মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড

আমাদের দেশিয় কোন খাবার না হওয়া সত্তেও কাস্টার্ড ধীরে ধীরে আমাদের দেশে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। তবে আমরা কাস্টার্ড বানালে শুধু এক রকম ভাবেই বানিয়ে থাকি। সেটা হচ্ছে ফ্রুট কাস্টার্ড। কিন্তু আপনি কি জানেন কাস্টার্ড খুব ভার্সেটাইল একটা খাবার। এই একটা খাবারকেই অনেক উপায়ে অনেক ভাবে খাবার টেবিলে উপস্থাপন করা যায়। আজ এরকমই একটা ভিন্ন ধরণের কাস্টার্ড রেসিপি আপনাদের সাথে আমি শেয়ার করব। এই রেসিপিটি হচ্ছে মজাদার চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড।

চকোলেট বানানা কাস্টার্ড বানানো খুব কঠিন কোন কাজ না। খুব সহজেই আপনি এই ডেজার্টটি বাসায় বসেই বানিয়ে নিতে পারবেন। তবে এই ডেজার্টটি বানাতে একটু পূর্ব প্রস্তুতির ব্যাপার আছে। যেমন এই রেসিপিটা বানাতে আপনার চকোলেট সসের প্রয়োজন হবে। চকোলেট সস এখন বাজারেই কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু সেগুলোর দাম যথেষ্ঠ বেশি। আপনি চাইলে বাসায় বসেও মজাদার চকোলেট সস বানিয়ে নিতে পারবেন। আমাদের ওয়েবসাইটেই একটা মজাদার চকোলেট সসের রেসিপি আছে। রেসিপিটি হচ্ছে মাল্টিপারপাস চকোলেট সস। আপনি চাইলে এই চকোলেট সসটি আগে থেকে বানিয়ে রাখতে পারেন। তারপর প্রয়োজন মত চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড বানানোর জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের এই ডেজার্ট চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড বেশ কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে বানাতে হয়। চলুন দেরি না করে কোন কোন ধাপ অনুসরণ করে এই চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড বানাতে হবে তা জেনে নেই। তবে তার আগে এটি বানাতে কোন কোন উপকরণ কি পরিমাণে দরকার হবে তা জেনে নেয়া যাক।

চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড বানাতে যা যা লাগবে

  • পানি দুই কাপ
  • ডিম একটা
  • গুড়া দুধ ২ টেবিল চামচ
  • চিনি ৪ টেবিল চামচ
  • কাস্টার্ড পাউডার ২ টেবিল চামচ
  • চকোলেট সস ১/৪ কাপ
  • ওয়েফার ৪ থেকে ৫টি
  • পাকা কলা ২টা

চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমেই কাস্টার্ড বানিয়ে নিতে হবে। এর জন্য একটা ব্লেন্ডারে পানি আর দুধ নিতে হবে। সেই সাথে চিনি, ডিম, আর কাস্টার্ড পাউডারও যোগ করতে হবে। খুব ভাল করে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। আপনি অবশ্য চাইলে পানির বদলে লিকুইড দুধও ব্যবহার করতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে আর গুড়া দুধ যোগ করবার দরকার হবে না।

দুধ, ডিম আর কাস্টার্ড পাউডার এর মিশ্রণ ব্লেন্ড করা হয়ে গেলে এগুলো একটা সস প্যানে ঢেলে দিতে হবে। চুলা জ্বালিয়ে সস প্যানটি চুলায় বসিয়ে দিতে হবে। মিডিয়াম আঁচে চুলা জ্বালিয়ে দিতে হবে। কাস্টার্ডের মিশ্রণে বলক উঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তারপর চুলার আঁচ একদম কমিয়ে দিতে হবে। প্রায় দশ থেকে বারো মিনিট মৃদু আঁচে কাস্টার্ড জ্বাল দিতে হবে। কাস্টার্ড মোটামুটি ঘন হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। এই অবস্থায় এক থেকে দুই ঘন্টা রুম টেম্পারেচারে কাস্টার্ড রেখে দিতে হবে। কাস্টার্ড যখন রুম টেম্পারেচারে এসে যাবে তখন ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। দুই থেকে তিন ঘন্টার মধ্যে কাস্টার্ড একদম ঠান্ডা হয়ে যাবে। তখন পরবর্তি ধাপ গুল কমপ্লিট করতে হবে।

২য় ধাপ

বাজারে বাচ্চাদের জন্য নানা রকম ফ্লেভারের ওয়েফার কিনতে পাওয়া যায়। এই চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড এর জন্য চওলেট ফ্লেভার অথবা ব্যানানা ফ্লেভারের ওয়েফার দরকার হবে। আপনি আপনার পছন্দ মত যে এই দুটি ফ্লেভারের কোন একটি ফ্লেভারের ওয়েফার ব্যবহার করতে পারেন। আবার ইচ্ছা হলে এই দুই রকম ফ্লেভারের ওয়াফারই সমান পরিমাণে ব্যবহার করে দেখতে পারেন। ওয়েফার গুলো ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে। একই সাথে পাকা কলাও কেটে নিতে হবে ছোট ছোট টুকরো করে।

৩য় ধাপ

এই বার ছোট ছোট কাঁচের বোল নিতে হবে। তবে আপনি ইচ্ছা হলে একটা বড় বোলেও এই চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড সার্ভ করতে পারেন। বোলের নিচে প্রথমে ওয়েফারের টুকরো গুলো রাখতে হবে। এর উপর চকোলেট সস ছড়িয়ে দিতে হবে। এর উপর কলার টুকর গুলো সুন্দর করে বিছিয়ে দিতে হবে। এর উপর দিতে হবে রেডি করে ঠান্ডা করে রাখা কাস্টার্ড। একি ভাবে আরো এক লেয়ার ওয়েফার, চকোলেট সস, কলা ও কাস্টার্ডের লেয়ার দিতে হবে। এই বার আবারো এই রেডি করে নেয়া চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। অন্তত এক থেকে দুই ঘন্টা কাস্টার্ড ফ্রিজে রেখে দেয়া লাগবে। তারপর ঠান্ডা ঠান্ডা সার্ভ করতে হবে চকোলেট ব্যানানা কাস্টার্ড।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন