আমড়ার খোসার আচার

আমড়ার খোসার আচার

আমড়া খুব মজার এক টক জাতীয় ফল, আমড়ার নানারকম উপকারিতার কথা আমরা এর আগে জেনেছি। আমড়ার উপকারিতা নিয়ে পড়তে এখানে ক্লিক করুন।আজকে জেনে নিব কেমন করে আমড়ার ফেলনা খোসা দিয়ে দারুন স্বাদের আমড়ার খোসার আচার বানানো যায়।

উপকরণ

আমড়ার খোসা – ১ /২ কেজি

আমড়ার ভেতরের অংশ + কাটা টুকরা – ১ কাপ

সরিষা বাটা – ১/৪ কাপ

মরিচ গুঁড়া – ১ চা চামচ

হলুদ গুঁড়া – ১ চামচ

সরিষার তেল – ১ কাপ

লবন – স্বাদমত

ভাজা জিরার গুঁড়া – ১ চা চামচ

চিনি – ১ টেবিল চামচ / স্বাদমত

সিরকা – ১/৪ কাপ

এলাচ- দারুচিনি গুঁড়া – ২ চা চামচ

মৌরি গুঁড়া – ১/২ চা চামচ

প্রণালী

** আমড়ার খোসাগুলো একটু মোটা করে কেটে নিন। এরপর অল্প পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। এমনভাবে পানি দিতে হবে যেন আমড়ার খোসা সিদ্ধ হবার পরে অল্প পানি থাকে।

** আমড়ার কিছু কাটা টুকরা ও ভেতরের শাঁসের অংশও নিলে স্বাদ ভাল আসে। এই কাটা টুকরা ও শাঁস সিদ্ধ করে নিন। চাইলে খোসা, আমড়া কাটা ও শাঁস একসাথেই সিদ্ধ করে নিতে পারবেন।

** সব সিদ্ধ হয়ে গেলে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড/ পাটায় বেটে নিন। ব্লেন্ড করার আগে আমড়ার শাঁসগুলো আলাদা করে রেখে নিন।

** একটা কড়াইতে সরিষার তেল গরম করে সরিষা বাটা হলুদ –মরিচ গুঁড়া ও সামান্য লবন দিয়ে কষিয়ে নিন। এবারে আমড়ার খোসার ব্লেন্ড করা পেস্ট দিয়ে ভালভাবে ভুনে নিন।

** এবারে আমড়ার খোসার সাথে লবণ, চিনি (আমড়ার খোসার টকের উপর নির্ভর করে), এলাচ-দারুচিনি গুঁড়া দিয়ে মিশাতে হবে। চুলার আঁচ অল্প থাকবে।

** মশলা মিশে গেলে সিরকা দিয়ে দিন। এই আচারটা চুলার অল্প আঁচে বেশ কিছুক্ষন রেখে দিতে হবে। মাঝে মাঝে নেড়েচেড়ে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যাতে পুড়ে না যায়।

** আচারের পানি টেনে শুকনা শুকনা হলে মৌরি ও ভাজা জিরার গুঁড়া দিয়ে দিতে হবে।

** আচার শুকনো হয়ে তেল উপরে উঠে আসলে নামিয়ে নিন। ২/৩ দিন কড়া রোদে দিলে আরও স্বাদ বাড়বে।

মন্তব্যসমূহ

নিজের পরিচয় দিতে গেলে সবার আগে বলব, আমি একজন মা। তার সাথে একজন হোমমেকার, শিক্ষক ও ব্লগার। লিখতে ভালবাসি। তার চাইতে ভালবাসি পড়তে, জানতে। এইতো! ছোট এক জীবনে অনেক কিছু, আলহামদুলিল্লাহ!!

মন্তব্য করুন