শুষ্ক ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে নারকেল তেলের ফেস প্যাক

শুষ্ক ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে নারকেল তেলের ফেস প্যাক

আসি আসি করে শীত কাল কিন্তু আমাদের দেশে এসেই পড়েছে। আর কিছু দিন পরেই কনকনে ঠান্ডা শীত আমাদের দরজায় এসে টোক টক করে কড়া নাড়বে। যদিও এখনো আমরা সেই ভাবে শীতের আগমন বুঝতে পারছি না। তবে আমাদের মধ্যে কিছু কিছু মানুষ কিন্তু এরই মধ্যে শীতের আগমন টের পেতে শুরু করেছেন। এই মানুষ গুলো হল শুষ্ক ত্বকের অধিকারিরা। যাদের স্কিন ড্রাই তারা এরই মধ্যে শীতের শুষ্কতা আর রুক্ষতা তাদের স্কিনে টের পেতে শুরু করে দিয়েছেন। আর কিছু দিন পরে যখন শীত পুরোপুরি আক্রমণ করা শুরু করবে তখন ত্বক নিয়ে সব থেকে বেশি কষ্ট পাবেন এই শুষ্ক ত্বকের মানুষেরা। তবে প্রকৃতি যখন কোন সমস্যা তৈরী করে, এর সমাধানও প্রকৃতিই দিয়ে থাকে। আমি শুষ্ক ত্বকের রুক্ষতা দূর করার এমনি এক প্রাকৃতিক সমাধান নিয়ে আজ কথা বল। এই সমাধানটি হচ্ছে নারকেল তেল। আজ আমি নারকেল তেল দিয়ে বানানো যায় এমন একটি ফেস প্যাক নিয়ে কথা বলব যেটা ত্বকের রুক্ষতা সম্পূর্ণ দূর করে দিবে।

ত্বকের যত্ন নিতে নারকেল তেলের ব্যবহার আসলে একটু নতুন আমাদের কাছে। সাধারণত শুধু চুলের যত্ন নিতেই আমরা নারকেল তেল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আপনারা অনেকেই হয়ত জানেন না যে নারকেল তেল আমাদের ত্বকের জন্যও ভীষণ উপকারি একটি উপাদান। তাই আজ আমি আমাদের ত্বকের যত্ন নিতে কিভাবে নারকেল তেল ব্যবহার করা যায় তার একটা উপায় বলে দেব। যদিও এই ফেস প্যাক মূলত শুষ্ক ত্বকের মানুষের জন্য প্রজোয্য। তবে শীত কয়ালে সাধারণত সব ধরণের ত্বকই শুষ্ক হয়ে পড়ে। তখন যে কেউ এই ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পাড়েন। শীত কালে যদি এই ফেস প্যাক রোজ এক বার করে ব্যবহার করা হয় তাহলে ত্বকের রুক্ষ ভাব ধীরে ধীরে দূর হয়ে যাবে। সেই সাথে কড়া কনকনে শীতের মধ্যেও আপনার ত্বক থাকবে নরম কোমল ও উজ্জ্বল।

আসুন দেরী না করে কি কি উপকরণ দিয়ে এই ফেস প্যাক বানাতে হবে তা দেখে নেই। সেই সাথে এটি কিভাবে ব্যবহার করতে হবে তাও দেখে নেই।

নারকেল তেলের ফেস প্যাক বানাতে যা যা লাগবে

  • নারকেল তেল ২ চা চামচ
  • মধু ১ চা চামচ
  • ল্যাভেন্ডার অয়েল ১ থেকে ২ ফোটা

নারকেল তেলের ফেস প্যাক যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

একটা পাত্রে নারকেল তেল ও মধু নিতে হবে। যেহেতু শীত কাল তাই নারকেল তেল জমাট বেধে থাকার সম্ভাবনা থেকে যায়। সেক্ষেত্রে নারকেল তেল একটু গলিয়ে নিলে ভাল হয়। তবে নারকেল তেল শুধু গলিয়ে নিতে হবে। গরম করা যাবে না। গরম নারকেল তেল চুলের জন্য ভাল কাজে দেয়। ত্বকের জন্য না।

নারকেল তেল ও মধু খুব ভাল করে ফেটিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। এই দুটি উপাদানই খুব ঘন হয়। তাই মিশে যেতে একটু সময় লাগতে পারে। তাই একটু সময় নিয়ে ভাল ভাবে এই দুটী উপাদান মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর এর মধ্যে এক ফোটা থেকে দুই ফোটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে নিতে হবে। তবে এই ফেস প্যাক তৈরী করার সময় ল্যাভেন্ডার অয়েল ব্যবহার করাটা সম্পূর্ণ আপনার ইচ্ছার উপর নির্ভর করছে। আপনি যদি চান তবে ল্যাভেন্ডার অয়েল ব্যবহার না করলেও চলবে। আর এই ধরণের এরোমা অয়েল আমাদের দেশের সব জায়গাতে সব সময় পাওয়াও যায় না। সেক্ষেত্রে এটি ব্যবহার না করেও এই নারকেল তেলের ফেস প্যাকটি বানানো সম্ভব।

নারকেল তেল ও মধুর মিশ্রণে বানানো ফেস প্যাকটী একটূ বেশি লিকুইডি ও রানি হয়। ফলে এটি মুখে লাগাতে একটূ অসুবিধা হতে পারে। সেক্ষেত্রে এই ফেস প্যাক বানিয়ে চার মিনিট থেকে পাঁচ মিনিটের জন্য ফ্রিজে রেখে দিতে পাড়েন। তাহলে নারকেল তেল ও মধু জমাট বাধতে শুরু করবে। এবং এই ফেস প্যাক একটু ঘন হয়ে যাবে। তখন এটি মুখের ত্বকে লাগিয়ে রাখার জন্য একদম উপযোগী হয়ে যাবে।

নারকেল তেলের ফেস প্যাক যেভাবে ব্যবহার করতে হবে

এই ফেস প্যাকটি ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে ত্বককে আর্দ্রতা যোগায়। তাই এই ফেস প্যাক ব্যবহার করার আগে ত্বক সম্পূর্ণ পরিস্কার করা নেয়াটা খুবই জরুরী। তা না হলে ত্বকে থাকা নানা রকম ময়লা ও জীবাণু নারকেল তেলের সাথে ত্বকের গভীরে প্রবেশ করতে পারে। ফলে পরবর্তিতে ত্বকে ব্রণ, একনে সহ নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। এই জন্য এই ফেস প্যাক মুখের ত্বকে ব্যবহার করার আগে আবশ্যই ফেস ওয়াশ দিয়ে খুব ভাল মতন মুখ ও গলার ত্বক পরিস্কার করে ধুয়ে ফেলতে হবে। এরপর একটা শুকনা ও নরম তোয়ালে দিয়ে মুখের ত্বক হালকা করে চেপে চেপে শুকিয়ে নিতে হবে।

এই বার এই পরিস্কার ও শুকনা মুখে ও গলার ত্বকে নারকেল তেল ও মধুর ফেস প্যাকটা লাগাতে হবে। এই ফেস প্যাক লাগানোর একটা নিয়ম আছে। দুই হাতের আঙ্গুলে কিছুটা ফেস প্যাক নিয়ে আস্তে আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করে ত্বকে লাগাতে হবে। পাঁচ মিনিট থেকে ছয় মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। ততক্ষণে ফেস প্যাক মুখের উপর একটু শক্ত হয়ে আসবে। তখন আবারো একই ভাবে হাতের আঙ্গুলে এই ফেস প্যাক নিয়ে মুখে আলতো করে ম্যাসাজ কর নিতে হবে এবং চার মিনিট থেকে পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। এই ভাবে আরো দুই বার থেকে তিন বার করতে হবে।

সম্পূর্ণ ফেস প্যাক মুখে ও গলার ত্বকে এই ভাবে তিন বার থেকে চার বার লাগানোর পর আরো দশ মিনিট থেকে পনেরো মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে নারকেল তেলের ফেস প্যাক মুখের ও গলাত ত্বকে ভাল মতন শুকিয়ে যাবে। এই বার একটা তোয়াল পানিতে ভিজিয়ে নিতে হবে। এরপর ভেজা তোয়ালে দিয়ে মুখ ও গলার ত্বক থেকে ফেস প্যাক পরিস্কার করে ফেলতে হবে। ইচ্ছা হলে তেওয়ালে উষম গরম পানিতে ভিজিয়ে মুখ ও গলা সাগ করা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে গরম পানিতে ভেজানো তোয়ালে মুখের উপর ১০ মিনিট থেকে ১২মিনিট রেখে দিতে হবে। তারপর মুখ ও গলার ত্বও পরিস্কার করে নিতে হবে।

নারকেল তেলের ফেস প্যাক ব্যবহার করার উপকারিতা

এই ফেস প্যাক এর প্রধাণ দুটি উপকরণ হচ্ছে নারকেল ও মধু। আর এই দুটি উপকরণই তাদের আর্দ্রতা যোগানোর গুণের জন্য খুবই পরিচিত। এই জন্য শীত কালে প্রতি রাতে যদি আমরা ঘমানোড় আগে এই ফেস প্যাক ব্যবহার করে ঘুমাই তাহলে পরের সারা দিন আমাদের ত্বক একদম নরম ও কোমল থাকবে। তাছাড়া নারকেল তেলের মধ্যেকার বিভিন্ন উপাদান আমাদের ত্বককে ফর্সা করতেও সাহায্য করে। ফলে এই ফেস প্যাক নিয়মিত ব্যবহার করলে আমাদের ত্বকের রঙ আস্তে আস্তে উজ্জ্বল হতে শুরু করবে। এছাড়া মধুতে আছে প্রচুর পরিমাণে এন্টি ব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টিজ। ফলে এটি আমাদের স্কিনে ব্রণ কিংবা একনের আক্রমণ প্রতিহত করতে সাহায্য করবে। আর ল্যাভেন্ডার অয়েলে আছে এন্টি অস্কিডেন্ট প্রপার্টিজ। আর এন্টি অক্সিডেন্ট আমাদের ত্বকের তারুণ্য ও লাবণ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

 

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন