আইশ্যাডো দিয়ে তৈরি করে নিন পছন্দের আই লাইনার

আইশ্যাডো দিয়ে তৈরি করে নিন পছন্দের আই লাইনার

কেমন হয় বলুন তো যদি একেক সময় একেক রঙের আই লাইনারে চোখটা সাজান? কিন্তু এতো রঙের আই লাইনার কি সংগ্রহে রাখা যাবে? এ প্রশ্নের উত্তর কিন্তু খুব সহজ! হ্যা, আপনি চাইলে নানা রঙের আই লাইনার নিজের কাছে রাখতে পারেন, তাও বাড়তি কোন অর্থ খরচ না করেই। আপনাদের জন্য আমাদের চটপটের এ আয়োজনে থাকছে আই লাইনার তৈরির সহজ একটি কৌশল।

আমাদের সবার মেকআপ সংগ্রহে ভেঙে যাওয়া আইশ্যাডো থাকবেই থাকবে। আর সেই আইশ্যাডোকে বাতিল মনে না করে বরং সেটা থেকে বানিয়ে নেয়া যাবে পছন্দমতো রঙের আই লাইনার। তবে চলুন দেখে নেই কিভাবে আইশ্যাডো থেকে আই লাইনার তৈরি করবেন-

আই লাইনার তৈরি করতে যা যা প্রয়োজন হবে

  • আই লাইনার রাখার জন্য ছোট কনটেইনার
  • যেকোন রঙের আইশ্যাডো
  • পানি
  • প্রাইমার
  • আই লাইনার ব্রাশ

আই লাইনার তৈরির পদ্ধতি

প্রথমেই পরিষ্কার কনটেইনারে পছন্দমতো রঙের আই শ্যাডো নিয়ে নিন। আইশ্যাডোর পরিবর্তে পাউডার ব্লাশ, পাউডার হাইলাইটার বা যেকোন লুজ পিগমেন্ট ব্যবহার করতে পারবেন।

আপনি যতটুকু আই লাইনার তৈরী করতে চান সে অনুযায়ী আইশ্যাডোর পরিমাণ নিয়ে নিবেন। আইশ্যাডোটা অবশ্যই পাউডার আইশ্যাডো হতে হবে। তাছাড়া আইলাইনার তৈরিতে আগে আইশ্যাডোর মেয়াদ দেখে নিতে ভুলবেন না। জানেনই তো মেয়াদোত্তীর্ণ প্রসাদনী ব্যবহার কত শত বিপদ ডেকে আনতে পারে!

লিকিউড কন্সিস্টেন্সি আনার জন্য এবার আইশ্যাডোতে কয়েক ফোঁটা পানি মিশিয়ে দিন। আই লাইনার ব্রাশের সাহায্যে পানি ও আইশ্যাডো ২ মিনিটের মতো নাড়তে থাকুন।

এখন এতে সামান্য পরিমাণে আই প্রাইমার বা ফেস প্রাইমার মিশিয়ে নিন। প্রাইমার দেয়ার কারণে আইলাইনার যখন ব্যবহার করবেন তা ছড়িয়ে যাবে না এবং চোখে দীর্ঘক্ষণ স্থায়ী হবে।

আরো কয়েক সেকেন্ড উপকরণগুলো ব্রাশের সাহায্যে নেড়ে নিন। এতে করে প্রাইমার আইশ্যাডোর সাথে ভালো ভাবে মিশে যাবে। এই আই লাইনার দীর্ঘদিন ভালো থাকবে। আপনার আইশ্যাডোর মেয়াদ যতদিন থাকবে, তৈরি করা আই লাইনারের মেয়াদও ততদিন থাকবে। তো আর দেরি কেন এবার ঘরেই তৈরি করুন আই লাইনার, এবং রঙিন আই লাইনারে রাঙিয়ে নিন প্রিয় চোখ দুটি!

মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন