অন্যান্য

সুন্দর হাত-পায়ের ট্রিটমেন্ট এখন ঘরে বসেই সম্ভব

 

মেকাপ মেয়েদের একটা বিশেষ গয়না। কারো কারো কাছে প্রয়োজনীয়ও বটে। এমন মেয়ে খুঁজে পাওয়া দায় যে কিনা কখনও মেকাপ করেনি। মেকাপ করে চেহারার সৌন্দর্য তো বাড়ানো যায় কিন্তু হাত আর পাগুলো হয়ে থাকে ফিকে যা খুব বেমানান দেখায়। চেহারার সৌন্দর্যের সাথে সাথে হাত ও পায়ের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নিতে হবে হাত পায়ের নিয়মিত যত্ন। কিভাবে যত্ন নিবেন তা জানাতেই আজকের এই লেখা।

 

হাত-পায়ের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতেঃ

টমেটোর রস, হলুদ ও চন্দন গুঁড়া এবং গোলাপ জলের পেস্ট ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে বেশ কার্যকর ভূমিকা পালন করে। ২ টেবিল চামচ টমেটোর রস, ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া ও ২ টেবিল চামচ চন্দনের গুঁড়া একসাথে মিশিয়ে তাতে গোলাপ জল যোগ করে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। ফর্সা ত্বক পেতে এই পেস্টটিও হাত ও  পায়ে লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন, এরপর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ দিন এই পেস্ট ব্যবহার করলে আপনার হাত ও পায়ের ত্বক হয়ে উঠবে ফর্সা ও উজ্জ্বল।

ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে আরও একটি পেস্ট ব্যবহার করতে পারেন। সেই পেস্ট তৈরি করতে ২ টেবিল চামচ বেসন, ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া, ২ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ অথবা গোলাপ জল এবং কয়েক ফোটা লেবুর রস প্রয়োজন। এসকল উপাদানের একটি ঘন পেস্ট তৈরি করে সেটা সপ্তাহে ২ দিন হাত ও পায়ে লাগান। পেস্টটি লাগিয়ে ১৫ মিনিটের বেশি সময় রাখবেন না।

 

ফর্সা হাত-পা পেতেঃ

ফর্সা হাত-পা পেতে প্রতিদিন হাতে বা এক টুকরো তুলাতে কাঁচা দুধ নিয়ে হাত ও পায়ে লাগান। ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। দুধের ল্যাকটিক এসিড আপনার হাত ও পায়ের ত্বককে ভেতর থেকে ফর্সা করবে।

এছাড়াও হাত ও পা ফর্সা করতে আপনি দুধ ও কমলার শুকনা খোসার পেস্ট ব্যবহার করতে পারেন। এই পেস্ট তৈরি করতে প্রথমে কড়া রোদে কমলার খোসা ভালো ভাবে শুকিয়ে নিন। এবার শুকনা কমলার খোসাটা গুঁড়া করে খোসার পাউডার তৈরি করুন। এই পাউডারের সাথে দুধ মিশুয়ে দুধ ও কমলার শুকনা খোসার পেস্ট তৈরি করুন। হাত-পায়ের ময়লা দূর করে হাত-পা ফর্সা করতে পেস্টটি ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে, ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩ দিন এই পেস্টটি ব্যবহার করে নিজেই তফাৎ দেখুন।

 

হাত-পায়ের কালো দাগ বা রোদের পোড়া দাগ দূর করতেঃ

১। ইদানিং সূর্য্যি মামা যেভাবে জ্যোতি ছড়াচ্ছে তাতে ত্বক না পুড়ে উপায় কি! কিন্তু পুরো শরীরের মধ্যে হাত ও পায়ের ত্বকই বেশি ভিকটিম হয় এই পোড়ার। তাই হাত-পায়ে বেশি পোড়া কালো দাগ দেখা যায়। এই দাগ দূর করতে আপনি ঘৃতকুমারী (aloe vera) ও শশার রসের মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন। ১ টেবিল চামচ ঘৃতকুমারী (aloe vera) রস ও ৩ টেবিল চামচ শসার রসের একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। মিশ্রণটি রোদে পোড়া জায়গায় লাগিয়ে বা মাসাজ করে ১০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ২বার করে মিশ্রণটি লাগান। ধীরে ধীরে চমৎকার দেখুন।

 

২। হাত-পায়ের কালো দাগ দূর করতে দারুচিনি ও মধুর পেস্টের কোন বিকল্প নেই। এই পেস্ট তৈরি করতে প্রথমে দারুচিনি গুঁড়া করুন। এই দারুচিনি পাউডারে পরিমাণ মত পানি মিশিয়ে দারুচিনির পেস্ট তৈরি করুন। এবারে ২ চা চামচ দারুচিনির পেস্টের সাথে ২ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে দারুচিনি-মধুর পেস্ট তৈরি করে নিন। পেস্ট তৈরি হয়ে গেলে সেটি হাত ও পায়ে লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন রেখে ধুয়ে ফেলুন। ফর্সা হাত-পা পেতে এই পেস্টটি সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করুন।

 

৩। রোদের পোড়া বা কালো দাগ দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন পাকা পেঁপেও। পাকা পেঁপে ভালো ভাবে পেস্ট করে ১০ মিনিট হাত-পায়ে লাগিয়ে রাখুন। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ৩-৪ দিন পাকা পেঁপের পেস্ট ব্যবহার করে হাত ও পায়ের কালো দাগ দূর করতে পারেন।

 

৪। হাত-পায়ের কালো দাগ দূর করতে  আলু ও লেবুর রসের গুরুত্বও অনেক বেশি। ১ টেবিল চামচ আলুর রস ও এক টেবিল চামচ লেবুর রসের মিশ্রণ তৈরি করে সপ্তাহে ৪ দিন হাত ও পায়ে লাগাতে পারেন। এই মিশ্রণ লাগিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন, তারপর ধুয়ে ফেলুন। খুব দ্রুতই পজেটিভ রেজাল্ট পাবেন।

 

পায়ের দুর্গন্ধ দূর করতেঃ

হাত=পা সুন্দর হলেই শুধু হবে না। যদি আপনার পায়ে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে তাহলে এই সৌন্দর্য বৃথা। পায়ের দুর্গন্ধ কেবল বিব্রতকরই না, বেশ লজ্জাজনকও বটে। এই দুর্গন্ধ দূর করতে একটি কাপড়ে বেকিং সোডা নিয়ে কাপড়টি অথবা ব্যবহৃত টি ব্যাগ শুকিয়ে সেই টি ব্যাগ সারারাত জুতার ভেতরে রেখে দিন। এবং সকালে ব্যবহারের পূর্বে জুতার ভেতরে সামান্য ট্যালকম পাউডার ছিটিয়ে নিন। তাহলেই আর লজ্জায় পড়তে হবে না।

 

আশা রাখছি, আমার এই লেখা আপনাদের বেশ উপকারে আসবে।

মন্তব্যসমূহ

কল্পবিলাসী আমি বাস্তবতা থেকে অজ্ঞাত নই। আমি সেই বিহঙ্গিনী যে ডানা ভর্তি ভালোবাসা নিয়ে পাখা মেলতে চাই চিলের সাথে সুদূর আকাশে.. ডানা ঝাপটিয়ে লিখে যেতে চাই স্বরচিত কল্পকথা ও মুক্তির মন্ত্র I

মন্তব্য করুন