ঘরে বসেই বানান মজাদার বাটার কফি

ঘরে বসেই বানান মজাদার বাটার কফি

আমাদের বাঙ্গালিদের মধ্যে চায়ের প্রচন্ড জনপ্রিয়তা রয়েছে। কিন্তু সেই সাথে রয়েছে কফিরও ভীষণ রকম এর জনপ্রিয়তা। এই কারণেই তো শহরের আনাচে কানাচে অলিতে গলিতে নানা রকম এর আর নানা নামে এর কফি শপ গড়ে উঠছে। আর যত দিন যাচ্ছে ততই এই সব কফি শপ গুলোর সংখ্যা আর জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। আর এই কফি শপ গুলোর জনপ্রিয়তার একটা বড় কারণ হচ্ছে এখানকার রেসিপি গুলোর ভিন্নতা। এক একটা কফি শপে বিভন্ন রকম এর আর বিভিন্ন স্বাদ এর কফি পাওয়া যায়। এই ভিন্ন ভিন্ন স্বাদ এর কফি গুলো আমরা সাধারণত বাসায় বানাতে পারিনা বলেই বিভিন্ন সময়ে কফি খাবার ইচ্ছা হলে এই সব কফি শপ গুলোতে ছুটে যাই। তবে এই কফি গুলো যদি বাসাতেই বানানো যেত তাহলে কিন্তু মন্দ হত না ঠিক না? আসুন আজ একটি ভিন্ন ধরণের কফি রেসিপি আপনাদের শিখিয়ে দেই যেতা আপনারা অনায়াসে বাসায় বসেই বানিয়ে নিতে পারবেন। রেসিপিটি হচ্ছে মজাদার বাটার কফি রেসিপি।

আসলে বাটার কফি মূলত একটি কিটো রেসিপি। এই রেসিপিতে হাই ফ্যাট থাকে, কিন্তু কোন ডেয়ারি প্রোডাক্ট সরাসরি ব্যবহার করা হয় না। এমনকি চিনিও ব্যবহার করা হয় না। তবে এই অথেনটিক বাটার কফি আমাদের টেস্ট বাডের সাথে অতটা যায় না। তাই বাটার কফির মূল থিমটাকে ঠিক রেখে কিছু কিছু কফি শপ বেশ সুন্দর একটি বাটার কফি আমাদের সামনে পরিবেশন করে থাকে। এগুলো পুরোপুরি ভাবে কিটো রুলস ফলো করে তৈরী করা হয় না। কিন্তু খেতে খুবই টেস্টি হয়। কফির সাথে বাটারের ঘ্রাণ মিলে মিশে এক অনবদ্য স্বাদ ও ফ্লেভার এর সৃষ্টি হয় যেটা না খেলে আপনি বুঝতেই পারবেন না। তাই চলুন আর দেরি না করে কিভাবে এই বাটার কফি বানাতে হয় তা জেনে নেই। তবে তার আগে এই বাটার কফি বানাতে আসলে কি কি উপকরণ কত টুকু পরিমাণে দরকার তা জেনে নেয়া যাক।

বাটার কফি বানাতে যে যে উপকরণ এর দরকার হবে

গরম পানি ১ কাপ

কফি ১ টেবিল চামচ

আনসল্টেড বাটার ১ থেকে ২ টেবিল চামচ

চিনি কিংবা মধু ১ চা চামচ

আমন্ড মিল্ক কিংবা কোকোনাট মিল্ক ৩ তেবিল চামচ

দারচিনি গুড়া ১ চিমটি

বাটার কফি যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

বাটার কফি বানাবার জন্য অবশ্যই একটি ব্লেন্দার ব্যবহার করতে হবে। আর আপনার ইচ্ছা হলে অবশ্য ব্লেন্ডারের বদলে এগ বিটারও ব্যবহার করে দেখতে পারে। তবে ব্লেন্ডার ব্যবহার করলে বাটার কফি বানাবার কাজটা আর একটু বেশি সহজ হবে। তবে আপনি হাতে কিংবা কাটা চামচ দিয়ে এই বাটার কফি বানাবার চেষ্টা করতে যাবেন না। এর টেস্ট খুব একটা ভাল আসবে না।

ব্লেন্ডারে প্রথমে আনসল্টেড বাটার, কফি, আর গরম পানি নিয়ে নিতে হবে। এর মধ্যে আমন্ড মিল্ক যোগ করতে হবে। তবে আমাদেরদেশে সব এলাকায় আমন্ড মিল্ক অত বেশি এভেইলেবল না। সেক্ষেত্রে নারকেলের দুধ ব্যবহার করা যেতে পারে। স্বাদে খুব একটা পার্থক্য হবে না। এর পর অল্প পরিমাণে মধু যোগ করতে হবে। তবে মধু কফির সাথে অনেকের ভাল নাও লাগতে পারে। সেক্ষেত্রে অল্প পরিমাণে চিনিও যোগ করতে পারেন। তবে মূল রেসিপিতে অবশ্য মধু বা চিনি কোনটাই ব্যবহার করা হয় না।

এরপর এই মিশ্রণে খুব সামান্য পরিমাণে মাত্র এক চিমটি দারচিনি গুড়া যোগ করা যেতে পারে। এতে করে খুব সুন্দর একটা ফ্লেভার যোগ হবে বাটার কফির মধ্যে। তবে আপনার ইচ্ছা হলে দারচিনি গুড়ার বদলে সামান্য জায়ফল গুড়া কিংবা এক ফোটা ভ্যানিলা এসেন্সও যোগ করতে পারেন। আবার আপনার যদি স্ট্রং কফির ফ্লেভার ভাল লাগে তবে এগুলোর মধ্যে কোনটাই যোগ না করলেও চলবে। এরপর খুব ভাল করে সব উপকরণ এক সাথে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। ব্যাস রেডি আপনার জন্য মজাদার ও একদমই ভিন্ন স্বাদের বাটার কফি।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন