হাতের সান ট্যান দূর করতে দারুণ একটা বডি প্যাক

হাতের সান ট্যান দূর করতে দারুণ একটা বডি প্যাক

আমাদের দেশে সারা বছর আবহাওয়ার যত তারতম্যই ঘটু না কেন, একটা জিনিস কিন্তু একদম কমন থাকে। সেটা হচ্ছে তীব্র রোদ। গরম কাল হলে তো কথাই নেই, কিন্তু বর্ষা কাল আর শীত কালেও এই কড়া রোদ থেকে আমাদের নিস্তার নেই। এই রওদের কারণে বাইরে বের হলেই আমাদের পুরো শরীরের ত্বকে সান ট্যান পড়ে যায়। ফল স্বরূপ ত্বক কালো হয়ে যায়। আমরা আমাদের শত ব্যস্ততার মাঝে আমাদের মুখের ত্বকের সান ট্যান দূর করার জন্য নানা রকম উপায় হয়ত অবলম্বন করি। কিন্তু সান ট্যান তো শুধু মুখে পড়ে না। আমাদের হাতেও সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি সমান ভাবে ক্ষতি করে। কিন্তু শুধু মুখের যত্ন নিয়ে হাতকে অবহেলা করা হয় বলে দিনে দিনে এই সান ট্যান আরো বেশি বেড়ে যায়। আজ তাই আমি হাতের সান ট্যান দূর করার জন্য একটি বডি প্যাক নিয়ে কথা বলব। মাত্র তিনটি উপকরণ দিয়ে এই সান ট্যান রিমুভাল বডি প্যাক বানানো যাবে।

বডি প্যাক বানাতে যা যা লাগবে

  • বেসন ৩ টেবিল চামচ
  • খাটি হলুদ গুড়া ১ চা চামচ
  • কাঁচা দুধ ৫ টেবিল চামচ

যে ভাবে বডি প্যাকটি বানাতে হবে

একটা পাত্রে বেসন ও খাটি হলুদ গুড়া নিতে হবে। এই শুকনা উপকরণ দুটা প্রথমে ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে। এর পরে এতে অল্প অল্প করে কাঁচা দুধ যোগ করতে হবে আর মেশাতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন কোন লাম্পস না বাধে। আর উপরে উল্লেখিত পরিমাণে কাঁচা দুধ যোগ করার পর যদি মনে হয় পেস্টটা একটু শুকনা শুকনা লাগছে তাহলে আরো একটূ কাঁচা দুধ যোগ করা যেতে পারে। খুব স্মুথ একটা পেস্ট তৈরী করে নিতে হবে।

বডি প্যাক যে পদ্ধতিতে ব্যবহার করতে হবে

প্রথমে সাবান বা বডি ওয়াশ দিয়ে হাত ভাল করে পরিস্কার করে নিতে হবে। এর পরে হাত শুকনা করে মুছে নিতে হবে। এর পরে এই বডি প্যাক সারা হাতের উপর সমান ভাবে লাগিয়ে নিতে হবে। মোটামুটি আধা ঘটা মত অপেক্ষা করতে হবে। এই সময় এর মধ্যে এই প্যাকটি সম্পূর্ণ শুকিয়ে যাবার কথা। যদি না শুকায় তবে আরো পাঁচ মিনিট থেকে দশ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভাল মত ঘষে ঘষে প্যাকটী তুলে পরিস্কার করে ফেলতে হবে। এই বডি প্যাক সপ্তাহে অন্তত দুই দিন ব্যবহার করতে হবে। তাহলে দুই সপ্তাহ থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে হাত থেকে সান ট্যান দূর হয়ে যাবে।

বডি প্যাক ব্যবহারের উপকারিতা

এই বডি প্যাক বানাতে যে তিনটি উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে এই তিনটি উপকরণই ত্বক থেকে ট্যান দূর করতে সাহায্য করে। এই উপকরণ গুলোর মধ্যে হলুদ প্রাকৃতিক ব্লিচের মত কাজ করে ত্বককে ধীরে ধীরে হালকা করে তোলে। বেসন প্রাকৃতিক ক্লিনজারের মত কাজ করে এবং ত্বকে জমে থাকা ময়লা পরিস্কার করে ফেলে। আর কাঁচা দুধ ত্বকে আর্দ্রতা যোগায় সেই সাথে এর রঙ হালকা করে দেয়। ফলে রোদে কালো হয়ে যাওয়া ত্বক আস্তে আস্তে উজ্জ্বল ও ফর্সা হয়ে ওঠে।

বডি প্যাক ব্যবহারের সতর্কতা

এই বডি প্যাক ব্যবহার করার সময় কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। প্রথমত অবশ্যই খাটি হলুদ গুড়া ব্যবহার করতে হবে। বাজারে যেসব প্যাকেটজাত হলুদ গুড়া পাওয়া যায় সেগুলোতে সাধারণত রঙ সহ বিভিন্ন কেমিকেল থাকে। এই ধরণের হলুদ গুড়া ব্যবহার করলে ত্বকের ভাও হবার থেকে ক্ষতি হবার আশঙ্কা বেশি থাকে।

আর এই বডি প্যাকে বেশ ভাল পরিমাণে খাটি হলুদ গুড়া ব্যবহার করা হয়েছে। তাই এটি ব্যবহার করে কোন ভাবেই রোদে বের হওয়া যাবে না। তাহলে ত্বক পুড়ে যেয়ে আরো কালো হয়ে যাবে। এমনকি এই বডি প্যাক লাগানোর দুই থেকে তিন ঘন্টার মধ্যে চুলার পাশে রান্নাও করা যাবে না। এই কারণে খুব ভাল হয় যদি এই বডি প্যাকটি রাতে ঘুমাতে যাবার আগে ব্যবহার করা যায়।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন