চটপট বানান বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড

চটপট বানান বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড

কাস্টার্ড আমাদের দেশিয় কোন খাবার না। কিন্তু দিন দিন আমাদের দেশে এই খাবারটির জনপ্রিয়তা বাড়তেই আছে। বিশেষ করে বাচ্চাদের মধ্যে এই খাবারটি খুবই জনপ্রিয়। আর বাচ্চাদের থেকে মায়েদের এই খাবারটি আরো বেশি পছন্দের। কারণ বাচ্চারা সাধারণত ফল একেবারেই খেতে চায় না। কিন্তু কাস্টার্ডের সাথে বাচ্চাদেরকে নানা রকম ফল খাইয়ে দেয়া যায়। এজন্য মায়েরা প্রায়ই বাসায় বাচ্চাদের জন্য কাস্টার্ড করে থাকেন।

আমাদের এই ওয়েবসাইটে আগেই ক্রিমি ফ্রুট কাস্টার্ড বানাবার রেসিপি দেয়া আছে। আমি আজ আরেকটু অন্য ধরণের কাস্টার্ড রেসিপি শেয়ার করতে চাই। বেশির ভাগ বাচ্চারা একেবারেই ফল খেতে চায় না আমরা সবাই তা জানি। কিন্তু আর একটি পুষ্টিকর খাবারও বাচ্চাদেরকে খাওয়ানো বেশ কষ্টের একটা কাজ। সেই পুষ্টিকর খাবারটি হচ্ছে বাদাম। বাচ্চাদের ব্রেন ডেভেলপমেন্টের জন্য বিভিন্ন রকম বাদাম খাওয়াটা অন্ত্যন্ত জরুরী। শুধু তাই নয়। বিভিন্ন রকম বাদামে থাকা নানা রকম পুষ্টি উপাদান বাচ্চাদের শারিরিক গঠন সঠিক ভাবে পরিচালিত করতেও অনেক সাহায্য করে থাকে। এজন্য বাচ্চাদের নিয়মিত বাদাম খাওয়ানোটাও খুব জরুরি। কিন্তু বাচারা তো বাচ্চাই ওরা তো বাদাম খেতে চাবে না। সেক্ষেত্রে আপনি এই ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড বানিয়ে বাচ্চাদের দিতে পারেন। ওরা খুব মজা করেই কাস্টার্ডের সাথে ফল আর বাদাম খেয়ে নেবে।

বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড বানাতে খুব বেশি উপকরণের দরকার হয় না। আর এই উপকরণ গুলো আপনি আপনার পছন্দ মত অদল বদলও করে নিতে পারবেন। যেমন সব সময় বাজারে কিন্তু একই রকমের ফল মূল পাওয়া যায় না। আবার সব বাচ্চারা সব ধরণের ফল খেতেও পারে না। আপনি সিজন বুঝে আর আপনার বাচ্চার টেস্ট বুঝে নিজের ইচ্ছা মত ফল এই কাস্টার্ডে যোগ করতে পারবেন। আবার কিছু কিছু বাদামে কিছু কিছু বাচ্চার এলার্জি থাকে। আপনার বাচ্চার যদি সেরকম কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে সেই নির্দিষ্ট বাদামটি আপনি এড়িয়ে যেতে পারেন।

আসুন দেরি না করে এই মজাদার ও পুষ্টিকর বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড কিভাবে বানাতে হয় তা দেখে নেই। তবে তার আগে এই কাস্টার্ড বানাতে কি কি উপকরণ আমাদের দরকার হবে তা জেনে নেয়া যাক।

বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড বানাতে যা যা লাগবে

কাস্টার্ড বানাতে যা যা লাগবে

  • তরল দুধ ১/২ লিটার
  • ডিম ১টি
  • কাস্টার্ড পাউডার ২ টেবিল চামচ
  • চিনি ২ টেবিল চামচ

যে যে ফল লাগবে

  • আম ছোট সাইজের ১টি
  • কলা ১টি
  • লাল আঙ্গুর ১০ থেকে ১২টি
  • সবুজ আঙ্গুর ১০ থেকে ১২টি
  • আপেল ১টি

যে যে বাদাম লাগবে

  • আমন্ড বাদাম ৫ থেকে ৭টি
  • কাজু বাদাম ৫ থেকে ৭টি
  • চিনা বাদাম ৫ থেকে ৭টি
  • আখরোট ৫ থেকে ৭টি
  • কাঠ বাদাম ৫ থেকে ৭টি
  • কিশমিশ ৫ থেকে ৭টি

বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে কাস্টার্ড বানিয়ে নিতে হবে। এজন্য একটা ব্লেন্ডারে প্রথমে তরল দুধ নিতে হবে। এর মধ্যে একটা ডিম ভেঙ্গে দিতে হবে। এরপর চিনি আর কাস্টার্ড পাউডার দিতে হবে। এই বার সব উপকরণ এক সাথে খুব ভাল করে ব্লেণ্ড করে নিতে হবে। আপনার কাছে ব্লেন্ডার না থাকলে হ্যান্ড হুইস্ক দিয়েও ব্লেন্ড করে নিতে পারেন। তবে একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। সব উপকরণ যেন খুব ভাল ভাবে একে অন্যের সাথে মিশে যায় তা লক্ষ্য রাখবেন।

এই বার চুলার উপর একটা হাড়ি বসিয়ে দিতে হবে। হাড়িতে এই দুধ আর ডিমের মিশ্রণ ঢেলে দিতে হবে। চুলার আঁচ মিডিয়াম রেখে জ্বাল দিতে হবে। তিন থেকে পাঁচ মিনিট পর দুধে বলক উঠে যাবে। তখন চুলার আঁচ একদম কমিয়ে দিতে হবে। এই অবস্থায় অনবরত কাস্টার্ডের মিশ্রণটা নাড়তে থাকতে হবে। তা না হলে হাড়ির তলায় লেগে যাবে। কিছুক্ষণ একই ভাবে নেড়ে চেড়ে রান্না করার পর কাস্টার্ডের মিশ্রণ আস্তে আস্তে ঘন হতে শুরু করবে। কাস্টার্ডের মিশ্রণটা মোটামুটি ঘন হয়ে আসলে চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। একটা বিষয় মনে রাখতে হবে। কাস্টার্ড ঠান্ডা হলে আরো কিছুটা ঘন হয়ে যাবে। এজন্য সেই ভাবেই ঘনত্ব বুঝে একটু পাতলা থাকতেই চুলা বন্ধ করে দিতে হবে।

এই বার রুম টেম্পারেচারে কাস্টার্ড এর মিশ্রণটা এক ঘন্টা রেখে দিতে হবে। এই সময়ে কাস্টার্ড ঠান্ডা হয়ে রুম টেম্পারেচারে চলে আসবে। তখন এটাকে ঠান্ডা হবার জন্য দুই থেকে তিন ঘন্টা ফ্রিজে রাখতে হবে।

২য় ধাপ

আগে থেকে রেডি করে নেয়া কাস্টার্ডের মিশ্রণ ফ্রিজে ঠান্ডা হএ হতে বাদাম আর ফল গুলো রেডি করে নিতে হবে। আগে বাদাম রেডি করে নিতে হবে। তারপর ফল সবার শেষে রেডি করতে হবে। বাদাম গুলো প্রথমে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর একটা ফ্রাইং প্যানে হালকা করে ভেজে নিতে হবে। যেহেতু কাস্টার্ডটা মূলত বাচ্চাদের জন্য বানানো হচ্ছে তাই বাদাম গুলো ভাজার সময় এক চা চামচ ঘি দিয়ে দিতে পারেন। এতে করে কাস্টার্ডে একটু ক্যালরি যোগ হবে। আর বাচ্চাদের জন্য বানানো না হলে ঘি না দিলেও চলবে। বাদাম গুলো হালকা করে ভাজা হয়ে গেলে একটা প্লেটে নামিয়ে রাখতে হবে। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে যাতে করে বাদাম গুলো ঠান্ডা হয়ে যায়।

৩য় ধাপ

এক এক করে ফল গুলো রেডি করতে হবে। প্রথমে লাল আঙ্গুল ও সবুজ আঙ্গুল গুলো নিতে হবে। এই আঙ্গুর গুলো লম্বালম্বি ভাবে মাঝখান থেকে কেটে দুই ভাগ করে নিতে হবে। আপনি চাইলে অবশ্য আস্ত আঙ্গুরও দিতে পারেন। তবে কাস্টার্ডের মধ্যে ফলের টুকরো গুলো একটু ছোট সাইজের হলে খাওয়ার সময় বেশি ভাল লাগে।

এরপর আপেল ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিতে হবে। একই ভাবে কলাও ছোট আর পাতলা পাতলা টূকরো করে কেটেনিতে হবে। একটা ছোট সাইজের পাকা আম নিতে হবে। আমটা যেন অবশ্যই মিষ্টি হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। এরপর এই পাকা আমটাও ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিতে হবে।

৪র্থ ধাপ

এই বার বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড সুন্দর করে রডি করতে হবে। এর জন্য ফল, বাদাম আর কাস্টার্ড লেয়ার বাই লেয়ার সুন্দর করে সাজিয়ে নিতে হবে। কাস্টার্ড সাজানোর জন্য একটা কাঁচের সচ্ছ বাটি ব্যবহার করতে পারলে খুব ভাল হয়। তবে আপনি ইচ্ছা হলে সাধারণ কাঁচের বা সিরামিকের বাটিতেও সাজাতে পারেন।

সার্ভিং বোলে প্রথমে কেটে রাখা ফল গুলো সমান ভাবে বিছিয়ে দিতে হবে। এর উপর ভেজে রাখা বাদাম গুলো সুন্দর করে ছড়িয়ে দিতে হবে। এর উপর আগে থেকে বানিয়ে ঠান্ডা করে রাখা কাস্টার্ডের মিশ্রণটাও ঢেলে দিতে হবে। এরপর উপর থেকে আরো অল্প কিছু ফল ও বাদাম ছড়িয়ে সার্ভ করতে হবে মজাদার বেসিক ফ্রুট এন্ড নাট কাস্টার্ড।

 

 

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন