মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের বিফ হাড়ি কাবাব রেসিপি

মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের বিফ হাড়ি কাবাব রেসিপি

কুরবানির ঈদ তো আমাদের দোড় গোড়ায় প্রায় এসেই পড়েছে। আর কুরবানির ঈদ মানেই তো নানা রকম মাংস এর পদ টেবিলে সাজিয়ে রাখা হবে। এই সময় নানা রকম ঝাল ঝাল আইটেম তো করা হবেই। সেই সাথে বিভিন্ন রকম কাবাব থাকলেও কিন্তু মন্দ হয় না। এই সময় কিন্তু আপনি বিফ হাড়ি কাবাব ট্রাই করে দেখতে পাড়েন।

এই বিফ হাড়ি কাবাব এর রেসিপিটি কিন্তু হোটেল রেস্টুরেন্ট গুলোতে খুব প্রচলিত। কিন্তু আমাদের বাসা বাড়িতে এটি সেরকম ভাবে বানানো হয়ে ওঠে না। আজ তাই এই অন্যরকম রেসিপিটাই আপনাদের সাথে শেয়ার করার জন্য নিয়ে আসলাম। বিফ হাড়ি কাবাব রান্না করাটা অবশ্য একটু সময়ের ব্যাপার। বেশ কয়েকটি ধাপ পার করে এই রান্নাটি শেষ করতে হয়। তাই সব উপকরণ এক সাথে গুছিয়ে নিয়ে রান্নাটা শুরু করলে খুব ভাল হয়। এতে করে হটাত করে কোন কিছু খোজার জন্য তাড়াহুড়া করা লাগে না। আর খুব সহজেই আস্তে আস্তে করে সব গুলো ধাপে রান্নাটা শেষ করে ফেলা যায়।

আসুন কি কি উপকরণ কি পরিমাণে ব্যবহার করে এই মজাদার ও ভিন্ন স্বাদ এর বিফ হাড়ি কাবাব বানাতে হবে তা দেখে নেই। আর সেই সাথে এই বিফ হাড়ি কাবাব কি কি ধাপ অনুসরণ করে বানাতে হবে তাও দেখে নেই চলুন।

বিফ হাড়ি কাবাব বানাতে যা যা লাগবে

কাবাব বানাতে যা যা লাগবে

  • গরুর মাংসের কিমা ১ কাপ
  • মিহি করে কুচি করা ধনে পাতা ৩ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করা পুদিনা পাতা ২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে নেয়া কাঁচা মরিচ ৪ থেকে ৫টি
  • ডিম ১টি
  • পাউরুটির স্লাইস ২ থেকে ৩টি
  • আদা বাটা ১ চা চামচ
  • রসুন বাটা ২ চা চামচ
  • ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা ধনে গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা গরম মশলা গুড়া ১ চা চামচ
  • লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • লবণ পরিমাণ মত
  • সাদা তেল পরিমাণ মত

গ্রেভি বানাতে যা যা লাগবে

  • পেঁয়াজ বড় সাইজের ২টা
  • টমেটো ৩টা
  • আদা ৩ ইঞ্চির একতা টুকরা
  • রসুন ৪ থেকে ৬টি কোয়া
  • কাঁচা মরিচ ৪ থেকে ৫টি
  • দই ১/২ কাপ
  • হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ
  • লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • লবণ পরিমান মত
  • ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা ধনে গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা গরম মশলা গুড়া ১ চা চামচ
  • সাদা তেল ১/২ কাপ

গার্নিশের জন্য যা যা লাগবে

  • মিহি করে কুচি করে নেয়া আদা ১/২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে নেয়া কাঁচা মরিচ ১ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে নেয়া পুদিনা পাতা ১ চা চামচ
  • ভাজা গরম মশলা গুড়া ১ চা চামচ

বিফ হাড়ি কাবাব যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

কাবাব বানাবার পদ্ধতি

১ম ধাপ

প্রথমে গরুর মাংসের কিমার সাথে আদা বাটা ও রসুন বাটা মেশাতে হবে। সেই সাথে লবণ, হলুদ গুড়া ও লাল মরিচ গুড়াও মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর ভাজা জিরা গুড়া, ভাজা ধনে গুড়া ও ভাজা গরম মশলা গুড়া যোগ করতে হবে। খুব ভাল ভাবে মেখে নিতে হবে।

এরপর এই মাংসের কিমার মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা, পুদিনা পাতা ও কাঁচা মরিচ দিয়ে দিতে হবে। কাঁচা মরিচের পরিমাণ আপনার ইচ্ছা মতন কম কিংবা বেশি দিতে পারেন। আমি ঝাল একটু কম খেতে পছন্দ করি তাই একটু কম দিয়েছি। আপনি আপনার পছন্দ মতন আর একটূ কাঁচা মরিচ যোগ করতে পাড়েন।

সব মশলা গুলো খুব ভাল ভাবে গরুর মাংসের কিমার সাথে মেখে নিতে হবে। এই ভাবে গরুর মাংসের কিমা মেরিনেট করে রেখে দিতে হবে এক ঘন্টা থেকে দেড় ঘন্টা। এই সময়টা মশলা মাখানো গরুর মাংস টুকু ফ্রিজে রেখে দিলে ভাল হয়। এতে করে গরুর মাংস বেশ নরম হয়ে যাবে। তখন এটাকে ভেজে নেয়াটা বেশ সহজ হয়ে যাবে। তাছাড়া গরুর মাংস কিছুক্ষণ সময় মেরিনেট করে রেখে দিলে এর মধ্যে মশলা গুলো আরো ভাল ভাবে ঢুকে যায়। ফলে এটা তখন খেতে আরো ভাল লাগে। চেষ্টা করবেন মাংসটা মেরিনেট করে ফ্রিজে রেখে দিতে। এতে করে মেরিনেশন প্রসেসটা আরো ভাল ভাবে সম্পন্ন হবে।

২য় ধাপ

গরুর মাংসের কিমা সব রকম মশলা এর সাথে ভাল মতন মেরিনেট হয়ে গেলে ঘন্টা দুই পর এটাকে ফ্রিজ থেকে বের করে নিতে হবে। এরপর এই মেরিনেট করে রাখা গরুর মাংস এর কিমার মধ্যে একটা ডিম ফেটে দিতে হবে। দুইটি থেকে তিনটি ব্রেড স্লাইস পানিতে ভিজিয়ে হাত দিয়ে চিপে পানি নিংড়ে নিতে হবে। এই ব্রেড স্লাইস গুলো মেরিনেট করে নেয়া গরুর মাংসের কিমার মধ্যে যোগ করতে হবে। কয়টি ব্রেড স্লাইস দিতে হবে তার কোন নির্দিস্ট মাপ নেই। আসলে এই ব্রেড স্লাইস গুলো বাইন্ডিং এর জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। তাই প্রথমে দুইটি থেকে তিনটি ব্যবহার করতে হবে। তারপর মাখানোর পর যদি মধ্যে হয় বাইন্ডিং ঠিক মতন হয়নি তখন আরো একটি কিংবা দুটি ব্রেড স্লাইস ব্যবহার করা যাবে।

৩য় ধাপ

এই বার একটা ফ্রাইং প্যানে সাদা তেল গরম করতে দিতে হবে। মোটামুটি ১/২ কাপ মত সাদা তেল দিতে হবে। এতে করে কাবাব গুলো শ্যালো ফ্রাই করা যাবে বেশ ডুবো তেলের মধ্যে। তেল গরম হয়ে গেলে মেরিনেট করে রাখা মাংসের কিমার মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট বল আকারে গড়ে নিয়ে গরম তেলে ছেড়ে দিতে হবে। এক পিঠ ভাজা না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। মোটামুটি পাঁচ থেকে ছয় মিনিট এক পিঠ ভাজার পর কাবাব গুলো উলটে দিতে হবে। অপর পিঠও এই ভাবে আরো পাঁচ থেকে ছয় মিনিট ভেজে নিতে হবে। এই সময়ে চুলার আঁচ একদম বাড়ানো যাবে না। মোটামুটি মিডিয়াম আঁচে কাবাব গুলো ধৈর্য সহকারে ভেজে নিতে হবে। তা না হলে কাবাবের ভিতরে কাঁচা থেকে যেতে পারে। সব গুলো কাবাব এই ভাবে একে একে ভেজে একটা প্লেটে তুলে রাখতে হবে।

গ্রেভি বানাবার নিয়ম

১ম ধাপ

একটা সস প্যানে বেশ খানিকটা পানি গরম করতে দিতে হবে। পানি ফুটে উঠলে ছিলে রাখা পেঁয়াজ, টমেটো। কাঁচা মরিচ, আদার টুকরা ও রসুন কোয়া দিয়ে দিতে হবে। মোটামুটি পাঁচ মিনিট থেকে ছয় মিনিট এই সব কয়টি মশলা গরম পানিতে সিদ্ধ করে নিতে হবে। এরপর একটা ঝাঝরিতে এই মশলা গুলো ঢেলে এগুলো থেকে বাড়তি পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। ৫ মিনিট থেকে ১০ মিনিট পর যখন মশলা গুলো ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন এগুলো একটা ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে।

২য় ধাপ

একটা ফ্রাইং প্যানে সাদা তেল গরম করতে দিতে হবে। এও মধ্যে আগে থেকে বেটে রাখা মশলার মিশ্রণ ঢেলে দিতে হবে। কিছুক্ষণ এই বাটা মশলার মিশ্রণ ভেজে নিতে হবে। এরপর এর মধ্যে টক দই দিয়ে দিতে হবে। সেই সাথে হলুদ গুড়া, লাল মরিচ গুড়া ও লবণ দিয়ে দিতে হবে। খুব ভাল মতন কষাতে হবে। এই ভাবে কষানোর সময় ভাজা জিরা গুড়া ভাজা ধনে গুড়া ও ভাজা গরম মশলা গুড়া যোগ করে দিতে হবে। মশলা গুলো যখন কষানো হয় তেল উপরে উঠে আসবে তখন আগে থেকে ভেজে নেয়া কাবাব গুলো এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। একটু কিছক্ষণ নেরে চেড়ে নামিয়ে নিতে হবে।

৩য় ধাপ

একতা পছন্দ মত সার্ভিং বোলে রেডি করে নেয়া কাবাব গুলো ঢেলে দিতে হবে। উপর থেকে মিহি করে কুচি করে নেয়া আদা, কাঁচা মরিচ ও পুদিনা পাতা দিয়ে গার্নিশ করে দিতে হবে। সেই সাথে একটু ভাজা গরম মশলা ছড়িয়ে দিতে হবে।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

১ টি মন্তব্য
  1. Reply সরষের তেলে গরুর মাংসের কালা ভুনা রেসিপি | চটপট - এসো নিজে করি আগস্ট ২২, ২০১৮ তারিখে ১:০৪ অপরাহ্ন

    […] ঈদ মানেই তো গরুর মাংস খাওয়ার ধুম পড়ে যাবে। আর গরুর মাংসের […]

মন্তব্য করুন