কেমন হবে আপনার বৈশাখের সাজ?

দেখতে দেখতে বৈশাখও চলে এলো। বৈশাখ বরণ উৎসব যদিও বাঙালির জাতীয় উৎসব; জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে এটা সবার উৎসব কিন্তু এর বহুর প্রচার ও প্রসার ঘটেছে ২১ শতকে। ঐতিহ্য ঘেরা আমাদের বৈশাখ তাই একে বরণ করতে কোন ত্রুটি রাখি না আমরা। মেয়েদের বৈশাখ বরণের গল্প তো একেবারেই ভিন্ন। বৈশাখের আগমনের আনন্দে মাথার চুল থেকে পা পর্যন্ত সাজায় আমরা, মেয়েরা।

কিন্তু বৈশাখ কি শুধু আমাদের জন্য আনন্দই এনে দেয়? সাথে রৌদ্রের অসহ্য তাপ ও প্রচন্ড গরম আনে না? আমরা যেহেতু জানি, কোন আনন্দই ঝক্কি ছাড়া উপভোগ করা হয় না তাই এই অসহনীয় গরম উপেক্ষা করে আমাদের আনন্দ করা বাদ যায় না। সাজগোজ করতে রাখি না কোন কমতি।

এই অস্বাভাবিক গরমে আপনি একটু স্বস্তি পেতে পারেন সঠিক পোশাক নির্বাচনের মাধ্যমে। তাই পহেলা বৈশাখে ঘুরাঘুরির জন্য সুতি শাড়ি বেছে নিলে ভালো হবে। যদিও আগে বৈশাখ বরণে লাল-সাদা শাড়ি পরা হত কিন্তু এখন বিভিন্ন রঙের শাড়ি পরা হয়।

পোশাক বাছাইয়ের ক্ষেত্রে লক্ষণীয় বিষয়গুলোঃ

যেহেতু উৎসবটা আমাদের বাঙ্গালী সংস্কৃতির তাই মেয়েদের শাড়ি ও ছেলেদের পাঞ্জাবী পরাই ভালো।

চিকন পাড়ের একরঙা সুতি শাড়িতে বেশ সুন্দর ও মানানসই বৈশাখের জন্য। পহেলা বৈশাখে যেহেতু আমরা বৈশাখের সাথে গরম কেউ আমন্ত্রণ জানায় তাই হাফ হাতা বা স্লিভ লেস ব্লাউজ পরাই ভালো, স্বস্তি পাওয়া যাবে। ব্লাউজ কেমন কাপড়ের নিবেন? সেইটা ভাবছেন তো? বলছি…
শাড়ির সাথে মিল রেখে বাটিকের ব্লাউজ নিতে পারেন। এই দিনে শাড়ি বাঙালি ধাচে পরলেই বেশ মানানসই লাগে কিন্তু এখন বাঙ্গালী ধাচে শাড়ি পরার চল অনেকটাই কমে গেছে। অধিকাংশ মেয়েই সাধারণ ভাবে শাড়ি পরে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না।

এবার আসা যাক ছেলেদের পোশাকের বিষয়ে। ছেলেরা সুতি, বাটেক বা লিনেন পাঞ্জাবী পরতে পারেন। তাহলে তারা গরমে বেশ স্বস্তিবোধ করবে।

বৈশাখের মেকআপের ক্ষেত্রে লক্ষণীয় বিষয়গুলোঃ

মুখঃ

যেহেতু সবাই নিজেকে গ্যছিয়ে নিয়ে বের হয় এই দিনে তাই আপনার সৌন্দর্যয়ের জন্য মেকাপ করাটা অনেকটাই জরুরি হয়ে পড়ে। কিন্তু খেয়াল রাখবেন, বৈশাখের মেকআপ যেন হয় হালকা বেইজের উপরে। কেননা গরমে দীর্ঘ সময় বাহিরে থাকতে হবে।
কিন্তু তার আগে জরুরী, পরিচ্ছন্ন থাকা। তাই পহেলা বৈশাখের কয়েকদিন আগে থেকে ত্বকের যত্ন নেওয়া ভালো। এরপর আসি মেকআপ প্রসঙ্গে- মেকআপ করার আগে ত্বকে ভালো করে বরফ টুকরা ঘষে নিন তাহলে মেকআপ আপনার ত্বকের ভিতরে যাবে না এবং ঘামও কম হবে। এবারে মেকআপ প্রাইমার লাগান। প্রাইমার লাগানোর পর দুই মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। এরপর বেইজ মেকআপ শুরু করুন। এখন লাগাতে হবে ফাউন্ডেশন। কিন্তু আমাদের ফাউন্ডেশন লাগানে কালো লাগে! এটা আমাদের দেশের মেয়েদের অতি পরিচিত একটা সমস্যা। এমনটা হয় আপনার ভুল ফাউন্ডেশন নির্বাচনের কারণে। তাই সব সময় স্কিন টোনের চেয়ে দুই শেড লাইট বা হালকা ফাউন্ডেশন ব্যবহার করুন সবসময়। এই ফাউন্ডেশন সেট হয়ে গেলে একদঅম আপনাদের ত্বকের সাথে মিলে যাবে। আর হ্যাঁ, শুধু মুখে মেকআপ করবেন না যেন; মুখের সাথে গলাতেও ফাউন্ডেশন লাগাতে ভুলবেন না।

ফাউন্ডেশন লাগাতে বিউটি ব্লেন্ডার বা ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। মনে রাখবেন, ফাউন্ডেশন কখনই ডলে ডলে লাগাতে হয় না। ফাউন্ডেশন সব সময় চেপে চেপে লাগাতে হয়। ফাউন্ডেশন লাগানোর পরে যদি চোখের নিচে, নাক, থুতনির কিছু অংশ কালো হয়ে থাকে তাহলে সেখানে কনসিলার লাগিয়ে নিন। যদি বাসায় কনসিলার না থাকে তাহলে কমলা রঙের লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন। এটাও চেপে চেপে লাগাতে হবে। এখন লুজ পাউডার দিয়ে ফাউন্ডেশনটা বসিয়ে নিলেই হয়ে যাবে হালকা বেইজ মেকআপ।

চোখের মেকআপঃ

চোখের ধরণ অনুযায়ী চোখ সাজানো উচিত। হালকা মেকআপের সাথে স্মোকি আই বা গাঢ় কাজল বেশ মানায়। তবে আপনি চাইলে শাড়ির রঙের সাথে মিল রেখে চোখ সাজাতে পারেন।

চোখের সাজ আকর্ষণীয় করতে লাগাতে পারেন ফলস আই ল্যাশ। এটা চোখের সৌন্দর্য দ্বিগুণ বাড়িয়ে দেয়।

লিপস্টিকঃ

লিপস্টিকের ক্ষেত্রে কোন পরামর্শ নেই। আপনি যেই শেডের লিপস্টিক পরতে চান, পরে ফেলুন। তবে লাল বা খয়েরি রঙের লিপস্টিক হালকা সাজকে বেশ আকর্ষণীয় করে তোলে। এছাড়া এই দিনের জন্যও বেশ মানানসই রি রঙ দু’টো।
এখন ন্যুড লিপস্টিকের ব্যবহারও খুব দেখা যাচ্ছে। মেয়েরা যেকোন সাজের সাথে ন্যুড লিপস্টিক পরতে বেশি পছন্দ করছেন।

টিপঃ

বড়, ছোট, মাঝারি যেকোন সাইজের টিপ পরতে পারেন। কিন্তু আপনার কপাল যদি বড় না হয় তাহলে বোড় টিপ একেবারেই বেমানান লাগবে। তাই কপাল অনুযায়ী টিপ পরা উচিত।

চুলঃ

ইদানীংকালে মেয়েরা চুল খোলা রাখতেই পছন্দ করে। কিন্তু এই দিনের অতিরিক্ত গরম থাকে, আপনি যদি গরম সহ্য করতে না পারেন তাহলে চুল বেঁধে রাখায় শ্রেয় নইলে অসুস্থ হয়ে পরবেন। চুল বাঁধার ক্ষেত্রে খোপাটা এই দিনের সাথে বেশ মানানসই বলে হয়। খোপা করে তাতে গুঁজে দিলে কিছু ফুল, বেশ মনোমুগ্ধকর দেখায় এভাবে। তবে খেয়াল রাখবেন, খোপা যেন ভারী না হয়। নাহলে সারাদিন ভারী কোপা নিয়ে থাকতে আপনার মাথা ব্যথা করতে পারে।
আপনি খোপার সাথে বা খোলা চুলে মাথায় পছন্দ মত ফুলের মুকুটও পরতে পারেন।

মেকআপ শেষে সেটিং স্প্রে লাগাতে ভুলবেন না। নাহলে আপনার মেকআপ অল্প সময়েই নষ্ট হয়ে যাতে পারে।
পহেলা বৈশাখের শুভেচ্ছা সবাইকে।

মন্তব্যসমূহ

কল্পবিলাসী আমি বাস্তবতা থেকে অজ্ঞাত নই। আমি সেই বিহঙ্গিনী যে ডানা ভর্তি ভালোবাসা নিয়ে পাখা মেলতে চাই চিলের সাথে সুদূর আকাশে.. ডানা ঝাপটিয়ে লিখে যেতে চাই স্বরচিত কল্পকথা ও মুক্তির মন্ত্র I

মন্তব্য করুন