মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের পনির কাঁচকলার কাটলেট

মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের পনির কাঁচকলার কাটলেট

আমাদের দেশে কাটলেট কিন্তু খুব জনপ্রিয় একটি খাবার। সব বাসাতেই কিন্তু কাটলেট বানানো হয়ে থাকে। তবে রাধুণী ভেদে এই সব কাটলেট এর রেসিপি অবশ্যই ভিন্নতা পেয়ে থাকে। আমরা সাধারণত তিন ধরণ এরকাটলেট খেয়ে থাকি। সেগুলো হল বিফ কাটলেট, মাটন কাটলেট আর চিকেন কাটলেট। তবে কেউ কেউ আবার ফিশ কাটলেটও বানিয়ে থাকেন। তবে এই সব ধরণ এর কাটলেটই কিন্তু নন ভেজিটেরিয়ানদের জন্য। তাই বলে যারা সবজি খান না তারা কি কাটলেট খাবেন না? অবশ্যই খাবেন। আজ এরকমই একটি স্মপূর্ণ ভেজিটেরিয়ান কাটলেট এর রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। রেসিপিটি হচ্ছে মজাদার ও ভিন্ন সাদের পনির কাঁচকলার কাটলেট।

পুষ্টি গুণ বিচার করলে পনির আর কাঁচকলা দুটৈ কিন্তু খুব পুষ্টিকর খাবার। পনির দুধ থেকে তৈরী হয়। তাই এই খাবারটায় ভরপুর পরিমাণে ক্যালশিয়াম ও প্রোটিন থাকে। অনেকে এজন্য পনিরকে ভেজিটেরিয়ান মিট বলে থাকেন। আর কাঁচকলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও মিনারেলস যেগুলো আমাদের শরীর এর জন্য অত্যন্ত উপকারি। এছাড়া কাঁচকলা হজম শক্তি বৃদ্ধিতেও খুব ভাল ভূমিকা রাখতে পারে। কিন্তু এই দুটো খাবার সাধারণ ভাবে রান্না করে দেখুন। এত শত উপকার আছে জানা সত্ত্বেও সবারই যেন এগুলো খেতে ভীষণ অনীহা। বাচ্চাদের কথা না হয় বাদই দিলাম। বড়োরাও সাধারণত এই সব খাবার সহজে খেতে চায় না। এই সব ক্ষেত্রে এই পনির কাঁচকলার কাটলেট রেসিপিটি আপনার খুবই কাজে দেবে। আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি আপনি যদি এই পনির কাঁচকলার কাটলেট বানান তবে আপনার বাসার ছোট বড় সব সদস্যই খুব মজা করে এটি খেয়ে নেবে। বিশেষ করে বাচ্চাদের  কাঁচকলা খাওয়ানোর খুব ভাল একটা পন্থা হতে পারে এই পনির কাঁচকলার কাটলেট।

পনির কাঁচকলার কাটলেট বানানোর জন্য সব ধরণ এর পনির ব্যবহার করলে কিন্তু হবে না। আমাদের দেশিয় ঢাকাই পনির ব্যবহার করতে হবে। এছাড়াও আরো বেশ কিছু উপকরণ আমাদের দরকার হবে এই পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাবার জন্য। আসুন কিভাবে এবং কি কি উপকরণ ব্যবহার করে এই পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাতে হবে তা জেনে নেই।

পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাতে যা যা লাগবে

পনিরের পুর বানাতে যা যা লাগবে

  • গ্রেট করা ঢাকাই পনির ১/২ কাপ
  • সাদা তেল ২ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ ২ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা রসুন ১ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা কাঁচা মরিচ ১ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা আদা ১/২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা টমেটো ২ টেবিল চামচ
  • লবণ পরিমাণ মত
  • চিনি ১/২ চা চামচ
  • ভাজা জিরা গুড়া ১/২ চা চামচ
  • ভাজা ধনে গুড়া ১/২ চা চামচ
  • ভাজা গরম মশলা গুড়া ১/৪ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ১ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা ১ চা চামচ

কাঁচকলার ভর্তা বানাতে যা যা লাগবে

  • কাঁচকলা ২টি
  • পানি পরিমাণ মত
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ ২ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা কাঁচা মরিচ ২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা রসুন ২ চা চামচ
  • লবণ পরিমাণ মত
  • ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা ধনে গুড়া ১/২ চা চামচ
  • ভাজা গরম মশলা গুড়া ১/২ চা চামচ
  • সরষের তেল ৩ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ২ চা চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা ১ চা চামচ

পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাতে আর যা যা লাগবে

  • কর্ণফ্লাওয়ার ৩ টেবিল চামচ
  • ময়দা ১ টেবিল চামচ
  • ডিম ১টি
  • লবণ অল্প পরিমাণ
  • পানি অল্প পরিমাণ
  • ব্রেড ক্রাম্ব পরিমাণ মত
  • সয়াবিন তেল ডুবো তেলে ভাজার জন্য

পনির কাঁচকলার কাটলেট যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

পনির এর পুর যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে পনির হালকা করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর একটা গ্রেটারে সুন্দর করে গ্রেট করে নিতে হবে। গ্রেটেরের মিহি অংশটা ব্যবহার করে গ্রেট করা যাবে না। এই রেসিপিতে পনির একদম গলে গেলে হবে না। একটু দানা দানা মত থাকতে হবে। এজন্য পনির গ্রেটার এর একটু মোটা গ্রেট হয় যেই অংশটা সেটা দিয়ে গ্রেট করে নিতে হবে। যাতে করে খাওয়ার সময় পনির হালকা হালকা গালে বাধে।

২য় ধাপ

প্রথমে একটা ফ্রাইং প্যানে সাদা তেল নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে এতে মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ, রসুন আর আদা দিয়ে দিতে হবে। অনেকে আস্ত আদার কুচি মুখে পড়লে খুব অসস্তি বোধ করেন। সেক্ষেত্রে হাফ চামচ আদা বাতাও ব্যাবহার করতে পাড়েন। পেঁয়াজ, রসুন ও আদা কুচি লাল লাল করে ভাজতে হবে। এই মশলা গুলো গোল্ডেন ব্রাউন কালার হয়ে গেলে এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা টমেটো ও কাঁচা মরিচ যোগ করতে হবে। টমেটো গলে যাওয়া না পর্যন্ত মিডিয়াম আঁচে নেড়ে চেড়ে মশ্লা গুলো কষাতে হবে।

৩য় ধাপ

টমেটো গলে গেলে এবং মশলা কষে তেল বের হয়ে আসলে এর মধ্যে আগে থেকে গ্রেট করে রাখা পনির দিয়ে দিতে হবে। হালকা হাতে নেড়ে চেড়ে মিশিয়ে দিতে হবে। এই সময় পরিমাণ মত লবণ ও কিছুটা চিনি যোগ করতে হবে। সেই সাথে ভাজা জিরা গুড়া আর ভাজা ধনে গুড়াও এই সময়ে যোগ করে দিতে হবে। ভাল মত সব মশলা এক সাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর উপর থেকে মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা, পুদিনা পাতা আর ভাজা গরম মশলা গুড়া ছড়িয়ে দিতে হবে। ভাল মত সব উপকরণ এক সাথে মিশিয়ে চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। ঢাকনা দিয়ে এই সময় পনির এর পুর দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিটের জন্য ঢেকে রাখতে হবে। এতে করে শেষ মুহূর্তে যোগ করা মশলা গুলোর গন্ধ খুব ভাল মত পনির এর পুর এর সাথে মিশে যাবে। দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিট পর ঢাকনা খুলে দিতে হবে। এরপর ঠান্ডা হয়ে গেলে পনির এর পুর ব্যবহার করার জন্য রেডি হয়ে যাবে।

কাঁচকলার ভর্তা যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

কাঁচকলা প্রথমে সম্পূর্ণ সিদ্ধ করে নিতে হবে। এরপর খোসা ছিলে সুন্দর করে ভর্তা করে নিতে হবে। খুব মসৃণ করে ভর্তা করে নিতে হবে। খেয়াল রাখবেন যেন কোন লাম্পস না থাকে। একদম সুন্দর মিহি ভর্তা হতে হবে। তা না হলে কাটলেট ভাল হবে না।

২য় ধাপ

একটা কড়াতে সরষের তেল গরম করতে হবে। সরষের তেল গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ আর রসুন দিতে হবে। সুন্দর করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ আর রসুন হালকা নরম হয়ে গেলে মিহি করে কুচি করে রাখা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিতে হবে। এই মশলা গুলো লাল লাল করে ভেজে নিতে হবে। মশলা ভাজা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে ভর্তা করে রাখা কাঁচকলা দিয়ে দিতে হবে। ভাল করে নেড়ে চেড়ে মিশিয়ে দিতে হবে। এরপর এর মধ্যে পরিমাণ মত লবণ দিতে হবে। সেই সাথে ভাজা জিরা গুড়া আর ভাজা ধনে গুড়াও দিয়ে দিতে হবে। খুব ভাল মত নেড়ে চেড়ে রান্না করতে হবে।

কিছুক্ষণ পর দেখবেন কাঁচকলা কড়ার গা থেকে তেল ছেড়ে দিচ্ছে। এই সময় বুঝতে হবে যে এটা হয়ে গেছে। তখন এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা আর ধনে পাতা ছড়িয়ে দিতে হবে। সেই সাথে ভাজা গরম মশলা গুড়াও ছড়িয়ে দিতে হবে। আরো দুই মিনিট থেকে তিন মিনিট রান্না করতে হবে যাতে করে এই মশলা গুলোর ফ্লেভারও কাঁচকলার সাথে মিশে যেতে পারে। এরপর চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। কাঁচকলা ভর্তা একটা প্লেটে ঢেলে রাখতে হবে। মোটামুটি দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। মোটামুটি এই সম এর মধ্যে গরম কাঁচকলা ভর্তা ঠান্ডা হয়ে যাবে। তখন বাকি ধাপ গুলো অনুসরণ করে পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাতে হবে।

পনির কাঁচকলার কাটলেট বানানোর বাকি ধাপ সমূহ

১ম ধাপ

কাঁচকলার ভর্তা ঠান্ডা হয়ে গেলে অল্প অল্প করে কাঁচকলার ভর্তা নিতে হবে। এর মধ্যে অল্প অল্প করে পনির এর পুর ভরে কাতোলেট এর আকারে গরে নিতে হবে। এভাবে সব কয়টি কাটলেট গড়ে রেখে দিতে হবে।

২য় ধাপ

একটা পাত্রে কর্ণফ্লাওয়ার, ময়দা ও লবণ নিতে হবে। একটা কাটা চামচ দিয়ে এই শুকনো উপকরণ গুলো আগে মেখে নিতে হবে। এর পরে এর মধ্যে প্রথমে একটা ডিম ফেটে দিতে হবে। ডিম এর সাথে এই ময়দা ও কর্ণফ্লাওয়ার এর মিশ্রণ খুব ভাল ভাবে মেখে নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন কোন লাম্পস না থাকে। ডিম এর সাথে ময়দা ও কর্ণফ্লাওয়ারের মিশ্রণ যদি খুব ঘন হয়ে যায় তবে অল্প পরিমাণে পানি যোগ করা যেতে পারে। তবে এই মিশ্রণ যেন খুব বেশি পাতলা না হয় সেদিকেও লক্ষ রাখতে হবে। এই ময়দা, কর্ণফ্লাওয়ার ও ডিম এর গোলা যদি বেশি পাতলা হয়ে যায় তবে পরবর্তিতে ব্রেড ক্রাম্ব এর সাথে আটকাবে না।

৩য় ধাপ

একটা প্লেটে ব্রেড ক্রাম্ব ছড়িয়ে দিতে হবে। এই বার আগে থেকে রেডি করে রাখা পনির কাঁচকলার কাটলেট গুলো প্রথমে ময়দা, কর্ণফ্লাওয়ার ও ডিমের গোলায় ডুবিয়ে নিতে হবে। তারপর সেগুলোকে ব্রেড ক্রাম্বে গড়িয়ে নিতে হবে। এভাবে সব কয়টি পনির কাঁচকলার কাটলেট রেডি করে রেখে দিতে হবে।

পনির কাঁচকলার কাটলেট গুলো এই অবস্থায় অন্তত দুই ঘন্টা থেকে তিন ঘন্টা সময় নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। এতে করে ব্রেড ক্রাম্বের কোটিং কাটলেট এর গায়ে শক্ত ভাবে লেগে যাবে। পনির কাঁচকলার কাটলেট বানাবার ক্ষেত্রে এই স্টেপটা খুবই জরুরী। কারণ আপনি যদি ফ্রিজে না রেখে ব্রেড ক্রাম্ব কাটলেটের গায়ে লাগাবার সাথে সাথে তা তেলে ভাজতে শুরু করে, তবে গরম তেলে দেবার সাথে সাথেই বেশির ভাগ ব্রেড ক্রাম্ব কাটলেতের গা থেকে খুলে পড়ে যাবে। তাই কাটলেট বানাবার আগে দুই ঘন্টা থেকে তিন ঘন্টা ফ্রিজে রেখে দেয়াটা খুবই জরুরী।

আর একটা ব্যাপার। আপনি ইচ্ছা হলে পনির কাঁচকলার কাটলেট এই অবস্থায় রেডি করে ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পাড়েন। এরপর যখনই খাবেন তখন ফ্রিজ থেকে বের করে ভেজে নিলেই রেডি হয়ে যাবে মজাদার পনির কাঁচকলার কাটলেট।

৪র্থ ধাপ

এই বার একটা ফ্রাইং প্যানে বেশি করে সাদা তেল গরম করতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে আগে থেকে রেডি করে রাখা পনির কাঁচকলার কাটলেট গুলো দিয়ে দিতে হবে। মোটামুটি মিডিয়াম আঁচে এগুলো ভাজতে হবে। তিন মিনিট থেকে চার মিনিট সময় লাগবে এক পিঠ ভাজা হতে। কাটলেট গুলোর এক পিঠ ভাজা হয়ে গেলে আস্তে করে উলতে দিতে হবে। অপর পিঠও একই ভাবে তিন মিনিট থেকে চার মিনিট ভেজে নিতে হবে। পনির কাঁচকলার কাটলেট এর দুই পিঠই গোল্ডেন ব্রাউন কালার হয়ে গেলে নামিয়ে নিতে হবে। এরপর আপনার পছন্দ মত পাত্রে

সাজিয়ে সার্ভ করতে হবে মজাদার ও ভিন্ন স্বাদের পনির কাঁচকলার কাটলেট।

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন