মেজবানি মাংসের মশলা তৈরি 

মেজবানি মাংসের মশলা তৈরি

চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী গরুর মাংসের এক রান্না মেজবানি মাংস। যা এখন সারা দেশের মানুষের কাছে খুব জনপ্রিয়।এই মাংস রান্নার জন্য মশলা ঠিকঠাক হওয়া খুব জরুরি। অনেক রকম মশলা ভেজে নিয়ে গুড়া করে তারপর এই মেজবানি মাংস রান্না করা হয়। এই মশলা গুঁড়া করার প্রক্রিয়াটাই একটু সময়সাপেক্ষ পাশাপাশি ঝামেলাকর। তাই মাংস রান্না করার আগে যদি মেজবানি মাংসের মশলা তৈরি করে রাখা যায় তবে এই মাংস রান্না করা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। আসুন তবে মেজবানি মাংসের মশলা তৈরির প্রণালী দেখে নিই।

 মেজবানি মাংসের মশলা তৈরি

উপকরন

আস্ত ধনে – ১ টেবিল চামচ

আস্ত জিরা – ১ টেবিল চামচ

মেথি – ১ চা চামচ

রাঁধুনি (এক প্রকার মশলা) – ১ চা চামচ

সাদা সরিষা – ১ চা চামচ

কালো গোল মরিচ – ১ চা চামচ

সাদা এলাচ – ৫/৬ টি

কালো এলাচ- ২/৩টি

লবঙ্গ – ৬/৪ টি

দারুচিনি- ২টি (২ ইঞ্চি পরিমান)

জায়ফল – একটা ফলের ১/২

জয়ত্রী- ১টা

শুকনো মরিচ – ৪/৫ টি

তেজপাতা – ২/৩ টি

প্রণালী

** প্রথমে একটা প্যান বা তাওয়া চুলায় গরম করে নিন।

** এবারে গরম প্যানে দারুচিনি, এলাচ, তেজপাতা একটু টেলে নিন। এরপর মেথি দিয়ে নাড়ুন।

** এরপর বাকি উপকরন গুলো দিয়ে টেলে নিন। চুলার আঁচ কমিয়ে নিতে হবে। অনবরত নাড়তে হবে। পুরে গেলে মশলার স্বাদ নস্ট হয়ে যাবে।

** হালকা টালা হতে হবে।মশলা টালা হয়ে গেলে একটু ঠাণ্ডা করে ব্লেন্ডারে গুঁড়া করে নিন। বা শিলপাটায় গুঁড়া করে নিন।

** মেজবানির মশলা গুঁড়া করে এয়ার টাইট বক্সে রেখে দিন।

** এই মশলা প্রায় ১৫ দিন- ১ মাস রাখা যাবে। তবে মশলাটা টাটকা দিলেই মাংসের ফ্লেভার ভাল আসে। তাই মাংস রান্নার ২/১ দিন আগে করে রাখা যায়।

মন্তব্যসমূহ

নিজের পরিচয় দিতে গেলে সবার আগে বলব, আমি একজন মা। তার সাথে একজন হোমমেকার, শিক্ষক ও ব্লগার। লিখতে ভালবাসি। তার চাইতে ভালবাসি পড়তে, জানতে। এইতো! ছোট এক জীবনে অনেক কিছু, আলহামদুলিল্লাহ!!

মন্তব্য করুন