All Posts By

ফাতেমা সানজিদা

কলাপাতায় চিংড়ি পাতুরি

কলাপাতায় চিংড়ি পাতুরি

চিংড়ি মাছ যেভাবেই রান্না করা হোক না কেন সেটার স্বাদ অসাধারণ। তবে আমাদের দেশের দক্ষিণঅঞ্চলের রান্নায় কলাপাতার ব্যবহার অনেক। এই পাতায় রান্না করলে কলাপাতার একটা দারুন ফ্লেভার তারসাথে পাতা তাপে পুড়ে একটা স্মোকি ফ্লেভার নিয়ে আসে, সেটা এক কথায় অসাধারণ। আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করব দক্ষিনাঞ্চলের অসম্ভব মজার রেসিপি কলাপাতায় চিংড়ি পাতুরি। উপকরণ ছোট চিংড়ি মাছ – ১ কাপ বা মাঝারী / বড় চিংড়ি – ৭/৮ টি নারিকেল কুরানো – ১/৪ কাপ   সরিষার তেল

পাম্পকিন ফ্রাই রেসিপি

পাম্পকিন ফ্রাই

অনেক তো খাওয়া হল ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, ফ্রেঞ্চ ফ্রাইয়ের মত করেই পাম্পকিন বা মিষ্টি কুমড়া দিয়ে ফ্রাই তৈরি করা যায়। এর ফলে সবজি খাওয়াও হল, ফ্রাই ও হল। অনেক বাচ্চারাই সবজি খেতে চায় নাহ, এভাবে করে পাম্পকিন ফ্রাই করে দিন। আর দেখুন এক নিমিষে কিভাবে মিস্টি কুমড়া খেয়ে ফেলে। এই রেসিপিটি মূলত তৈরি করা খুব সহজ কিন্তু পাম্পকিন বা মিষ্টি কুমড়া ফ্রাইটাকে ক্রিস্পি করার জন্য কিছু টেকনিক অনুসরণ করতে হবে। ঠিকঠাকভাবে সেটা অনুসরণ করতে পারলেই একদম

কদবেলের এত গুন

কদবেলের এতো গুন

আমাদের দেশের নানা রকম মৌসুমি ফলের রয়েছে নানা পুস্টিগুন ও উপকারিতা। মৌসুমি ফলের মধ্যে কদবেল স্বাদ ও পুস্টির দিক দিয়ে অন্যতম। একটু টকস্বাদের হওয়ার কারনে ছোট- বড় সবাই কম বেশি পছন্দ করে থাকে। বর্তমান সময়ে আমাদের দেশের বাজার- রাস্তা ঘাটে, এমনকি স্কুল- কলেজের সামনে কদবেলের পসার খুব বেশি। গরমে কদবেলের ভর্তা বা শরবত আমাদের একটু শান্তি এনে দেয়। শুধু আমাদের শরীরকে প্রশান্ত করে তাই না, কদবেলের আছে নানান ঔষধি গুন। চলুন কদবেলের পুষ্টিগুন ও উপকারিতা

কদবেলের শরবত রেসিপি

কদবেলের শরবত রেসিপি

টকস্বাদের কদবেল গরমে আমাদের শরীরকে প্রশান্ত করবে। তার পাশাপাশি কদবেলের বিভিন্ন পুস্টিগুন রয়েছে। মৌসুমি ফলগুলো অল্প সময়ের জন্য পাওয়া যায়। তাই যখন যে ফলের ভরা মৌসুম তখন সেই ফল বেশি করে খাওয়া উচিত। রাস্তার মোড়ে মোড়ে এখন কদবেল বিক্রি হচ্ছে খুব। বেশিরভাগ মানুষ কদবেল বিটলবন-মরিচ দিয়ে মাখিয়ে খেয়ে থাকে। তবে আরও কিছু মশলা যোগ করে কদবেল ভর্তাকে লোভনীয় করে তোলা যায়। তবে আজকে কদবেল দিয়ে আপনাদের জন্য ভিন্নরকম এক রেসিপি নিয়ে হাজির – কদবেলের শরবত।

দুধ–লাউ রেসিপি

দুধ–লাউ রেসিপি

শীতের দিনে লাউের তৈরি তরকারি, ভাজি সবই খেতে অমৃত। লাউ খুব উপকারি এক সবজি। এটা খেলে আমাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমে যায়।লাউ দিয়ে মজাদার এক মিস্টি আইটেম হল দুধ লাউ। গ্রাম-বাংলার এক ঐতিহ্যবাহী এক খাবার এই দুধ লাউ।রেসিপিটি দেখে নিন আরো উপভোগ করুন গ্রাম বাংলার স্বাদ। উপকরণ   কচি লাউ – ১টি ফুলক্রিম মিল্ক – ৫০০ গ্রাম প্যাকেট চিনি – ১/৪ কাপ বা স্বাদ অনুযায়ী পানি – ২ লিটার এলাচ – ৪/৫ টি দারচিনি – ২

শ্রিম্প ফ্রাইড রাইস রেসিপি

শ্রিম্প ফ্রাইড রাইস রেসিপি

খুব চটপট ও মজাদার স্বাদের এক রেসিপি নিয়ে হাজির হয়ে গেলাম আজকে -শ্রিম্প ফ্রাইড রাইস। শ্রিম্প পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুস্কর। বিশেষ করে বাচ্চারা তো খুব পছন্দ করে খায়। খুব সহজে ও কম সময়ে  রান্না করে খাওয়া যাবে এই রেসিপিটি। আসুন রেসিপিটি দেখে নিই। উপকরণ পোলাওর চাল – ২ কাপ শ্রিম্প মাঝারী – ৮/১০ টি ডিম – ১ টি লবণ – সামান্য গাজর (গ্রেট করা) – ১/৪ কাপ মটরশুঁটি – ১/৪ কাপ

লোভনীয় কদবেল ভর্তা

জিভে জল আনা লোভনীয় কদবেল ভর্তা

বাংলাদেশের খুব জনপ্রিয় স্ট্রিট খাবার কদবেলের ভর্তা। কদবেল এমনিতেই খুব উপকারি ও মজাদার স্বাদের এক ফল। কিন্তু ভর্তা বানিয়ে খেলে এর স্বাদ যেন বেড়ে যায় দ্বিগুণ। তবে রাস্তাঘাটে যে কদবেল ভর্তা পাওয়া যায় তা খুব একটা স্বাস্থ্যসম্মত নয়। তারুপর রাস্তা-ঘাটে যে ধুলাবালি তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তারচেয়ে ভাল আস্ত কদবেল কিনে বাসায় আনুন। নিজের হাতে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে বানিয়ে খান কদবেল ভর্তা। একেক জন একেকভাবে কদবেল ভর্তা বানিয়ে থাকে, তবে আমি আজ আপনাদের

টি-শার্ট থেকে কুশন কভার

টি-শার্ট থেকে কুশন কভার

সোফাতে নানা রকমের বিভিন্ন ডিজাইনের কুশন কভার দিলে ড্রইং রুমের চেহারাটাই অন্যরকম হয়ে যায়। সোফা ছাড়াও খাটে বা মেঝেতে বিভিন্ন সাইজের কুশন দিয়ে সাজালে ঘরটা নান্দনিক হয়ে উঠে। এতে করে আপনার সুন্দর রুচির প্রকাশও পায়। ঘরে অনেক কুশন ব্যবহার করলে এর জন্য বিভিন্ন রকমের কুশন কভার কিনে ব্যবহার যেমন ঝামেলার তেমনি ব্যয়বহুল। সবসময় যে কিনেই জিনিস ব্যবহার করতে হবে তেমন কোন কথা নেই। ঘরে থাকা জিনিসপত্র দিয়ে একটু বুদ্ধি খাটিয়ে প্রয়োজনীয় জিনিস বানিয়ে নেয়া যায়।

পেঁপের পায়েস

পেঁপের পায়েস রেসিপি

আমাদের দেশে প্রায় সারাবছর পাওয়া যায় এমন এক সবজি পেঁপে।পেঁপে দিয়ে নানাপদের সবজি রান্না করা হয় বা মাছ-মাংসের সাথেও রান্না হয়ে থাকে। কিন্তু পেঁপে দিয়ে নানারকম মিস্টি খাবারও  রান্না করা যায়। মিস্টি খাবারের মধ্যে পেঁপে দিয়ে হালুয়া খুব জনপ্রিয়।পেঁপে দিয়ে আরও একটা সুস্বাদু খাবার হল পেঁপের পায়েস।এই রকম পায়েস লাউ দিয়েও রান্না করা হয়। শীতের সময় আসছে, এইসময় পায়েস জাতীয় খাবার খেতে খুব মজা।যেসব বাচ্চারা সবজি খেতে চায় না তাদের জন্য আদর্শ রেসিপি এটা। চলুন