এই গরমে শুষ্ক ত্বকের জন্য জরুরি একটি ফেস প্যাক

এই গরমে শুষ্ক ত্বকের জন্য জরুরি একটি ফেস প্যাক

শুষ্ক ত্বক এর অধিকারিরা গরমের দিনে একটু স্বস্তিতে থাকেন। কারণ এই সময়ে ত্বকে শুষ্কতা বেশ খানিকটা কমে যায়। সেই সাথে ত্বকে আর্দ্রতার অভাব কম বোধ হয়। কিন্তু এর মানে এই নয় যে এই সময়ে শুষ্ক ত্বকে কোন ধরণের ময়শ্চারাইজারের দরকার নেই। এটা ঠিক যে এই সময়ে শুষ্ক ত্বকের নারীদেরও কোন ধরণ এর ক্রীম লাগানোর দরকার হয় না। কিন্তু শুশক ত্বকের জন্য সব সময়ই ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করা জরুরি। তা সে বছরের যে সময়টাতেই হোক না কেন। তবে গরম কালে একটু মাইল্ড ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। আজ আমি তেমনি একটি মাইল্ড ময়শ্চারাইজার নিয়ে আপনাদের সাথে কথা বলতে চলেছি। এটি একটি প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজিং ফেস প্যাক। এই ফেস প্যাক নিয়ম করে ব্যবহার করা শুরু করলে আপনার শুষ্ক ত্বক তার প্রয়জনীয় পুষ্টি পাবে। সেই সাথে বাড়তি পাওনা হিসেবে আপনি পাবেন ফর্সা, উজ্জ্বল, দাগহীন ও মসৃণ ত্বক।

আসলে শুষ্ক ত্বক এর প্রধাসসদস্যা হল এই ত্বকে প্রয়োজন অনুপাতে আর্দ্রতার পরিমাণ খুব কম থাকে। আর আমরা সকলেই জানি ত্বকে ঠিক মতন আর্দ্রতার যোগান দিতে না পারলে ত্বক আস্তে আস্তে মলিন ও নিস্তেজ হতে শুরু করে। তাই ত্বক সুস্থ রাখতে হলে বিশেষ করে সুষ্ক ত্বক সুস্থ রাখতে হলে নিয়ম করে ত্বকে ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। যদিও গরম কালে ত্বকে শুষ্কতা অনুভূত হয় না বলে আমাদের মনে হয় এইসময়ে হয়ত কোন ধরণের ময়শ্চারাইজার ব্যবহার না করলেও চলবে। কিন্তু এতে করে পরবর্তি সময়ে ত্বকে অনেক রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই তীব্র গরমের মধ্যেও ত্বকে প্রাকৃতিক ভাবে আর্দ্রতা যোগানোর ব্যবস্থা করতে হবে। আমার এই ফেস প্যাকটি আপনাদের শুষ্ক ত্বকের জন্য এই কাজটিই করে দেবে। তবে যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা শীত কালে এই একই ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। তবে গরমের সময় তৈলাক্ত ত্বকের নারীরা এই ফেস প্যাক ব্যবহার না করলেই ভাল। আসুন তাহলে এই ফেস প্যাক বানাবার উপকরণ ও ব্যবহার পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেয়া যাক।

শুষ্ক ত্বক এর ফেস প্যাক বানাতে যে যে উপকরণ দরকার হবে

শুষ্ক ত্বক এর জন্য জরুরি এই ফেস প্যাক বানাবার জন্য আমাদের খুব বেশি পরিমাণে উপকরণ এর দরকার হবে না। মাত্র তিনটি উপকরণ ব্যবহার করে এই ফেস প্যাকটি বানাতে হবে। আর এই তিনটি উপকরণই খুবই সাধারণ। রূপ সচেতন যে কোন নারীর বাসাতেই এই উপকরণ গুলি অবশ্যই থাকবে। আসুন উপকরণ গুলির নাম জেনে নেয়া যাক। সেই সাথে এই উপকরণ গুলি কত টুকু পরিমাণে ব্যবহার করতে হবে তাও জেনে নেই চলুন।

চন্দন গুড়া ১ চা চামচ

টক দই ১ চা চামচ

মধু ১ চা চামচ

ফেস প্যাক যে পদ্ধতিতে বানাতে হবে

একটি ছোট পাত্রে চন্দন গুড়া, টক দই ও মধু নিয়ে নিতে হবে। সম পরিমাণে এই তিনটি উপকরণ নিতে হবে। এই বার একটি কাটা চামচ দিয়ে বেশ ভাল করে ফেতে এই তিনটি উপকরণ একে অন্যের সাথে মিশিয়ে দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন এই উপকরণ গুলি একে অন্যের সাথে মিশে যেন একটা স্মুথ পেস্ট তৈরী করে। কোন ভাবেই যেন কোন দলা পেকে না থাকে। এই ফেস প্যাক বানাবার পাঁচ মিনিট থেকে দশ মিনিট এর মধ্যেই এটি ব্যবহার করে ফেলতে হবে।

ফেস প্যাক যে পদ্ধতিতে ব্যবহার করতে হবে

অন্য যে কোন ফেস প্যাকের মত এই ফেস প্যাওটিও একদম পরিস্কার ও শুকনা মুখে ব্যবহার করতে হবে। এর জন্য প্রথমে যে কোন একটি ফেস ওয়াশ ব্যবহার করে আপনার মুখ ও গলার ত্বক পরিস্কার করে নিতে হবে। যেহেতু আপনার ত্বক শুষ্ক তাই অবশ্যই কোন ময়শ্চারাইজার য্যুক্ত মাইল্ড ফেস প্যাক ব্যবহার করতে হবে। ফেস প্যাক দিয়ে মুখ ও গলার ত্বক খুব ভাল ভাবে পরিস্কার করা হয়ে গেলে একটা শুকনা ও পরিস্কার তোয়ালে দিয়ে হালকা করে চেপে চেপে মুখ ও গলার ত্বক শুক্না করে নিতে হবে।

এই বার মুখ ও গলার ত্বকের উপর এই ফেস প্যাক সমান ভাবে লাগিয়ে নিতে হবে। অপেক্ষা করতে হবে ২০ মিনিট থেকে ২৫ মিনিট সময় পর্যন্ত। এই সময় এর মধ্যে এই ফেস প্যাকটি শুকিয়ে যাবার কথা। যদি এটি তখনো না শুকায় তবে আরো পাঁচ মিনিট থেকে দশ মিনিট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করা যেতে পারে। এর পরে ঠান্দা পানি দিয়ে খব ভাল করে মুখ ও গলার ত্বক থেকে এই ফেস প্যাক ধুয়ে ফেলতে হবে। ফেস প্যাক পরিস্কার করার সময় আলতো হাতে মুখে ও গলায় হালকা করে ম্যাসাজ করত হবে। এতে করে ফেস প্যাক এর গুণাগুণ খুব ভাল ভাবেই ত্বকের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে পারে।

মুখ ও গলার ত্বক থেকে এই ফেস প্যাক সম্পূর্ণ পরিস্কার করে ধুয়ে ফেলার পর একতা শুকনা তোয়ালে দিয়ে হালকা করে চেপে চেপে মুখ ও গলার ত্বক শুকনা করে নিতে হবে। এর পরে দেখুন আপনার ত্বক কতটা নরম ও কোমল অনুভূত হচ্ছে।

মন্তব্যসমূহ

আমি সাদিয়া রিফাত ইসলাম। একজন মা , হোমমেকার এবং ব্লগার। ভালভাসি রান্না করতে, বই পড়তে এবং লেখালেখি করতে।

মন্তব্য করুন