মজাদার আলু কালিজিরা ভর্তা রেসিপি

মজাদার আলু কালিজিরা ভর্তা রেসিপি

বাঙ্গালি মানেই ভর্তা প্রেমী। এক থালা গরম ভাত আর এক বাটি ঘন ডাল হলেই হল। এর সাথে নানা রকম ভর্তাই তো আমাদের সবার প্রিয় খাবার। আর নানা রকম ভর্তার কথা আসলে প্রথমেই মনে পরে ভর্তার রাজা আলু ভর্তার কথা। এমন কোন বাঙ্গালি বাড়ি খুজে পাওয়া যাবে না যেখানে সপ্তাহে এক দিন অন্তত আলু ভর্তা বানানো হয় না। তবে আলু ভর্তা বানাবার রেসিপি ঘুরে ফিরে সেই একই জায়গায় আটকে আছে। কোন নতুনত্ব নেই। কেমন হয় যদি আমাদের চির চেনা আলু ভর্তারই এক নতুন রূপ দেখে নেয়া যায়। চলুন্ আজ দেখে নেই আলু ভর্তার এক নতুন রেসিপি। রেসিপিটি হচ্ছে আলু কালোজিরা ভর্তা।

আলু কালোজিরা ভর্তা বানাবার উপকরণ

  • আলু ২টি বড় সাইজের
  • পানি আলু সিদ্ধ করার জন্য
  • পেঁয়াজ মিহি করে কুচি করা ২টি মাঝারি সাইজের
  • রসুন কুচি ১/২ চা চামচ
  • শুকনা মরিচ ২টি
  • কাঁচা মরিচ মিহি করে কুচি করা ১টি
  • কালোজিরা ১/২ চা চামচ
  • লবণ পরিমাণ মত
  • সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ

আলু কালোজিরা ভর্তা বানাবার প্রণালী

১ম ধাপ

আলু ভর্তা বানাবার সময় প্রথম যে সমস্যাটা হয় সেটা হল ভর্তার টেস্কচার সব সময় একই রকম হয় না। এর কারণ লুকিয়ে আছে আলু সেদ্ধ করার প্রসেস এর ভিতরে। আলু যদি ঠিক মত সেদ্ধ না করা হয় তাহলে ঐ আলুর ভর্তা নরম প্যাতপ্যাতা হয়ে যায়। আসুন আমি আপনাদের আলু ভর্তা বানাবার জন্য আলু সেদ্ধ করার সঠিক উপায়টি বলে দিব।

প্রথমে একটা পাত্রে পানি ফুটতে দিন। আলু লম্বালম্বি চার ফালি করে কেটে নিন। আলু লম্বালম্বি কেটে নেয়ার একটা কারণ আছে। আলু আড়াআড়ি মাঝ বরাবর কাটলে সেদ্ধ হতে যে সময় নেয় তার থেকে লম্বালম্বি কাটলে তাড়াতাড়ি সেদ্ধ হয়ে যায়। আলু ভর্তার জন্য সেদ্ধ করবার সময় আরো একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। সেটি হচ্ছে পানির পরিমাণ। এমন ভাবে পানি নিতে হবে যেন আলু সেদ্ধ হতে হতে পানি শুকিয়ে যায়। আলু সেদ্ধ হবার শেষের দিকে হাড়ি নেড়ে নেড়ে পানি শুকিয়ে ফেলতে হয়। এভাবে আলু সেদ্ধ করলে আলুর টেস্ট ভাল হয়। কারণ আমরা যদি আলু সেদ্ধ পানি ফেলে দেই তাহলে আলুর রসও পানির সাথে ফেলে দেওয়া হয়ে যায়। ফলে ভর্তায় সেই মজার টেস্টটা আসে না।

২য় ধাপ

এবার একটা পাত্রে সেদ্ধ আলু গুলো নিয়ে এগুলোর খোসা ছাড়িয়ে নিন। তারপর হাত দিয়ে অথবা পটেটো ম্যাশার দিয়ে ভাল করে আল গুলো ভর্তা করে নিন। আলু ভর্তা খাওয়ার মধ্যে মুখে আলুর টুকরো পড়লে নিশ্চই খেতে ভাল লাগবে না। তাই খেয়াল রাখবেন আলু গুলো যেন পুরোপুরি ম্যাশ হয়ে যায়। দলা দলা না থাকে।

৩য় ধাপ

এবার একটা ছোট প্যানে সরিষার তেল গরম করতে দিন। সরিষার তেল গরম হলে তাতে কালোজিরা আর শুকনা মরিচ ফোড়ন দিন। কালোজিরা ফুটে গেলে মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ দিয়ে দিন। হালকা ভেজে নিন। পেঁয়াজ কুচি একটু নরম হলে রসুন কুচি আর কাঁচা মরিচ কুচিও গরম তেলে দিয়ে দিন। মশলা গুলো লাল লাল না হওয়া পর্যন্ত মিডিয়াম আঁচে ভাজতে থাকুন। একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন। এরকম অল্প পরিমাণ মশলা ভাজার সময় কখনো চুলার জ্বাল অনেক বেশি রাখবেন না। তাহলে মশলা গুলো পুড়ে যাবার ভয় থাকে। মশলা ভাজা হয়ে গেলে ভর্তার উপর ঢেলে দিন। একই সাথে ভর্তায় পরিমাণ মত লবণ দিয়ে দিন। হাত দিয়ে খুব ভাল করে লবণ, মশলা আর ভর্তা করে রাখা আলু মেখে নিন। একবার চেখে দেখুন লবণ ঠিক আছে কিনা। কম মনে হলে আবার দিতে পারেন। এবার একটা সুদর বাটিতে সাজিয়ে নিয়ে পরিবেশ করুন মজাদার আলু কালোজিরা ভর্তা।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন