ছোটদের মজার ডোরাকেক রেসিপি

ছোটদের মজার ডোরাকেক রেসিপি

জাপানের বাচ্চাদের প্রিয় কার্টুন ডরিমন বাংলাদেশেও সমান জনপ্রিয়।নানা রকম বুদ্ধিদীপ্ত কাজকর্ম করে থাকে এই ডরিমন।বিভিন্ন অভিনব গ্যাজেটে ঠাসা তার ছোট্ট পকেট।তার পাশাপাশি তার খুব পছন্দের খাবার হল ডোরাকেক।এই ডরিমনের দেখাদেখি আমাদের বাচ্চাদেরও নিত্যদিন বায়না করে থাকে ডোরাকেক খাবে।বাজারে এখন নানা রকম কেক পাওয়া যায় ডোরাকেক নামে। কিন্তু বাজারের কেনা কেক কি আর অত ভালো মানের হয় কিনা তা সন্দেহ থেকেই যায়। তারউপর আসল ডোরাকেক যেমন দেখতে সেটা তো আর পাওয়া যায় না, যা পাওয়া যায় তার সবই আসলে কাপকেক।এরচেয়ে চলুন আসল ও ভেজালহীন ডোরাকেক বাসাতেই বানিয়ে ফেলাটা শিখে ফেলি।ডোরাকেক আসলে দুইটা প্যানকেকের মাঝখানে চকলেট এর ফিলিং দেয়া থাকে। ছোট্টসোনামনিদের জন্য আজকের আমাদের আয়োজন ছোটদের মজার ডোরাকেক রেসিপি।

উপকরণ

ময়দা – ১ কাপ

চিনি- ১/৪ কাপ

ডিম – ১টি

তরল দুধ – ১+ ১/২ কাপ

বেকিং পাউডার- ১+ ১/২ চা চামচ

তেল – ২ টেবিল চামচ

ভ্যানিলা এসেন্স – ১ চা চামচ

লবন – সামান্য

ফিলিংএর জন্য

চকলেট চিপস – ১/৪ কাপ

বাটার- ১ টেবিল চামচ

প্রণালী

** একটা বাটিতে ডিম ও চিনি একসাথে ভালোভাবে ফেটিয়ে নিতে হবে, যাতে ডিম ও চিনি ভালভাবে মিশে যায়।চিনির কোন দানা যাতে না থাকে।

** এরপর ডিমের মিশ্রণে তেল দিয়ে কিছুক্ষন ফেটিয়ে নিন।

** এখন ডিমের মিশ্রণে তরল দুধ দিয়ে আবার ভালো করে ফেটে নিতে হবে।ভ্যানিলা এসেন্স ্মিশিয়ে নিন।

** এখন একটা চালনিতে ময়দা, লবন ও বেকিং পাউডার একসাথে চেলে নিন। ডিম-দুধের মিশ্রণে ময়দা মিশিয়ে নিন। আস্তে আস্তে মিশাতে হবে, বেশি জোরে ফেটা যাবে না।

** একটা প্যান গরম করে নিন।সামান্য তেল ব্রাশ করে নিন।এখন একটা গোলচামচ দিয়ে প্যানে কেকের গোলা প্যানে দিয়ে দিন। বেশি ছড়িয়ে দিতে হবে না।

** ১ মিনিট অপেক্ষা করুন, কেকের উপরে বুদবুদ উঠলে কেক উল্টিয়ে দিন।অন্যপাশ হয়ে গেলে উথিয়ে নিন। এভাবে সব কেক তৈরি করে নিন।

** একটা পাতিলে পানি গরম করে নিন।তারউপর একটা বাটিতে চকলেট চিপস ও বাটার নিয়ে গরম পানির উপর কিছুক্ষন নাড়াচাড়া করুন চকলেট গলে যাবে।

** এখন একটা কেকের উপর চকলেটের ফিলিং দিয়ে উপরে আর একটা প্যানকেক দিয়ে ঢেকে দিন।

** ইয়াহু !! তৈরি হোয়ে গেল ছোটদের মজার ডোরাকেক।

 

টিপসঃ

১. ডিম অবশ্যই ড়ূম টেম্পারেচারে থাকতে হবে, মানে যদি ফ্রিজে থাকে তবে তা ১/২ -১ ঘণ্টা আগে বের করে রাখতে হবে।

২. তরল দুধও নরমাল টেম্পারেচারের হতে হবে।

৩.চকলেট চিপস না থাকলে যেকোন চকলেট বার গলিয়ে নিলেও হবে। এছাড়াও নসিলা/ নিউট্রেলা/ চকলেট সিরাপ দিলেও হবে। বাচ্চারা চকলেট পছন্দ করে তাই এটা দিলেই এরা খুশি হয়, তবে অন্য কোন জ্যাম দিয়েও এই ডোরাকেক তৈরি করা যাবে।

মন্তব্যসমূহ

নিজের পরিচয় দিতে গেলে সবার আগে বলব, আমি একজন মা। তার সাথে একজন হোমমেকার, শিক্ষক ও ব্লগার। লিখতে ভালবাসি। তার চাইতে ভালবাসি পড়তে, জানতে। এইতো! ছোট এক জীবনে অনেক কিছু, আলহামদুলিল্লাহ!!

মন্তব্য করুন