চটপট বানান দক্ষিণী লেমন রাইস

চটপট বানান দক্ষিণী লেমন রাইস

আমি যত রকম রাইস রেসিপি জানি সেগুলোর মধ্যে সব থেকে সহজ রেসিপি হয়ত বা এই দক্ষিণী লেমন রাইস। এই রেসিপিটা সহজ হবার কিছু কারণও আছে। প্রথমত এই দক্ষিণী লেমন রাইস বানাতে খুব কম উপকরণ দরকার হবে। আর এই উপকরণ গুলোও খুব সহজে বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। আর অন্য কারণটি হচ্ছে এই দক্ষিণী লেমন রাইস বানাতে সময় অনেক কম সময় এর দরকার হয়। শুধু মাত্র চালটা সিদ্ধ হতে যত টুকু সময় এর দরকার হবে। বাকি প্রসেস খুবই সময় সাশ্রয়ী। শুধু মাত্র তেল গরম করতে হবে। সেই সাথে অল্প কিছু উপকরণ তেলে ফোড়ন দিতে হবে। এই ফোড়নের মধ্যে সিদ্ধ করে নেয়া ভাতটা টস করে নিলেই হল। রেডি আপনার মন মত দক্ষিণী লেমন রাইস।

দক্ষিণী লেমন রাইস বানাতে যে যে উপকরণ দরকার হবে

  • বাসমতি চাল ২ কাপ
  • পানি ৪ কাপ
  • সরষের তেল ৩ টেবিল চামচ
  • আস্ত কালো সরষে ১/২ চা চামচ
  • আস্ত লাল সরষে ১/২ চা চামচ
  • আস্ত শুকনা মরিচ ২ থেকে ৩টি
  • আস্ত কাঁচা মরিচ ২ থেকে ৩টি
  • আস্ত কারি পাতা ১০ থেকে ১২টি
  • হিং খুব সামান্য ১ চিমটি পরিমাণ
  • হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ
  • আস্ত কাজু বাদাম ১০ থেকে ১২টি
  • আস্ত চিনা বাদাম ১০ থেকে ১২টি
  • সেসমি অয়েল পরিমাণ মত
  • লবণ পরিমাণ মত
  • চিনি ১/২ চা চামচ
  • বিট লবণ খুব সামান্য ১/৪ চা চামচ

দক্ষিণী লেমন রাইস যে পদ্ধতি অনুসরণ করে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। বাসমতি চাল থেকে সম্পূর্ণ পানি ঝরে যেতে মোটামুটি ২০ মিনিট থেকে ২৫ মিনিট সময় লাগতে পারে। চাল থেকে সব পানি ঝরে গিয়ে যখন চাল সম্পূর্ণ শুকিয়ে যাবে তখন একটা হাড়িতে তিন কাপ পানি গরম করতে দিতে হবে। পানিতে চাল বুঝে পরিমাণ মত লবণ দিতে হবে। পানি টগবগ করে ফুটে উঠলে এর মধ্যে শুকনো পরিস্কার চাল গুলো দিয়ে দিতে হবে। চুলার জ্বাল একদম কমিয়ে দিতে হবে। হাড়িতে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। তিন কাপ চালে চাল সিদ্ধ করতে দেবার ফলে বাসমতি চাল পুরোপুরি গলে যাবে না। অল্প একটু শক্ত থাকবে। যেহেতু চাল ভাজার সময় আর একটু রান্না হবে তাই চাল একটু শক্ত থাকতে থাকতেই নামিয়ে নিতে হবে। বাসমতি চাল সিদ্ধ হয়ে গেলে রান্নাটির পরবর্তি ধাপ শুরু করতে হবে।

২য় ধাপ

চাল সিদ্ধ হতে হতে কাজু বাদাম ও চিনা বাদাম রেডি করে নিতে হবে। আপনি চাইলে আরো দুই তিন রকম বাদাম আর কিশমিশ দক্ষিণী লেমন রাইস বানানোর সময় ব্যবহার করে দেখতে পারেন। তবে আমার কাছে মনে হয় অন্য বাদাম গুলো যেমন পেস্তা বাদাম কিংবা কাঠ বাদাম ব্যবহার করা হলে খুব একটা ভাল লাগে না। বরং কাজু বাদাম আর কাঠ বাদামই দক্ষিণী লেমন রাইস এর সাথে বেশি ভাল মত যায়। কাজু বাদাম আর চিনা বাদাম হালকা করে শুকনো একটা ফ্রাইং প্যানে ভেজে নিতে হবে। এই সময় চুলার জ্বাল খুব কম করে রাখতে হবে। কারণ এই দুই ধরণের বাদামই খুব তাড়াতাড়ি ভাজা হয়ে যায়। এই জন্য আপনি যদি বেশি আঁচে এগুলো ভাজতে শুরু করেন তাহলে এগুলো হটাত করে খুব দ্রুত পুড়ে যেতে পারে। আর খুব বেশি সময় ভাজারও দরকার নেই। দুই মিনিট থেকে তিন মিনিট বাদাম গুলো অল্প আঁচে ভেজে নিলেই হবে। বাদাম গুলো ভাজা হয়ে গেলে একটা পাত্রে তুলে রাখতে হবে।

৩য় ধাপ

এই বার একটা বড় কড়া নিতে হবে। কড়াতে সরষের তেল গরম করতে দিতে হবে। সরষের তেল গরম হয়ে গেলে আস্ত শুকনা মরিচ, আস্ত কালো সরষে আর আস্ত লাল সরষে ফোড়ন দিতে হবে। এই মশলা গুলো ফুটে গেলে এর মধ্যে চিরে রাখা কাঁচা মরিচ আর কারি পাতা ফোড়ন দিতে হবে। এরপর চুলার জ্বাল একদম কমিয়ে দিতে হবে। চুলার জ্বাল কমানোর পর খুব সামান্য হিং আর অল্প হলুদ গুড়া যোগ করতে হবে। হিং খুব তাড়াতাড়ি পুড়ে যায়। এজন্য চুলার জ্বাল একদম কমানো অবস্থায় হং যোগ করতে হয়। হিং আর হলুদ গুড়া যোগ করার সাথে সাথেই আগে থেকে লবণ দিয়ে সিদ্ধ করে রাখা বাসমতি চাল যোগ করে দিতে হবে। খুব ভাল করে সব রকম ফোড়ন এর মিশ্রণ এর সাথে সিদ্ধ করে রাখা বাসমতি চাল মিশিয়ে নিতে হবে। অল্প করে চিনি দিতে হবে।

এই সময় আপনি যদি চান্ তবে খুব সামান্য পরিমাণে একটু বিট লবণ যোগ করতে পারেন। এই উপকরণটি যে দিতেই হবে এমন কোন কথা নেই। বিট লবণ যোগ করা না হলেও দক্ষিণী লেমন রাইস খেতে ভাল লাগবে। তবে সামান্য একটু বিট লবণ যোগ করা হলে সেটি এই রাইসের রেসিপিতে একটা আলাদা মাত্রা যোগ করতে পারে। তবে অবশ্যই খুব সামান্য পরিমাণে বিট লবণ যোগ করবেন। যদি বেশি যোগ ক্রে ফেলেন তবে পুরো ডিশটার স্বাদই নষ্ট হয়ে যাবে। এরপর ভাল করে নেড়ে চেড়ে সব উপকরণ এক সাথে মিশিয়ে নিতে হবে। উপর থেকে আগে থেকে ভেজে রাখা কাজু বাদাম আর চিনা বাদাম ছড়িয়ে দিতে হবে। সেই সাথে খুব অল্প পরিমাণে সেসমি অয়েল উপর থেকে ছড়িয়ে দিতে হবে। সেসমি অয়েল সাধারণত এই ধরণের রান্নায় ব্যবহার করা হয় না। কিন্তু বিট লবণের মত এই উপকরণটিও এই দক্ষিণী লেমন রাইস বানাবার ক্ষেত্রে আলাদা একটা মাত্রা যোগ করে থাকে। এই বার সব কিছু খুব ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে।

নামানো্র ঠিক আগে আগে লেবুর রস ছড়িয়ে দিতে হবে। রাইসে এর সাথে লাবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে তাড়াতাড়ী করে। এরপর চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। একটা সার্ভিং ডিশে ঢেলে গরম গরম সার্ভ করতে হবে দক্ষিণী লেমন রাইস। যেকোন ধরণের রায়তার সাথে এই দক্ষিণী লেমন রাস খাওয়া যেতে পারে। আবার আপনার ইচ্ছা হলে মাংসের সাথে এটি সার্ভ করে দেখতে পারেন।

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

২ টি মন্তব্য
  1. Reply মেক্সিকান হট রাইস | চটপট - এসো নিজে করি আগস্ট ২০, ২০১৮ তারিখে ১১:৩৮ অপরাহ্ন

    […] ভিন্নধর্মী এক রাইস-মেক্সিকান হট রাইস। যেকোন মাংসের আইটেমের সাথে এই রাইস […]

  2. Reply সহজ ও ভিন্ন স্বাদের পেপার লেমন রাইস রেসিপি | চটপট - এসো নিজে করি অক্টোবর ৭, ২০১৮ তারিখে ১২:৪২ অপরাহ্ন

    […] আগে আমি আপনাদের সাথে দক্ষিণী লেমন রাইস রেসিপি শেয়ার করেছিলাম। ঐ রেসিপিটি […]

মন্তব্য করুন