গরমে ভিন্ন স্বাদের কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রেসিপি

গরমে ভিন্ন স্বাদের কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রেসিপি

আমার কাছে যদি রান্না ঘরের একটি মহা দরকারি উপকরণের নাম জিজ্ঞাসা করা হয় আমি কোন কিছু না ভেবেই বলব ডিম। এর কারণও আছে। এই এক ডিম দিয়ে আপনি হাজার রকম এর খাবার রান্না করতে পারবেন। সকালের নাস্তা থেকে বিকেলের নাস্তা যেটাই করুন না কেন ডিম আপনার ঠিকই কাজে লাগবে। আবার ভাতের সাথে কারি হিসেবে কিংবা ডেজার্ট তৈরীর প্রধাণ উপকরণ হিসেবেও কিন্তু ডিম এর কোন তুলনা হয় না। ডিম দিয়ে আপনি যে কোণ রান্না করতে পারেন। এটি এমনি একটি উপকরণ যা একটু যত্ন করে রান্না করা হলে যে কোন খাবারকে স্বাদে ও ফ্লেভারে ছাড়িয়ে যেতে সক্ষম। এই কারণে আমি ডিমকে বলি আমার কিচন হিরো। আজ আমি আমার এই কিচেন হিরোকে নিয়েই একটা সুন্দর, সহজ অথচ একদম ভিন্ন স্বাদ এর একটি রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চলেছি। এই রেসিপিটি হচ্ছে কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা।

এখন হচ্ছে কাঁচা আমের সময়। বাজারে গেলেই আপনি ঝুরি ভর্তি ভর্তি সবুজ তাজা কাঁচা আমের ছড়াছড়ি দেখতে পারবেন। এই কাঁচা আমের স্বাদ এর আসলে কোন তুলনা হয় না। শুধু খেতেও যেমন ভাল লাগে। তেমনি যে কোন ডাল কিংবা সবজির মধ্যে যদি এই কাঁচা আম যোগ করা যায় তাহলে সে ডাল আর সবজির স্বাদও অতুলনীয় হয়ে যায়। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে কাঁচা আম খুব কম সময়ের জন্যই আমাদের সামনে দেখা দেয়। এই বাজারে উঠল। তার পরে পনেরো দিন কি বিশ দিনের মাথায় গায়েব। তাই বাজারে কাঁচা আম থাকতে থাকতেই এটি দিয়ে যত রকম সম্ভব খাবার বানিয়ে খেয়ে দেখা উচিত। এই রকমই একটি প্রয়াস হচ্ছে কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রেসিপি।

আমি জানি কাঁচা আম দিয়ে আপনারা অনেকেই ডাল, কিংবা সবজি ঘ্নট রেধে খেয়েছেন। এই বার এক বার ডিম রান্না করে খেয়েই দেখুন না। আমি হলফ করে বলতে পারি আপনার খাওয়া সব থেকে মজাদার আর ভিন্ন স্বাদ এর ডিম ভুনা হতে চলেছে এই কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রেসিপিটি।

কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা করতে যা যা উপকরণ দরকার হবে

কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা করতে খুব বেশি উপকরণ কিন্তু আমাদের দরকার হবে না। আর যেই উপকরণ গুলি এই রেসিপিটি তৈরী করতে ব্যবহার করা হবে সেগুলো সবই খুবই সাধারণ। ভিন্ন ধরণ এর উপকরণ বলতে শুধু এই রান্নার মধ্যে কাঁচা আম ব্যবহার করা হবে। তাছাড়া আর বাকি উপকরণ গুলো সব সময় আমাদের রান্না ঘরের মধ্যেই কিং ফ্রিজের এক কোণে এমনিতেই থাকে। আসুন দেরি না করে কি কি উপকরণ ব্যবহার করে এই কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা করতে হবে তা জেনে নেয়া যাক।

ডিম ৪ থেকে ৫টি

পণি পরিমাণ মত

সাদা তেল ৩ টেবিল চামচ

মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ ৪ টেবিল চামচ

পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ

রসুন বাটা ১ চা চামচ

আদা বাটা ১ চা চামচ

মিহি করে কুচি করে রাখা টমেটো ৩ টেবিল চামচ

কাঁচা আম বাটা ২ চা চামচ

ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ

ভাজা ধনে গুড়া ১/২ চা চামচ

হলুদ গুড়া ১/২  চা চামচ

লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ

লবণ পরিমাণ মত

চিনি ১ চা চামচ

আস্ত কাঁচা মরিচ ৪ থেকে ৫টি

কালো গোল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ

ভাজা গরম মশলা গুড়া ১/৪ চা চামচ

মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ২ চা চামচ

মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা ১ চা চামচ

কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা যে পদ্ধতিতে রান্না করতে হবে

কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা বানাবার জন্য খুব বেশি কষ্ট কিন্তু করতে হবে না। আর এটি বানাতে সময়ও লাগবে একেবারেই কম। তবে এই কাঁচা আম দিয়ে ডিম ভুনা করার জন্য বেশ কয়েকটি ধাপে এই রান্নাটি শেষ করতে হবে। এই যেমন ডিম সিদ্ধ করে ভেজে রাখা, কিংবা কাঁচা আম বেটে রেডি করে রাখা। আসুন ধাপে ধাপে কিভাবে এই কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রান্না করতে হবে তা জেনে নেয়া যাক।

১ম ধাপ

এই রান্না শুরু করার আগে ডিম গুলো সিদ্ধ করে নিতে হবে। এই ক্ষেত্রে একটা সস প্যানে বেশি করে পানি দিয়ে ডিম গুলো দিয়ে দিতে হবে। সেই সাথে আরো দুটা জিনিস যোগ করতে হবে। একটু অবাক লাগছে তাই না? নিশ্চই ভাবছেন যে ডিম সিদ্ধ করার সময় আবার কি উপুরণ যোগ করতে হবে। আসুন আজ আপনাদের ডিম সিদ্ধ ক্রা নিয়ে একটা ছট্ট টপস দিয়ে দেই। আমরা ডিম সিদ্ধ করার পর খোসা চজিলার সময় অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে খোসা ঠক মত ছিলা যাচ্ছে না। কিংবা অনেক সময় খোসার সাথে ডিম ভেঙ্গে যাচ্ছে। এই সমস্যার খুব সহজ একটা সমাধাণ আছে। ডিম সিদ্ধ করার সময় পানিতে সামান্য একটু লবণ ও ১/২ চা চামচ ভিনেগার যোগ করে দিতে হবে। এতে করে ডিম থেকে খোসা ছিলার সময় আর খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না। খুব সহজেই সিদ্ধ ডিম থেকে এর খোসা ছেড়ে আসবে।

খোসা ছাড়িয়ে নেওয়া সিদ্ধ ডিম গুলো হালকা চিরে নিতে হবে। সামান্য হলুদ গুড়া ও লবণ মেখে হালকা করে সাদা তেলে ভেজে নিতে হবে।

২য় ধাপ

এই বার একটা কাঁচা আম থেকে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এটি ছোট ছট টুকরা করে কেটে নিতে হবে। এই ছোট ছোট কাঁচা আমের টুকরা গুলো একটা পাত্রে বেশ খানিকটা পানি দিয়ে ভিজিয়ে দিতে হবে। খুব বেশি সময় ধরে ভিজিয়ে রাখা লাগবে না। মোটামুটি আধা ঘন্টা সময় ভিজিয়ে রাখলেই হবে। এর পরে এই কাঁচা আমের টুকরা গুলা খুব ভাল করে কচলে ধুয়ে নিতে হবে। এতে করে কাঁচা আমের মধ্যে থাকা কষ বা আঠালো ভাবটা চলে যাবে। এর পরে এই কাঁচা আমের টুকরা গুলো মিহি করে বেটে নিতে হবে।

৩য় ধাপ

একটা কড়াতে সাদা তেল গরম করতে হবে। সাদা তেল কিছুটা গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে রাখা পেঁয়াজ দিয়ে দিতে হবে। পেঁয়াজ কুচি একদম লাল লাল করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ কুচি গোল্ডেন ব্রাউন করে ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে পেঁয়াজ বাটা যোগ করতে হবে। একই সাথে আদা বাটা ও রসুন বাটাও যোগ করে দিতে হবে। কিছু সময় ধরে হালকা করে বাটা মশলা গুলোও ভেজে নিতে হবে। বাটা মশলা গুলো হালকা ভাজা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে মিহি করে কুচি করে কেটে রাখা টমেট যোগ করতে হবে। টমেটো কুচি গলে না যাওয়া পর্যন্ত ভাল মত নাড়া চাড়া করে মশলা গুলো ভাজা ভাজা করে নিতে হবে।

৪র্থ ধাপ

টমেট কুচি ও অন্যান্য বাটা মশলা থেকে কাঁচা কাঁচা ভাব দূর হয়ে গেলে এর মধ্যে কাঁচা আম বাটা যোগ করতে হবে। সেই সাথে ভাজা জিরা গুড়া, ভাজা ধনে গুড়া ভাজা জিরা গুড়া, আর কালো গোল মরিচ গুড়া যোগ করতে হবে। সে সাথে হলুদ গুড়া ও লাল মরিচ গুড়াও যগ করে দিতে হবে। এই মশলা গুলো খুব ভাল ভাবে কষিয়ে নিতে হবে। দরকার হলে এই সময় অল্প অল্প করে পানি যোগ করা যেতে পারে। এই মশলা গুলো খুব ভাল মতন কষিয়ে নিতে হবে।

৫ম ধাপ

মশলা গুলো খুব ভাল ভাবে কষানো হয়ে গেলে এর মধ্যে আগে থেকে ভেজে রাখা সিদ্ধ ডিম গুলো দিয়ে দিতে হবে। আরো দুই মিনিট থেকে তিন মিনিট কষাতে হবে। এর পরে পরিমাণ মত পানি যোগ করতে হবে। সেই সাথে পরিমাণ মত লবণ ও চিনি যোগ করে দিতে হবে। পানি ফুটে উঠলে চুলার আঁচ কমিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। ঝোল শুকিয়ে মাখা মাখা হয়ে আসলে উপর থেকে মিহি করে কুচি করে রাখা পুদিনা পাতা, মিহি করে কুচি করে রাখা ধনে পাতা ও অল্প পরিমাণে ভাজা গরম মশলা গুড়া ছড়িয়ে দিতে হবে। এই মশলা গুলো ছড়ীয়ে দেবার পর ঢাকনা দিয়ে আরো দুই মিনিট থেকে তিন মিনিট রান্না করতে হবে। এতে করে এই শেষ মুহূর্তে যোগ করা মশলা গুলোর স্বাদ ও গন্ধ ডিম ভুনার মধ্যে খুব ভাল ভাবে যোগ হয়ে যাবে। এর পরে আপনার পছন্দ মত কোন সার্ভিং ডিশে ঢেলে সার্ভ করতে হবে মজাদার কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা।

এই কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা গরম গরম ঝরঝরে সাদা ভাত এর সাথেই সব থেকে ভাল লাগবে। আর তাছাড়া ভুনা খিচুড়ি কিংবা নরম খিচুড়ির সাথেও এই খাবারটি খুব ভাল যাবে। তবে পোলাও কিংবা বিরিয়ানি জাতীয় হাবার এর সাথে এটি অত বেশি ভাল নাও লাগতে পারে। তাই এই কাঁচা আম দিয়ে টক ডিম ভুনা রান্না করলে এর সাথে সাদা ভাত কিংবা কিছুড়ি সার্ভ করলেই বেশি ভাল হবে।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন