মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের আলু পটলের মালাইকারি রেসিপি

মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের আলু পটলের মালাইকারি রেসিপি

এখন গ্রীষ্মকাল চলছে। এই সময়ে বাজারে সবজির ভ্যারাইটি খুব একটা দেখা যায় না। সেই ঘুরে ফিরে আলু, পটল, কুমড়ো আর বেগুন। কত দিন আর এই একই সবজি খেতে ভাল লাগে বলুন। কিন্তু করারও তো কিছু নেই। বাজারে যদি সবজির ভ্যারাইটি না থাকে তাহলে খাবারে ভ্যারাইটি খোথা থেকে আনব বলুন? একটা উপায় অবশ্য আছে। এক কাজ করা যাতে পারে। আমাদের রোজকার বাজারের এই অতি সাধারণ সবজি গুলোই একটি অন্য রকম ভাবে রান্না করে দেখা যেতে পারে। তাতে স্বাদ বদল তো হবেই। সেই সাথে এই গরমের সময়ে খাওয়া দাওয়ার প্রতি যে অনীহাটা তৈরী হয় সেটাও দূর হয়ে যাবে। এরকমই একটা মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের সবজির রেসিপি আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। এটি হচ্ছে মজাদার ও একটু ভিন্ন স্বাদের আলু পটলের মালাইকারি।

আলু পটলের মালাইকারি নাম শুনে মনে হতে পারে এটি বোধ হয় কি না কি কঠিন একটা রান্না। কিন্তু আসল ব্যাপার মোটেও তা নয়। আলু পটলের মালাইকারি খুবই সাধারণ একটা রান্না। আর এই রান্নাটা করতে সময়ও লাগে অত্যন্ত কম। আর এই রেসিপিটা বানাতে গেলে যে উপকরণ গুলো দরকার হয় তা প্রায় সব সময়ই আমাদের হাতের কাছেই থাকে। আর যারা মাছ বা মাংস খান না তাদের জন্য এই রান্নাটি আরো বেশি দরকারি। কারণ মাছ বা মাংস ছাড়া খাবারের মধ্যে নতুনত্ব আনাটা একটূ কঠিন হয়ে পড়ে। ফলে এই ধরনের মানুষের জন্য খাবার ব্যাপারটা বোরিং হতে সময় লাগে। এজন্য নিরামিষ ভোজী মানুষের জন্য এই রান্নাটা অতি সুস্বাদু আর সুখকর হবে তা তো বলাই বাহুল্য।

চলুন আর কথা না বাড়িয়ে এই আলু ও পটলের মালাইকারি বানাতে কোন কোন উপকরণের দরকার হবে তা জেনে নেই। সেই সাথে কোন পদ্ধতিতে এই আলু পটলের মালাইকারি বানাতে হবে তাও জেনে নেই চলুন।

আলু পটলের মালাইকারি বানাতে যা যা লাগবে

  • আলু বড় ১টি
  • পটল ৪ থেকে ৫টি
  • সরষের তেল ৩ টেবিল চামচ
  • লবণ পরিমাণ মত
  • হলুদ ১ চা চামচ + ১/২ চা চামচ
  • হিং ১ চিমটি
  • আস্ত ছোট এলাচ ৩টি
  • আস্ত বড় এলাচ ১টি
  • আস্ত লবঙ্গ ৩টি
  • আস্ত দারচিনি ১ টুকরা
  • তেজপাতা ১টি
  • আস্ত শুকনা মরিচ ২টি
  • আদা বাটা ২ চা চামচ
  • কাঁচা মরিচ বাটা ১ চা চামচ
  • কাশ্মিরি লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • টক দই ১/৪ কাপ
  • নারকেল বাটা ২ টেবিল চামচ
  • চিনি ১/২ চা চামচ
  • ঘি ১ চা চামচ
  • পানি পরিমাণ মত

আলু পটলের মালাইকারি যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে আলু ও পটল ছিলে নিতে হবে। এবার পটল মাঝ বরাবর অর্ধেক করে কেটে নিতে হবে। আলুও মোটামুটি পটলের সাইজের সমান করে কেটে নিতে হবে। দুটো সবজি একই সাইজের কাটতে পারলে ভাল হয়। তাহলে আলু পটলের মালাইকারি দেখতে ও খেতে ভাল হবে। এরপর আলু ও পটল ভাল করে ধুয়ে ঝাঝরিতে পানি ঝরাতে দিতে হবে। দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সবজি থেকে পানি ঝরে সবজি শুকিয়ে যাবে। তখন কেটে রাখা আলু ও পটল পরিমাণ মত লবণ ও এক চাচামচ হলুদ গুড়া দিয়ে মেখে নিতে হবে। তারপর চুলায় একটা ফ্রাইং প্যানে সরষের তেল গরম করতে দিতে হবে। সরষের তেল গরম হয়ে গেলে তাতে মেখে রাখা আলু ও পটলের টুকরা গুলো ভেজে নিতে হবে। আলু ও পটল একটু মুচমুচে করে ভাজতে হবে। এগুলো ভাজা হয়ে গেলে একটা প্লেটে তেল থেকে উঠিয়ে রাখতে হবে।

২য় ধাপ

এবার ওই বেচে যাওয়া সরষের তেলে আস্ত বড় এলাচ, আস্ত ছোট এলাচ, আস্ত দারচিনি ও আস্ত লবঙ্গ ফোড়ন দিতে হবে। একই সাথে একটা তেজপাতা ও আস্ত শুকনা মরিচ এই সময়ে ফোড়ন দিতে হবে। সরষের তেলে মশলা গুলো ফুটে ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মশলা গুলো সরষের তেলে ফুটে উঠলে দেখবেন খুব সুন্দর একটা ঝাঝালো গন্ধ বের হবে। তখন এর মধ্যে এক চিমটি হিং দিয়ে দিতে হবে। হিং দেয়ার পর দেরি করা যাবে না। একদম সাথে সাথেই আদা বাটা ও কাঁচা মরিচ বাটা দিয়ে দিতে হবে। আদা বাটা ও কাঁচা লঙ্কা বাটা একটু ভেজে নিয়ে এর মধ্যে ১/২ চা চামচ হলুদ গুড়া দিয়ে দিতে হবে। সেই সাথে কাশ্মিরি লাল মরিচ গুড়াও এই সময়ে দিয়ে দিতে হবে। সব মশলা খুব ভাল করে কষে নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন বাটা মশলা থেকে কাঁচা কাঁচ আভাবটা একদম চলে যায়। প্রয়োজন হলে এই পর্যায়ে একটু পানি যোগ করা যেতে পারে। তবে খুব অল্প পানি যোগ করবেন। বেশি পানি দিলে মশলার স্বাদ পানসে হয়ে যাবে।

৩য় ধাপ

মশলা গুলো ভাল করে কষানো হয়ে গেলে এর মধ্যে টক দই দিয়ে দিতে হবে। একই সাথে নারকেল বাটাও দিতে হবে। আরো দুই থেকে তিন মিনিট কষাতে হবে। তারপর আগে থেকে ভেজে রাখা আলু ও পটলের টূকরা গুলো এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। পরিমাণ মত লবণ ও চিনি যোগ করতে হবে এই সময়ে। কিছুক্ষণ কষিয়ে কষিয়ে রান্না করতে হবে। এই সময়ে অল্প একটু পানি দিতে হবে। মাখা মাখা ঝোল হলে উপর থেকে এক চা চামচ ঘি ছড়িয়ে দিতে হবে। এরপর আর দুই মিনিট মত রান্না করতে হবে। তারপর চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। একটা সার্ভিং বোলে ঢেলে সার্ভ করতে হবে।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন