পানি।

৪- একটা ছোট মাঝারি সাইজের কাচা পেঁপে।

৫- ওয়ান থার্ড কাপ এর মত সরিষার তেল।

৬- ৮ থেকে ৯ টা আস্ত শুকনা মরিচ।

৭- রসুন কুচি দুই টেবিল চামুচ।

৮- পেয়াজ কুচি এক কাপ।

৯- লাল মরিচ এর গুড়া এক চা চামুচ।

১০- ডিম দুই টা।

১১- আধা কাপ ধনিয়া পাতা কুচি।

১২- কাচা মরিচ দুই টা।

১৩- বিট লবন হাফ চা চামুচ।

অন্য রকম কাচা পেঁপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা বানানোর পদ্ধতিঃ

প্রথমে একটা ছোট মাঝারি সাইজের পেঁপে নিতে হবে। পেঁপে টা পিস করে কেটে ভাল করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। এখন একটা প্যানে পরিমান মত পানি নিতে হবে। তার মধ্যে হলুদ এর গুড়া ও পরিমান মত লবন দিতে হবে। দিতে ২ মিনিট নাড়িয়ে তাতে আগে থেকে কেটে রাখা পেঁপে দিতে হবে। দিয়ে প্যান এর ঢাকনা দিয়ে দিতে হবে এবং পেঁপে টাকে সিদ্ধ করতে হবে। প্রায় ৮ থেকে ৯ মিনিট এ পেপে সিদ্ধ হয়ে যাবে। যদি দেখেন সিদ্ধ হওয়ার পর এক্সট্রা পানি আছে তাহলে সেইটা ছেকে নিবেন অথবা ঢাকনা উঠিয়ে কিছুক্ষন তাপে রেখে পানি শুকিয়ে ফেলতে পারেন। আমি এইখানে পানি টা ছেকে ফেলে দিব।

ভর্তা এর জন্যঃ

প্রথমে একটি প্যান নিয়ে তাতে সরিসার তেল নিতে হবে। আপনারা চাইলে সয়াবিন তেল ও ব্যবহার করতে পারেন। তবে সরিসার তেল এ ফ্লেভার বেশি ভাল আসবে। এর মধ্যে এর পর আস্ত শুকনা মরিচ দিতে হবে। শুকনা মরিচ দেয়ার পর কিছুক্ষন ভাজতে হবে। একদম কালো করে ভাজা যাবে না। হাল্কা ব্রাউন কালার হয়ে গেলে ভাজা বন্ধ করে দিতে হবে। এরপর এর মধ্যে রসুন কুচি দিতে হবে, তারপর পেয়াজ কুচি দিয়ে ভাল মত ভাজতে হবে। এরপর দিতে হবে লাল মরিচ এর গুড়া। এরপর সব ভাল করে মিশিয়ে ভেজে এর মধ্যে আগে থেকে সিদ্ধ করা পেঁপে টা দিতে হবে। দিয়ে ভাল করে ভেজে নিতে হবে। সিদ্ধ করা পেপে টা হাত দিয়ে চটকে নিতে হবে ঠাণ্ডা হয়ে গেলে।

এরপর সব কিছু এক সাথে মিশিয়ে কিছুক্ষন ভাজার পর এর মধ্যে ডিম ফেটে দিতে হবে। হাস বা মুরগি এর ডিম ব্যবহার করতে পারেন আপনারা। তবে ডিম এ যদি এলারজি থাকে তাহলে ডিম নাও ব্যবহার করতে পারেন। ডিম দেয়ার পর পরিমান মত লবন দিয়ে ভাজতে হবে কিছুক্ষন। কিছুক্ষন ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে ধনিয়া পাতা কুচি দিতে হবে এবং কিছু কাচা মরিচ দিতে হবে। এইটা আপনার পছন্দের উপর নির্ভর করে। আপনারা ঝাল বেশি পছন্দ করলে বেশি দিতে পারেন কম পছন্দ করলে ঝাল এর পরিমান কম ও করতে পারে। এরপর ২ থেকে ৩ মিনিট ভাজা এর পর নামিয়ে নিয়ে হবে।

একটা সারভিং ডিশে পরিবেশন করুন মজাদার অন্য রকম কাচা পেপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা। সারভিং ডিশে নিয়ে উপরে হালকা বিট লবন ছড়িয়ে দিবেন। গরম ভাত হোক আর পান্তা ভাত। সব কিছুর সাথেই খুব ভাল ভাবে যাবে এই  অন্য রকম কাচা পেপে ও ডিমের ভুনা ভর্তা। এই অন্য রকম ভর্তা টা খুবই মজাদার এবং এইটা অনায়াসে আপনার ডায়েট এর এক ঘেয়েমি কাটিয়ে দিবে এবং সাথে সাথে দিবে আপনাকে উজ্জল ত্বক ও স্বাস্থ্য।

মন্তব্যসমূহ

আমি স্টুডেন্ট। পড়াশুনার পাশাপাশি টুকটাক লিখতে ভালবাসি।

মন্তব্য করুন