গরমে ত্বকের যত্নে করনীয়
অন্যান্য

গরমে ত্বকের যত্নে করনীয়

এসেছে তীব্র গরম। আর নিয়ে এসেছে ত্বকের জন্য নানা জটিলতর সমস্যা। গরমের এই তীব্রতা ও দূষিত বাতাস আপনার ত্বককে করে তোলে শুষ্ক ও নিস্তেজ। আর্দ্রতা ধরে রাখার পাশাপাশি, সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মী ও ঘাম থেকে রক্ষা এবং সতেজভাব ধরে রাখা বেশ কঠিন কাজ। গরমের কারণে ত্বকের নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যাগুলো থেকে সুরক্ষিত থাকতে গরমে চাই ত্বকের বাড়তি কিছু যত্ন।

চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক এই গরমে কীভাবে ত্বক সতেজ ও সুন্দর রাখা যায়-

১। ২ টেবিল চামচ দুধের সরের সাথে ১ টি মাঝারি সাইজের কলার অর্ধেক অংশ মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। এর সাথে ১ চামচ মধু মিশিয়ে প্যাকটি সপ্তাহে ২-৩ দিন ত্বকে মাখুন। এতে আপনার ত্বক কোমল ও মসৃন হবে, শুষ্কতা দূর হবে। এটি গরমকালে ত্বকের যত্নের জন্য জরুরী একটি ঘরোয়া উপায়। নিয়মিত ব্যবহার করলে করে দেখুন ভালো ফলাফল পাবেন।

২। ২ চামচ লেবুর রস ও ২ চামচ চিনি একটি পাত্রে মিশিয়ে নিন। এটি গোসলের ১০ মিনিট আগে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। তারপর আলতো ম্যাসাজ করে গোসল করে নিন। রোজ একবার করে এপ্লাই করুন। ত্বকের মৃতকোষ দূর হবে এবং গরমে ত্বকে স্বস্তি পাবেন।

৩। গরমে প্রখর রোদে সানবার্ণ হয় সবচে বেশি। আর এ থেকে মুক্তি পেতে আলু পেতে পারে আপনার ভরসার নজর। ১টি মাঝারি সাইজের আলু নিয়ে ভালো করে পেস্ট করে রস বানান। এবার তাতে অল্প গোলাপ জল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এবার ট্যান হয়ে যাওয়া অংশে লাগিয়ে রাখুন ২০-২৫ মিনিট। তারপর ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে ২-৩ বার এপ্লাই করবেন প্যাকটি।

৪। ১ টেবিল চামচ মধুর সাথে আধা টেবিল চামচ কোকো পাউডার মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে নিন। ১০-১৫ মিনিট রেখে হালকা হাতে ম্যাসাজ করে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। গরমে ত্বকের মধ্যে পুষ্টি সঞ্চার করবে প্যাকটি।

৫। রোজ রাতে ঘুমনোর আগে ১৫ মিনিট আলুর রস মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে নিন। কোন ভালো নাইট ক্রিম মেখে ঘুমিয়ে জান। ত্বক ভালো ও উজ্জ্বল থাকবে।

৬। গরমকালে ত্বকের যত্ন নিতে বরফ ব্যবহার করতে পারেন। গরমে বাইরে থেকে এসে মুখ ধুয়ে একটা নরম কাপড়ে বরফ নিয়ে ত্বকে লাগান কিছুক্ষণ। ত্বক ঠাণ্ডা ও ভিতর থেকে সতেজ থাকবে। চাইলে গোলাপ পাপড়ির রসের, নিম পাতার রসের বা এলোভেরার বরফ ত্বকে ঘসতে পারেন। ত্বকের জন্য খুবই ভালো এই পদ্ধতিটি। এটি ব্রণ ও একনি দূর করতে সাহায্য করে।

৭। ১ টেবিল চামচ ওটমিল বা ওটসের গুড়োর সাথে ২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে স্ক্রাব বানিয়ে নিন। মিশ্রণটি কুসুম গরম পানিতে ভেজানো মুখে আলতো ভাবে ম্যাসাজ করে করে লাগিয়ে নিন লাগান। ১০-১৫ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন।

৮। চন্দনের গুঁড়ো নিন ২ চা চামচ, সাথে মিশিয়ে নিন ১ চা চামচ গ্লিসারিন, ১চা চামচ লেবুর রস ও পরিমান মত গোলাপ জল। উপকরণ গুলো ভালো করে মিশিয়ে প্যাকটি তৈরি করে ফেলুন। এবার মুখে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন। শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে নিন। সপ্তাহে ৩ বার করে ব্যবহার করুন প্যাকটি।

৯। আধা টেবিল চামচ কমলার খোসার গুঁড়া বা বাটার সাথে এবং ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ভেজা মুখে লাগিয়ে ঘষে নিন। কিছুক্ষন রেখে ধুয়ে নিয়ে ত্বকে প্রতিদিনকার ব্যবহার্য টোনারটি লাগিয়ে নিন অল্প করে। ত্বকে ন্যাচারাল গ্লো আসবে।

১০। ১ টেবিল চামচ চালের গুঁড়ার সঙ্গে আধা টেবিল চামচ দুধ, মধু এবং আধা টেবিল চামচ গোলাপজল মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ঘষে নিন ।শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বারাতে বেশ কার্যকরী।

এছারাও গরমে কিছু বিষয় লক্ষ রাখতে পারেন-

১। এ কথা আমরা সবাই জানি, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা সুস্থ ত্বকের জন্য অনিবার্য। আর গরমে তো তা অবশ্য করণীয়। এসময় ত্বক ও চুল পরিষ্কার রাখুন সবসময় এবং সম্ভব হলে গরমকালে দিনে দুইবার গোসল করুন।

২। সূর্য শুধু আপনার ত্বকের ক্ষতিই করে না, উপকারও করে। সূর্যের রশ্মি আপনার শরীরে সেরোটোনিন হরমোন উৎপাদোন করতে সাহায্য করে, যা আপনাকে প্রাণবন্ত রাখে। তাই গরমে সূর্যকে ভয় পাবেন না।

৩। গরমে আপনার খাদ্য তালিকায় এমন খাবার রাখুন, যেগুলো আপনাকে সতেজ রাখ এবং ওই গরমে স্বস্তি দেয়। ফলমূল ও শাকসবজি বেশি করে খান এসময় এবং রান্নায় খুব বেশি মসলা ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

৪। গরমে আরামদায়ক পোশাক বাছাই করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই গরমে হালকা রঙের সুতি বা লিনেনের পোশাককে প্রাধান্য দিন। সিল্ক বা জর্জেট এড়িয়ে চলুক যতটা সম্ভব।

৫। এই গরমে ত্বকের যত্নে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা জরুরী। গরমকালে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি বা ‘আল্ট্রা-ভায়োলেট রে’ আপনার ত্বকের ক্ষতিকর, যা প্রতিরোধ করতে প্রয়োজন সানস্ক্রিন। তাই বের হলে অবশ্যই সানক্রিন ক্রিম/লোশন ব্যবহার করে বের হবেন। লক্ষ রাখবেন সানক্রিন যেন অন্তত SPF-15 যুক্ত হয়। এবং রোদে বের হলে হালকা স্কার্ফ ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

মন্তব্যসমূহ

হ্যান্ডিক্রাফটের কাজের প্রতি অগাধ ভালবাসা।প্রচুর ক্রাফটিং করি। আর বিউটি নিয়েও একটু ঘাটাঘাটি করি তাই ক্রাফট এন্ড বিউটি নিয়েই টুকটাক লিখার চেষ্টা করি।

মন্তব্য করুন