বয়ামের স্মার্ট ক্লিয়ার লেবেলিং

বয়ামের স্মার্ট ক্লিয়ার লেবেলিং

অফিস বা কোন প্রতিষ্ঠানের ফাইলপত্রে সব জায়গায় কাজের সুবিধার জন্য লেবেলিং করা হয়ে থাকে। যাতে খুব সহজেই প্রয়োজনীয় ফাইলটা বা কাগজটা খুঁজে পাওয়া যায়। এতে একদিকে যেমন সময় বাঁচে তেমন পরিশ্রমটাও কম হয়।এত গেল অফিস-আদালতের কথা। কিন্তু ভেবে দেখেছেন কী, একইভাবে আমাদের ঘরে বিশেষ করে রান্নাঘরেও লেবেলিং করা হলে কাজের ঝক্কি কমে কতটা আরাম হবে?

রান্নাঘরে বিভিন্ন কৌটা থাকে সেটা হতে পারে মশলার বা শুকনো কোন খাবারের। একটা জিনিস খুঁজতে যেয়ে যদি অনেকগুলো বয়াম/ কৌটা খুলতে হয় তাহলে কি আর মেজাজ ঠাণ্ডা রেখে কাজ করা যাবে? আর এখনকার দিনের আধুনিক নাগরিক জীবনে সবারই কাজের খুব তাড়া থাকে।এইসব ঝক্কি ঝামেলা এড়াতে একটু সময় করে রান্নাঘরের কৌটা/ বয়ামগুলোয় লেবেলিং করে নিন, তাতে যে কি সুবিধা হবে টা নিজেই বুজতে পারবেন। তাইতো চটপটের আজকের আয়োজন স্মার্ট লেবেলিং।
রান্নাঘটা সুন্দর করে সাজাতে কার না ভালো লাগে। নিশ্চয় খুব সুন্দর সুন্দর স্টাইলিশ কৌটা কিনে এনেছেন আপনি আপনার হেঁশেলকে নান্দনিক করে তুলতে। সেই সুন্দর বয়াম/কৌটায় তো যেমন তেমনভাবে লেবেলিং করা যায় না। তাতে যে সৌন্দর্য বাড়ার বদলে কমে যাবে।

আসুন দেখে নিই স্মার্ট লেবেলিং করতে কি কি লাগবেঃ

** স্কচটেপ (মোটা)
** লেবেল প্রিন্টকরা কাগজ
** কাঁচি/ এন্টি-কাটার
** পানি
** একটা কাঠি
** কাঁচের বয়াম

যেভাবে করতে হবেঃ

প্রথম ধাপ

প্রথমে আপনার যে যে লেবেল দরকার সেটা কম্পিউটারে লিখে নিন বাংলা বা ইংলিশে পছন্দের ফন্টে(font) (যেমনঃ চিনি/sugar, লবন/ salt, দুধ/milk)।

দ্বিতীয় ধাপ

এরপর সেটা কাগজে প্রিন্ট করে নিন। একটা কাগজে বেশ কয়েকটা প্রিন্ট করতে পারবেন। প্রিন্টের পরে লেবেলের উপরে স্কচটেপ লাগিয়ে নিন। একটা কাঠির সাহায্যে স্কচটেপের উপরে ভালভাবে ঘষুন যাতে লেবেলের লেখাগুলো স্কচটেপের উপরে ভালভাবে বসে। এবারে একটা করে লেবেল কেটে নিন।

তৃতীয় ধাপ

একটা বাটিতে পানি নিন। এখন একটা করে লেবেলে সেই পানিতে ভিজিয়ে রাখুন ৫-১০ মিনিট। এখন হাত দিয়ে ঘসে কাগজটা তুলে নিন।

 

শেষ ধাপ

পানিতে ভেজানো স্কচটেপ থেকে কাগজ তুলে নিলেই লেবেল তৈরির কাজ প্রায় শেষ। এখন সুধু বয়ামে লাগানোর পালা। ষে বয়ামে লেবেল লাগাবেন সেটা আগে থেকেই ধুয়ে, শুকনো করে রাখতে হবে। পানি থেকে তুলে সরাসরি বয়ামে স্মার্ট ক্লিয়ার লেবেলটা লাগিয়ে দিন।

সবগুলো লাগানো হলে দেখুন আপনার কিচেনের কেমন সুন্দর একটা লুক এসেছে।তার পাশাপাশি কোন বয়ামে কোনটা আছে তার জন্য খোঁজাখোঁজি করে অহেতুক সময় ও শ্রম কোনটারি অপচয় হবে না।

মন্তব্যসমূহ

নিজের পরিচয় দিতে গেলে সবার আগে বলব, আমি একজন মা। তার সাথে একজন হোমমেকার, শিক্ষক ও ব্লগার। লিখতে ভালবাসি। তার চাইতে ভালবাসি পড়তে, জানতে। এইতো! ছোট এক জীবনে অনেক কিছু, আলহামদুলিল্লাহ!!

মন্তব্য করুন