ডিমের সাদা ভুনা

ডিমের সাদা ভুনা

ডিম এমন একটা খাবার যেটা সব রকম ভাবেই ভাল লাগে। তা সে ঝাল ঝাল ভুনা হোক কিংবা আলু দিয়ে পাতলা ঝোল। এমনি সাধারণ ডিম পোচও অনেকের প্রিয় খাবারের তালিকার মধ্যে পড়ে। একারণেই সব বাড়িতেই খাবার টেবিলে ডিমের নানা রকম আইটেম খুব সাধারণ একটি ঘটনা। আমিও ভিন্ন ভিন্ন ভাবে ডিম রান্না করার চেষ্ট করে থাকি। এরকম চেষ্টা গুলোর একটা ফলাফল হচ্ছে এই ডিমের সাদা ভুনা।

ডিমের সাদা ভুনা নামটা শুনতে হয়ত একটু হাস্যকর শোনায়। আসলে এরকম নামকরণের কারণ হচ্ছে এই খাবারটি দেখতে একদম দুধের মত সাদা রঙের হয়। এর কারণও আছে। পুরো রান্নাতে এখানে কোন পানি ব্যবহার করা হয় না। পুরো রান্নাটাই দুধে করা হয়ে থাকে। এই জন্যই এই খাবারটার এমন নামকরণ। আসলে এই রান্নাটার মধ্যে একটা শাহি শাহি ভাব আছে। এই রান্নাটা দুধ দিয়ে করা হয়। সেই সাথে এতে কাজু বাদাম বাটা ব্যবহার করা হয়। ফলে এটি বেশ রিচ আর ক্রীমি স্বাদের হয়ে থাকে।

এই ডিমের সাদা ভুনা রেসিপিটি সব থেকে বেশি ভাল লাগে প্লেন পোলাও এর সাথে। তবে বিরিয়ানি কিংবা খিচুড়ির সাথেও এটি বেশ ভাল লাগে। আর আপনার ইচ্ছা হলে এটী সাদা ভাতের সাথেও খেয়ে দেখতে পাড়েন। এই ডিমের সাদা ভুনা বানাবার জন্য উপকরণ কিন্তু খুব বেশি লাগে না। ঘরে থাকা অল্প কিছু উপকরণ দিয়ে খুব সাধারণ ভাবে এবং খুব অল্প সময়েই এই ডিমের সাদা ভুনা রেডি করে ফেলা যায়। আসুন দেরি না করে কিভাবে এই ডিমের সাদা ভুনা বানাতে হবে তা দেখে নেই। সেই সাথে এটি বানাতে কি কি উপকরণ কত টুকু পরিমাণে দরকার হবে তাও জেনে নেই।

ডিমের সাদা ভুনা বানাতে যে যে উপকরণ দরকার হবে

  • ডিম ৪টি
  • সাদা তেল ২ টেবিল চামচ
  • ঘি ২ চা চামচ
  • আস্ত এলাচ ১টি
  • পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ
  • আদা বাটা ১ চা চামচ
  • রসুন বাটা ২ চা চামচ
  • লম্বালম্বি ভাবে চেরা কাঁচা মরিচ ৬ থেকে ৭টি
  • লবণ পরিমাণ মত
  • চিনি ১/২ চা চামচ
  • দুধ দেড় কাপ
  • এলাচ গুড়া ১/২ চা চামচ
  • কাজু বাদাম বাটা ২ টেবিল চামচ
  • বেরেস্তা ২ চা চামচ

ডিমের সাদা ভুনা যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

১ম ধাপ

প্রথমে ডিম সিদ্ধ করে নিতেহবে। সিদ্ধ ডিম থেকে খোসা ছিলে নিতে হবে। এক্ষেত্রে একটা টিপস দিয়ে রাখি। অনেক সময় দেখা যায় সিদ্ধ ডিম থেকে খোসা ছাড়ানোর সময় ডিম ভেঙ্গে ভেঙ্গে যায়। এই সমস্যা সমাধাণ করার একটা সহজ উপায় আছে। সেটি হচ্ছে ডিম সিদ্ধ করার সময় পানিতে খুব সামান্য প্রায় ১/২ চা চামচ মত ভিনেগার যোগ করতে হবে। আর ডিম পুরোপুরি সিদ্ধ হয়ে যাবার পরও কিছুক্ষণ গরম পানির মধ্যে রাখতে হবে। এরপর পানি থেকে ডিম গুলো তুলে নিয়ে কিছু সময় অপেক্ষা করতে হবে। ডিম গুলো যখন পুরোপুরি ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন এর থেকে খোসা ছাড়াতে হবে। তাহলে আর খোসা ছাড়ানোর সময় ডিম ভেঙ্গে যাবে না।

২য় ধাপ

কড়াতে অল্প পরিমাণে সাদা তেল গরম করতে হবে। সিদ্ধ ডিম ছুরি দিয়ে হালকা করে চিরে নিতে হবে। এর গায়ে অল্প লবণ ও এলাচ গুরা ছড়িয়ে মেখে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে সিদ্ধ ডিম এতে ভেজে নিতে হবে। খুব বেশি ভাজার দরকার নেই। হালকা করে ভেজে নিলেই হবে। মোটামুটি দুই মিনিট থেকে তিন মিনিট ভেজে নিলেই হবে।

৩য় ধাপ

এই বার একটা কড়াতে সাদা তেল ও ঘি এক সাথে গরম করতে দিতে হবে। সাদা তেল ও ঘি একটু গরম হলে এতে আস্ত এলাচ ফোড়ন দিতে হবে। এরপর এর মধ্যে একে একে পেঁয়াজ বাটা, আদা বাটা ও রসুন বাটা দিয়ে দিতে হবে। ভাও করে কষাতে হবে। যখন মনে হবে বাটা মশলা গুলোর কাঁচা কাঁচা ভাব কমে এসেছে এবং এগুলো থেকে তেল ছেড়ে দিয়েছে তখন এর মধ্যে লম্বালম্বি ভাবে চেরা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিতে হবে। হালকা নেড়ে চেড়ে ওল্প করে দুধ যোগ করতে হবে। সেই সাথে কাজু বাদাম বাটা যোগ করে দিতে হবে। কিছু সময় কষাতে হবে।

৪র্থ ধাপ

মশলা গুলো মোটামুটি কষানো হয়ে গেলে এর মধ্যে বাকি দুধ টুকু ঢেলে দিতে হবে। দুধ ফুটে উঠলে এর মধ্যে পরিমাণ মত লবণ ও চিনি যোগ করে দিতে হবে। নেরে চেড়ে মিশিয়ে দিতে হবে। এর পরে আগে থেকে ভেজে রাখা সিদ্ধ ডিম গুলো বসিয়ে দিতে হবে। চুলার আঁচ একদম কমিয়ে দিতে হবে। এবং ঢাকনা দিয়ে রান্নাটা কিছু সময় মজতে দিতে হবে। পাঁচ মিনিট থেকে ছয় মিনিট পর ঢাকনা খুলে উপর থেকে এলাচ গুরা আর পেঁয়াজ বেরেস্তা ছড়িয়ে দিতে হবে। চুলা বন্ধ করে দিতে হবে। তবে ঢাকনা দিয়ে আরো কিছু সময় দমে রাখতে হবে। এরপর একটা পছন্দ মত সার্ভিং পাত্রে ঢেলে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে চমতকার ও ভিন্ন স্বাদের ডিমের সাদা ভুনা। সার্ভ করার সময় উপর থেকে একটু পেঁয়াজ বেরেস্তা ছড়িয়ে দিতে ভুলবেন না যেন।

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন