নিজেই তৈরি করুন শাহী গরম মসলা:

রান্নার জন্মলগ্ন থেকেই গরম মসলার ব্যবহার হয়ে আসছে,আর হবেই বা না কেন?গরম মসলা যেমন রান্নার স্বাদ বাড়ায় তেমতি শরীরের জন্যে অনেক উপকারী।আমাদের বাঙালী রান্না বান্নায় পাওয়া যায় অনেক মসলার সমাহার।নিজ হাতে বানানো মসলা ব্যবহারে পাওয়া যায় অন্য রকম  প্রশান্তি।যদিও বাজারে রয়েছে বিভিন্ন রকমের গরম মসলা কিন্তু সেই স্বাদ ও ঘ্রাণ নেই।আসুন জেনে নেই ঘরে কিভাবে বানাবেন শাহী গরম মসলা।

 

যা যা লাগবে:

জিরা-১টেবিল চামচ

শাহী জিরা-১টেবিল চামচ

ধনিয়া-১টেবিল চামচ

মৌরি/ছফ-১ চা চামচ

শুকনা মরিচ-৩টি

জয়ত্রী-২.৫ টি

জয়ফল -১টি

দারুচিনি-৩ইঞ্চি

তেজপাতা-৭টি

তারকা মৌরি/তারা মসলা-৩টি

লবঙ্গ-১৫/১৬ টি

এলাচ-১০টি

কালো এলাচ-৩টি

কাবাবচিনি-১চা চামচ

গোলমরিচ-১.৫ চা চামচ

প্রস্তুতপ্রণালী :

প্রথমে বড় ও ছোট সাইজের মসলা আলাদা করে নিন।ছোট বড় আলাদা না করলে মসলা টালার সময় ছোট দানার মসলা পুড়ে যাবে।এবার সব মসলা ভাল করে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিন।মনে রাখবেন ভালো করে না শুকালে মসলা গুড়ো হবে না আর নষ্টও হয়ে যাবে।

এখন,গরম পেনে ছোট ও বড় দানার মসলা আলাদা আলাদা ১ মিনিট করে টেলে নিন।১ মিনিটের বেশী টালবেন না কারন মসলা পুড়ে যাবে।মসলা পুড়ে গেলে কালো হয়ে যাবে এবং যে রান্নায়য় ব্যবহার করা হবে তা তেঁতো লাগবে।

এবার এগুলো ভালো গুড়ো করে নিন।শুকনো বৈয়ামে করে রেখে দিন।একসাথে খুব বেশী পরিমাণে করবেন না।যদিও এই মসলা একবছরের মত ভাল থাকে তবুও ৩/৪ মাস পরে আগের মত ঘ্রাণ থাকে না।

এইভাবে বাইরে নরমাল টেম্পারেচারে রাখা যাবে।কিন্তু নরমাল ফ্রিজে রাখলে বেশী ভালো।

মসলা তো প্রস্তুত,এখন প্রশ্ন হচ্ছে এক কেজি মাংসের মধ্যে কি পরিমাণ দিতে হবে?এটা আসলে খুব বেশী দিতে হয় না।আমি এক কেজি মাংসে আধা চামচের একটু বেশী দিয়ে থাকি।

একটু কষ্ট করে বানিয়ে অনেক দিনের জন্য নিশ্চিত থাকুন ভালো ও মুখরোচক খাবারের জন্য।

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন