মজাদার ডিমের কোরমা রেসিপি

মজাদার ডিমের কোরমা রেসিপি

ডিম সবার বাসাতেই সব সময় থাকে। আর এই জিনিসটা রান্না করতেও খুব কম সময়ের দরকার হয়। তাই যখন তখন বাসায় মেহমান আসলে, কিংবা হুট করে কোন কিছু রান্না করার দরকার হলে আমরা সাধারণত ডিম দিয়েই কিছু একটা রান্না করে থাকি। ডিম দিয়ে অনেক কিছুই রান্না করা যায়। যেমন ডিমের ঝাল ভুনা কিংবা ডিম আলু তরকারি। অনেকে তো আলু আর বেগুন দিয়েও ডিমের ঝোল রান্না করে থাকেন। তবে এই সব গুলো রেসিপিই অনেক কম্ন। এজন্য এই রেসিপি গুলো কম বেশি প্রায়ই আমরা খেয়ে থাকি। আর একারণেই এই খাবার গুলোর প্রতি আস্তে আস্তে একটু অনীহাও চলে আসে। এই অনীহা কাটাতে আজ আমি ডিমের অন্যরকম একটা রেসিপি শেয়ার করব। সেটি হচ্ছে মজাদার ডিমের কোরমা রেসিপি।

ডিমের কোরমা আসলে আমাদের দেশিয় কোন খাবার না। এটি মূলত একটা মোগলাই খাবার। এজন্য এই খাবারটি বানাত বেশ কিছু শাহি উপকরণ দরকার হবে। যেমন বিভিন্ন ধরণের বাদাম, দুধ ইত্যাদি। তবে এসব উপকরণের সব গুলোই আপনার আশে পাশের দোকানে কিনতে পাওয়া যায়। আর এই উপকরণ গুলো যে খুব বেশি পরিমাণে লাগে তাও কিন্তু না। খুব অল্প পরিমাণেই সব উপকরণ ব্যবহার করেই অত্যন্ত টেস্টি ডিমের কোরমা বানিয়ে ফেলা যায়। এই ডিমের কোরমা আপনি পোলাও কিংবা সাদা ভাত সব কিছুর সাথেই খেতে পারবেন। তবে ডিমের কোরমা সাদা ভাতের থেকে পোলাও কিংবা বিরিয়ানির সাথেই খেতে বেশি ভাল লাগে।

ডিমের কোরমা বানাতে সময় খুব বেশি দরকার হয় না। তবে এই রান্নাটি বেশ কয়েকটি ধাপ পার করে শেষ করতে হয়। এজন্য আগে থেকে সব প্রস্তুতি নিয়ে এই রান্নাটা শুরু করলে খুব ভাল হয়। এতে করে খুব ঝটপট আপনি ডিমের কোরমা রান্না করে ফেলতে পারবেন। আর রান্নাটা শেষ করতে খুব বেশি ঝামেলাও করতে হবে না। আসুন কি কি ধাপ অনুসরণ করে এই মজাদার ডিমের কোরমা বানাতে হবে তা দেখে নেই। তবে তার আগে এই মজাদার ডিমে কোরমা বানাতে আমাদের কোন কোন উপকরণ কি পরিমাণে যোগাড় করতে হবে তা দেখে নেই চলুন।

ডিমের কোরমা বানাতে যা যা লাগবে

বাদাম পেস্ট বানাতে যা যা লাগবে

  • কাজু বাদাম ৩ থেকে ৪টি
  • পেস্তা বাদাম ৩ থেকে ৪টি
  • চীনা বাদাম ৩ থেকে ৪টি
  • কাঠ বাদাম ৩ থেকে ৪টি
  • কিশমিশ ৩ থেকে ৪টি

আর যা যা উপকরণ লাগবে

  • ডিম ৪টি থেকে ৫টি
  • সয়াবিন তেল ৩ টেবিল চামচ
  • আস্ত ছোট এলাচ ১টি
  • দারচিনি ১ টুকরা
  • লবঙ্গ ২টি
  • তেজপাতা অর্ধেকটা
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ ২ তেবিল চামচ
  • পেঁয়াজ বাটা ২ চা চামচ
  • রসুন বাটা ১ চা চামচ
  • আদা বাটা ১ চ চামচ
  • মিহি করে কুচি করা টমেটো ২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করা ধনে পাতা ১ চা চামচ
  • ভাজা জিরা গুড়া ১/২ চা চামচ
  • ভাজা ধনে গুড়া ১/২ চা চামচ
  • কালো গোল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • দুধ ১ কাপ
  • লবণ পরিমাণ্মত
  • চিনি ১/২ চা চামচ

মজাদার ডিমের কোরমা যেভাবে বানাতে হবে

বাদাম পেস্ট যেভাবে বানাতে হবে

ডিমের কোরমা বানাতে স্পেশাল একটা বাদাম পেস্ট দরকার হয়। এজন্য রান্না শুরু করার পূর্বে এই বাদাম পেস্টটা বানিয়ে রাখলে খুব ভাল হয়। এর জন্য প্রথমে কিশমিশ গুলো ১০ মিনিট এর জন্য পানি ভিজিয়ে রাখতে হবে। সেই সাথে একটা শুকনা ফ্রাইং প্যান নিতে হবে। এর মধ্যে কাজু বাদাম, পেস্তা বাদাম, কাঠ বাদাম আর চিনা বাদাম নিতে হবে। খুব অল্প আঁচে নেড়ে চেড়ে বাদাম গুলো ভেজে নিতে হবে। খুব বেশি সময় ধরে ভাজার কোন দরকার নেই। দুই থেকে তিন মিনিট ভাজলেই হবে। অনেকে অবশ্য বাদাম গুলো না ভেজে কিশমিশের সাথে একবারে ভিজিয়ে রেখে দেন। তারপর ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নেন। কিন্তু আমার মনে বাদাম গুলো হালকা করে ভেজে নিলে এর মধ্যে কার ফ্লেভারটা সুন্দর ভাবে বের হয়ে আসে। এখন কিশমিশ থেকে পানি ফেলে দিতে হবে। একটা ব্লেন্ডারে ভেজে নেয়া বাদাম আর কিশমিশ এক সাথে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। যদি প্রয়োজন হয় তবে সামান্য পানি যোগ করা যেতে পারে।

ডিমের কোরমা যেভাবে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে ডিম গুলো খুব ভাল ভাবে সিদ্ধ করে নিতে হবে। সিদ্ধ ডিম ঠান্ডা হয়ে রুম তেম্পারেচারে আসলে এর থেকে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। সিদ্ধ ডিম এর খোসা ছাড়ানোর আগে এগুলো ঠান্দা করে রুম টেম্পারেচারে আনাটা খুব জরুরি। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় সিদ্ধ ডিম থেকে খোসা ছাড়ানোর সময় ডিমের কিছু অংশও ভেঙ্গে ভেঙ্গে উঠে আসে। ডিম থেকে খোসা ছাড়ানোর আগে যদি এটি ঠান্ডা করে নেওয়া হয় তবে আর এরকম হবে না।

ডিম থেকে খোসা ছাড়ানো হয়ে গেলে এগুলো একটা ছুরি দিয়ে হালকা করে চিড়ে নিতে হবে। এরপর চিরে নেয়া ডিম গুলো হালকা করে তেলে ভেজে নিতে হবে। খুব কড়া করে ভাজার দরকার নেই। হালকা একটু নেড়ে চেড়ে নিলেই হবে। এই ভাবে ডিমটা একটু ভেজে নিলে ডিমের চারপাশে ক্রিসপি একটা লেয়ার তৈরী হয়। যেটা ডিমের কোরমা খাওয়ার সময় খুব ভাল লাগে।

২য় ধাপ

এরপর ঐ সয়াবিন তেলে আস্ত এলাচ, আস্ত দারচিনি, আস্ত লবঙ্গ আর অর্ধেকটা তেজপাতা ফোড়ন দিতে হবে। মিনিট খানেক ভাজতে হবে। এক মিনিট পর যখন তেল থেকে খুব সুন্দর ফোড়নের একটা গন্ধ বের হবে তখন এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ দিয়ে দিতে হবে। পেঁয়াজ কুচি খুব সুন্দর করে লাল লাল করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ যখন ভাজা হয়ে গোল্ডেন ব্রাউন কালার হয়ে যাবে তখন এর মধ্যে আদা বাটা ও রসুন বাটা দিতে হবে। সেই সাথে ইচ্ছা হলে আরো একটু পেঁয়াজ বাটাও দিতে পারেন। আমি এই সময় দু চা চামচ পেঁয়াজ বাটাও দিয়ে দেই। এতে করে গ্রেভিটা বেশ ঘন হয়। এই বাটা মশলা গুলো একটু ভাজা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে মিহি করে কুচি করা টমেটো দিয়ে দিতে হবে। টমেটো গলে না যাওয়া পর্যন্ত ভাজতে হবে।

টমেটো যখন গলে যাবে এবং অন্যান্য মশলা কষে তেল উপরে উঠে আসবে, তখন এই মশলার মিশ্রণে ভাজা জিরা গুড়া, ভাজা ধনে গুড়া, লাল মরিচ গুড়া আর কালো গোলমরিচ গুরা দিয়ে দিতে হবে। ভাল করে কষাতে হবে। যদি প্রয়োজন হয় তবে একটু পানি যোগ করেও কষানো যেতে পারে। এরপর পরিমাণ মত লবণ ও চিনি যোগ করতে হবে। লবণ ও চিনি যোগ করার পর দুধ যোগ করতে হবে। দুধ মশলার সাথে মিশে যখন ফুটে উঠবে তখন এর মধ্যে আগে থেকে ভেজে রাখা সিদ্ধ ডিম গুলো দিয়ে দিতে হবে। একই সাথে আগে থেকে রেডি করে রাখা বাদাম ও কিশমিশের বেটে রাখা মিশণটাও যোগ করে দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে এবং চুলার আঁচ একদম কমিয়ে দিতে হবে। দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিট এই ভাবে রান্না করতে হবে। এরপর ঢাকনা খুলে উপর থেকে মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ছড়িয়ে দিতে হবে। আবারো ঢাকা দিয়ে আরো দুই মিনিট রান্না করতে হবে। এরপর একটা সার্ভিং ডিশে ঢেলে সার্ভ করতে হবে মজাদার ডিমের কোরমা।

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

১ টি মন্তব্য
  1. Reply মজাদার ডিমের ডুয়েল রেসিপি | চটপট - এসো নিজে করি জুলাই ২৬, ২০১৮ তারিখে ৮:৫২ অপরাহ্ন

    […] করে ফেলা যায় তার কোন ইয়ত্তা নেই। আর এই ডিম দিয়ে যা কিছুই রান্না করা হোক না কেন তা […]

মন্তব্য করুন