ওয়েট লস ড্রিঙ্ক গাজর লাউ স্মুদি

ওয়েট লস ড্রিঙ্ক গাজর লাউ স্মুদি

যারা ওজন কমাতে চান, কিংবা দীর্ঘ সময় ধরে ওজন কমানোর জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন তাদের জন্য স্মুদি খুব জরুরী একটা খাবার। এর বিভিন্ন কারণ আছে। প্রথমত স্মুদি লিকুইড ফর্মে থাকে বলে এটি সহজে হজম হয়ে যায় যেটা ওজন কমানোর ক্ষেত্রে খুবই জরুরী। দ্বিতীয়ত স্মুদি সাধারণত খেতে বেশ টেস্টি হয়ে থাকে। যদি সঠিক উপকরণ সঠিক পরিমাণে দিয়ে স্মুদি বানানো যায় তবে এটি কিন্তু খুব মজা করেই খাওয়া যায়। এছাড়া স্মুদির মধ্যে আপনার অপছন্দের শাক কিংবা সবজি মিশিয়ে দিলেও সাধারণত এর স্বাদ অত বেশি বোঝা যায় না। ফলে যে কোন বিস্বাদ অথচ পুষ্টিকর সবজি খাওয়ার একটা দারুণ উপায় হতে পারে এই স্মুদি।

যেমন ধরুন লাউ। লাউ খুব উপকারি একটা সবজি। বিশেষ করে গরম এর সময় তো বেশি করে লাউ খাওয়া উচিত। কারণ এটি গরমের মধ্যে শরীর ঠান্ডা করে। আবার লাউ খুব সহজেই হজমও হয়ে যায়। আর যদি খালি পেটে লাউ খাওয়া যায় তাহলে এটি আমাদের শরীরকে ডিটক্স করতেও সাহায্য করে। কিন্তু লাউ এমনি বিস্বাদ একটা খাবার যেটা ছেলে বুড়ো কেউই খুব একটা পছন্দ করে খেতে চায় না। অথচ আপনি যদি আরো দুই একটি ভিন্ন ভিন্ন ধরণের উপকরণ মিশিয়ে এই লাউ দিয়েই একতা স্মুদি বানিয়ে দেখুন না? যদি সঠিক ভাবে বানাতে পাড়েন তাহলে খাওয়ার সময় বেশির ভাগ মানুষ বুঝতেই পারবে না যে স্মুদি লাউ দিয়ে বানানো হয়েছে। যেমন লাউ এর সাথে গাজর যোগ করে দিন। গাজর এমনিতেই বেশ মিষ্টি আর সুস্বাদু একটা সবজি। তাই লাউ এর সাথে যখন গাজর মিশিয়ে একটা স্মুদি তৈরী করা হবে তখন এর স্বাদ অন্য যে কোন ফলের স্মুদি কিংবা জুস থেকে কোন অংশেই কম হবে না।

গাজর লাউ স্মুদি বানাতে যা যা লাগবে

আজ এজন্যই আমি আপনাদের সাথে গাজর লাউ স্মুদির রেসিপি শেয়ার করব। এই স্মুদি বানাতে লাউ ও গাজর তো লাগবেই। কিন্তু এই দুটি প্রধাণ উপকরণ বাদে আর কিছু খুব সাধারণ উপকরণ দরকার হবে যেগুলো সব সময় আমাদের হাতের কাছেই থাকে। আসুন তাহলে উপকরণ গুলো কি কি এবং কিভাবে স্মুদিটি বানাতে হবে তা দেখে নেই।

  • লাউ অর্ধেকটা
  • গাজর ২টি
  • আদা ১ ইঞ্চি টুকরা
  • মধু ৪ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা ২ টেবিল চামচ
  • মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ২ টেবিল চামচ
  • বিট লবণ ১/৪ চা চামচ
  • ভাজা কালো গোল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ
  • ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ

গাজর লাউ স্মুদি যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে গাজর ও লাউ রেডি করে নিতে হবে। এর জন্য গাজর ভাল করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। একটা গ্রেটারে গাজর গ্রেট করে নিতে হবে।

একই ভাবে লাউ এর খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এবং ধুয়ে লাউ একটা গ্রেটারে গ্রেট করে নিতে হবে। অবশ্যই জালি লাউ ব্যবহার করতে হবে। বেশি বয়স্ক লাউ ব্যবহার করলেস্মুদি খাওয়ার সময় আঁশ আঁশ লাগতে পারে।

এখন এই স্মুদি দুই আবে খাওয়া যেতে পারে। এক একটু পাতলা করে। অথবা সাধারণ সবজির স্মুদির মত ঘন ভাবে। যদি আপনি পাতলা স্মুদি খেতে চান তবে গ্রেট করে নেয়া গাজর একটা ছাকনির উপর রেখে হাত দিয়ে চেপে এর থেকে রস বের করে নিন। একই ভাবে গ্রেট করে রাখা লাউ থেকেও রস বের করে নিতে হবে। এরপর এই গাজর ও লাউ এর রস দিয়ে বাকি প্রসেসটা কমপ্লিট করতে হবে। আর আপনি যদি ঘন স্মিদি খেতে চান তবে এই গ্রেট করা গাজর ও লাউ সরাসরি ব্লেন্ডারে দিয়ে বাকি উপকরণের সাথে বেন্ড করে স্মুদি বানাতে হবে।

২য় ধাপ

ব্লেন্ডারে গাজর ও লাউ নিতে হবে। এর মধ্যে আদার টুকরা গ্রেট করে দিতে হবে। সেই সাথে মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ও পুদিনা পাতা যোগ করতে হবে। মিষ্টি স্বাদের জন্য মধু যোগ করতে হবে। এবং একটু চটপটে স্বাদের জন্য বিট লবণ, ভাজা জিরা গুড়া ও ভাজা কালো গোল মরিচ গুড়া যোগ করতে হবে। সব কটি উপকরণ খুব ভাল ভাবে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এর পর আপনার পছন্দ মত গ্লাসে ঢেলে সার্ভ করতে হবে। এই গাজর লাউ স্মুদি খাবার সব থেকে ভাল সময় হচ্ছে সকাল বেলা। এবং ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে। তাহলে এই স্মুদি ডিটক্স ড্রিঙ্ক হিসেবে কাজ করে। তাছাড়া দিনে কিংবা রাতে যে কোন সময় ব্যায়াম করার পর এনার্জি ড্রিঙ্ক হিসেবেও এই গাজর লাউ স্মুদি খুব ভাল একটা অপশন হতে পারে। আর এই গাজর লাউ স্মুদি ঠান্ডা কিংবা গরম দুই ভাবেই খেত ভাল লাগবে।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন